মিডিয়া

now browsing by category

 
Posted by: | Posted on: October 14, 2021

অনিবন্ধিত নিউজ পোর্টাল বন্ধের মামলায় পক্ষভুক্ত হতে ভয়েসবিডি টুয়েন্টিফোর এবং নেত্রকোনার আলো ডটকম নামের ‍দুটি পোর্টালের আবেদন

প্রেসওয়াচ রিপোর্ট: অননুমোদিত ও অনিবন্ধিত অনলাইন নিউজ পোর্টাল বন্ধের আদেশের বিরুদ্ধে আইনি লড়াই করতে ওই মামলায় পক্ষভুক্ত হওয়ার জন্য হাইকোর্টে আবেদন করেছে দুটি অনলাইন পোর্টাল।

ভয়েসবিডি টুয়েন্টিফোর এবং নেত্রকোনার আলো ডটকম নামের ‍দুটি পোর্টালের পক্ষ থেকে হাইকোর্টের সংশ্লিষ্ট শাখায় গত সোমবার (১১ অক্টোবর) আবেদন করা হয়েছে। ওই আবেদনের বিষয়টি বুধবার (১৩ অক্টোবর) সাংবাদিকদের জানিয়েছেন আইনজীবী মো. সানজিদ সিদ্দিকী।

সানজিদ সিদ্দিকী বলেন, ‘ঢাকার- ভয়েসবিডি টুয়েন্টিফোর এবং নেত্রকোনার আলো ডটকম কর্তৃপক্ষ অনলাইন পোর্টালের নিবন্ধন (রেজিস্ট্রেশন) করার জন্য সংশ্লিষ্ট দফতরে কাগজপত্র জমা দিয়েছেন। তাদের নিবন্ধন প্রক্রিয়া সমাপ্ত হওয়ার আগেই হাইকোর্ট অনিবন্ধিত অনলাইন পোর্টাল বন্ধের নির্দেশ দিয়েছেন। যেহেতু তাদের অনলাইন পোর্টালটির নিবন্ধনপ্রক্রিয়া এখনও সম্পন্ন হয়নি, তাদের অবস্থা কী হবে? সে জন্য তারা হাইকোর্টের আদেশের বিরুদ্ধে আইনি মোকাবিলা করতে পক্ষভুক্ত হওয়ার আবেদন জানিয়েছেন।’

ওই আইনজীবী আরও বলেন, ‘এ বিষয়ে আগামী সপ্তাহে আদালতে শুনানি হতে পারে। তবে, সেই আবেদন হাইকোর্ট বিভাগে নাকি সুপ্রিম কোর্টের আপিল বিভাগে শুনানি হবে তা এখনও নির্ধারণ হয়নি।’

জানা গেছে, আপিলে লড়তে পক্ষভুক্ত হওয়ার আবেদনকারী অনলাইন পোর্টাল নেত্রকোনার আলো ডটকম নিবন্ধনের জন্য ২০১৫ সালের ১০ ডিসেম্বর তথ্য মন্ত্রণালয়ে আবেদন করে। আর ভয়েসবিডি টুয়েন্টিফোর ডটকম ২০১৯ সালের ২৭ জুন আবেদন করে। কিন্তু তাদের ওই আবেদনে কোনো সাড়া দেয়নি তথ্য মন্ত্রণালয়ের সংশ্লিষ্ট দপ্তর। তাই তারা মামলায় পক্ষভুক্ত হতে আবেদন করেন।

এর আগে গত ১৪ সেপ্টেম্বর দেশের সব অনিবন্ধিত অনলাইন নিউজ পোর্টাল বন্ধের নির্দেশ দেন হাইকোর্ট। একই সঙ্গে সাত দিনের মধ্যে বাংলাদেশ টেলিযোগাযোগ নিয়ন্ত্রণ কাউন্সিলের (বিটিআরসি) চেয়ারম্যানকে এ নির্দেশ বাস্তবায়ন করে আদালতে প্রতিবেদন দাখিল করতে বলা হয়।

বিচারপতি মো. মজিবুর রহমান মিয়া ও বিচারপতি মো. কামরুল হোসেন মোল্লার সমন্বয়ে গঠিত হাইকোর্ট বেঞ্চ এ আদেশ দেন।

পরে গত ২৮ সেপ্টেম্বর হাইকোর্টের আদেশ প্রতিপালনের জন্য আরও সময় চেয়ে আবেদন করে বাংলাদেশ টেলিযোগাযোগ নিয়ন্ত্রণ কমিশন (বিটিআরসি)। আদালত বিটিআরসির আবেদন মঞ্জুর করে এ বিষয়ে আদেশের জন্য আগামী ২৫ অক্টোবর দিন ধার্য করে।

আদালতে বিটিআরসির পক্ষে ছিলেন আইনজীবী ফারজানা শারমিন। রিটের পক্ষে ছিলেন আইনজীবী জারিন রহমান ও রাশিদা চৌধুরী নীরত

রাজধানীর গুলশানে কলেজছাত্রী মোসারাত জাহান মুনিয়ার মৃত্যুর ঘটনায় অনেক অনলাইন নিউজ পোর্টাল, অনলাইন চ্যানেলে ‘সম্মানহানিকর’ খবর প্রকাশ বন্ধে গত জুন মাসে দুই আইনজীবী রাশিদা চৌধুরী ও জারিন রহমানের করা রিট আবেদনের ধারাবাহিকতায় আদালত এই আদেশ দিয়েছিলেন।

তখন অনুমোদনহীন ও অনিবন্ধিত অনলাইন নিউজ পোর্টালের প্রচার-প্রকাশ বন্ধে আইনি পদক্ষেপ নিতে এবং নিবন্ধনের জন্য বিবেচনাধীন অনলাইন নিউজ পোর্টালগুলোকে নিবন্ধন দিতে কেন নির্দেশ দেওয়া হবে না, তা জানতে চেয়ে রুল জারি করে আদালত।

এ ছাড়া রুলে প্রেস কাউন্সিল আইন ১৯৭৪ এর ১১(২)(খ) অনুযায়ী কার্যকর ও উপযুক্ত একটি নৈতিক আচরণবিধি প্রণয়ণে নিষ্ক্রিয়তাকে কেন আইনগত কর্তৃত্ববহির্ভূত ঘোষণা করা হবে না, তা জানতে চাওয়া হয়। এবং পত্রিকা ও অন্যান্য সংবাদ সংস্থা, সাংবাদিকদের উচ্চমানসম্পন্ন পেশাদারিত্বের জন্য একটি নৈতিক আচরণবিধি করার নির্দেশ কেন দেওয়া হবে না, তাও জানতে চাওয়া হয়। তথ্য সচিব, বিটিআরসির চেয়ারম্যান ও বাংলাদেশ প্রেস কাউন্সিলের চেয়ারম্যানকে রিটে বিবাদী করা হয়েছিল।

Posted by: | Posted on: May 27, 2021

বাধীন বাংলা বেতার কেন্দ্রের সম্প্রচারের ৫০ বছর

প্রেসওয়াচ ডেস্কঃ শুরুটা হয়েছিল ১৯৭১ সালের ২৬ মার্চ। এদিন চট্টগ্রামের কালুরঘাটে প্রথম শোনা যায় স্বাধীন বাংলা বেতার কেন্দ্রের ডাক। নামটা ছিল ‘স্বাধীন বাংলা বিপ্লবী বেতার কেন্দ্র’। তবে সে নামটা থেকে ‘বিপ্লবী’ অংশটা ফেলে দেওয়া হয়। সেখানে বেশিদিন থিতু হওয়ার সময় পায়নি কেউ। পাকিস্তানি সেনাবাহিনীর বোমা হামলায় দ্রুত বন্ধ হয়ে যায় কেন্দ্রটির কার্যক্রম।

পরবর্তী সময় ২৫ মে কলকাতার বালিগঞ্জে আনুষ্ঠানিকভাবে যাত্রা করে স্বাধীন বাংলা বেতার কেন্দ্র।

কেন্দ্রটির তরুণ সুরযোদ্ধা ছিলেন সুজেয় শ্যাম। তিনি  বলেন, ‘চট্টগ্রামের কালুরঘাটে কার্যক্রম বন্ধ হয়ে যাওয়ার পর ভারত সরকার বাংলাদেশকে একটি শক্তিশালী ট্রান্সমিটার (৫০ কিলোওয়াট মিডিয়াম ওয়েভ) প্রদান করে। বাংলাদেশের অস্থায়ী সরকার মূলত সবকিছু দেখভাল করছিল। প্রথম অধিবেশনের দিন ধার্য করা হয় কবি নজরুল ইসলামের জন্মবার্ষিকী ১১ জ্যৈষ্ঠ (২৫ মে)। এ প্রস্তাবনাটি ছিল জননেতা আব্দুল মান্নানের। তিনি মুজিবনগর সরকারের তথ্য ও বেতার মন্ত্রণালয়ের দায়িত্বপ্রাপ্ত এম.এন.এ ছিলেন। তবে আমি যোগ দিই আরও কয়েকদিন পরে।’

 সুজেয় শ্যাম জানান, জুনের ৭ তারিখে তিনি বালিগঞ্জের সার্কুলার রোডের বাসাটিতে যান। ততদিনে এটি স্বাধীন বাংলা বেতার কেন্দ্রের কার্যালয় হিসেবে পরিচিতি পেয়েছে।

এই সুরস্রষ্টার ভাষ্য, ‘‘৭টি পরিবার নিয়ে সিলেট থেকে আমি কলকাতাতে গিয়েছিলাম। সেখানেই ছিলাম কয়েকদিন। কিন্তু স্বাধীন বাংলা বেতারের সম্পর্কে কেউ তেমন কিছু বলতে পারত না। একদিন ট্রামে করে যাওয়ার সময় দেখি সুভাস দত্ত দা বসে আছেন। তিনি আমাকে বললেন, ‘চলো আমার সঙ্গে’। তারিখটা সম্ভবত ৭ জুন। গেলাম বালিগঞ্জে। দেখি আমার পরিচিত অনেকেই আছেন। সমর দাস, আপেল মাহমুদ, আবদুল জব্বার, মালা খুররম, কল্যাণী ঘোষ, উমা খান, রথীন্দ্রনাথ রায়, অশীথ, অনুপ ভট্টাচার্যসহ অনেকেই ছিলেন। সেদিনই কাজ শুরু করি।’’

 সুজেয় শ্যাম সুজেয় শ্যাম জানান, প্রথমদিনেই গানের কাজে লেগে পড়েন। তৈরি করেন ‘আয়রে চাষি মজুর কুলি’। এই সংগীত পরিচালক মোট নয়টি নতুন গান সৃষ্টি করেন। এমনকি স্বাধীন বাংলা বেতার কেন্দ্রের শেষ গানও তার তৈরি।

দিনটা ১৯৭১ সালের ১৬ ডিসেম্বর। সকালবেলা পশ্চিমবঙ্গের বালিগঞ্জের সার্কুলার রোডে স্বাধীন বাংলা বেতার কেন্দ্রে আলাদা উত্তেজনা। শোনা যাচ্ছিল, যেকোনও মুহূর্তে পাকবাহিনী আত্মসমর্পণ করবে। আর এ জন্য নেওয়া হলো প্রস্তুতিও। বেতারের দুই কর্মকর্তা আশফাকুর রহমান ও তাহের সুলতান ডেকে পাঠালেন সুজেয় শ্যামকে। উদ্দেশ্য, বিজয়ের গান তৈরি। বেশ তড়িঘড়ি করেই গীতিকার শহীদুল ইসলাম লেখেন ‘বিজয় নিশান উড়ছে ওই’। আর এটাই স্বাধীন বাংলা বেতার কেন্দ্র থেকে গাওয়া শেষ ও স্বাধীন বাংলাদেশের প্রথম গান।

 তবে শুধু গানই নয়, প্রায় সাত মাস ধরে চলা এই বেতার প্রচার করেছে নানা ধরনের উদ্দীপনী গান ও অনুষ্ঠান। স্বাধীন বাংলা বেতার কেন্দ্রের কিছু নিয়মিত অনুষ্ঠান হলো- চরমপত্র, মুক্তিযুদ্ধের গান, যুদ্ধক্ষেত্রের খবরাখবর, রণাঙ্গনের সাফল্যকাহিনি, সংবাদ বুলেটিন, ধর্মীয় কথিকা, বজ্রকণ্ঠ, নাটক, সাহিত্য আসর ও রক্তের আখরে লিখি। সবচেয়ে জনপ্রিয় ছিল অনুষ্ঠান এম আর আখতার মুকুল উপস্থাপিত ‘চরমপত্র’। এখানে তিনি পাকিস্তান সামরিক বাহিনীর অসংলগ্ন অবস্থানকে পুরান ঢাকার আঞ্চলিক ভাষার সংলাপে তুলে ধরতেন। চরমপত্রের পরিকল্পনা করেন আবদুল মান্নান।

এছাড়া ‘জল্লাদের দরবার’ পরিচালনা করতেন কল্যাণ মিত্র। অনুষ্ঠানটিতে ইয়াহিয়া খানকে ‘কেল্লা ফতে খান’ হিসেবে ব্যঙ্গাত্মকভাবে ফুটিয়ে তোলা হতো। ‘বজ্র কণ্ঠ’ অনুষ্ঠানে শেখ মুজিবুর রহমানের ভাষণের অংশবিশেষ সম্প্রচার করা হতো। যা বাঙালি জাতিকে নতুন করে উদ্দীপ্ত করত।

 স্বাধীন বাংলা বেতার কেন্দ্রের সেসময়ের আয়োজন নিয়ে কেন্দ্রটির আহ্বায়ক কমিটির সভাপতি প্রয়াত কামাল লোহানীর বক্তব্য ছিল এমন, ‘আমাদের জন্য বেতার ছিল মনস্তাত্ত্বিক যুদ্ধক্ষেত্র, যার মাধ্যমে আমরা জনগণের সাহস বাড়াতে সহায়তা করেছিলাম।’ সুত্র-বাংলা ট্রিবিউন।

Posted by: | Posted on: May 21, 2021

স্যাটেলাইটের বিল বকেয়া : এসএটিভি ও চ্যানেল নাইনের সম্প্রচার বন্ধ

আইরিন নাহার ॥ স্যাটেলাইটের বকেয়া বিল পরিশোধ না করায় বেসরকারি টেলিভিশন চ্যানেল এসএটিভি ও চ্যানেল নাইনের সম্প্রচার বন্ধ করে দেওয়া হয়েছে। তবে আজ দুপুর দেড়টার মধ্যে এসএটিভি চালু হবে। আর আগামী রবিবার চ্যানেল নাইন পুনরায় চালু হওয়ার সম্ভাবনা রয়েছে।

শুক্রবার (২১ মে) বাংলাদেশ স্যাটেলাইট কোম্পানি লিমিটেডের (বিএসসিএল) চেয়ারম্যান শাহজাহান মাহমুদ এ তথ্য নিশ্চিত করেছেন।

তিনি বলেন, বিদ্যুৎ বিল বাকি থাকলে যেমন লাইন বিচ্ছিন্ন করে দেওয়া হয়, ঠিক তেমনি আমাদেরও পদ্ধতি আছে। গতকাল (বৃহস্পতিবার) রাত থেকে এ দুটি টেলিভিশনের সম্প্রচার বন্ধ করে দেওয়া হয়েছে।

তিনি বলেন, দুই টেলিভিশনের পক্ষ থেকে আমাদের সঙ্গে যোগাযোগ করা হয়েছে। হয়ত আধা ঘণ্টা-এক ঘণ্টার মধ্যে এসএ টিভি চালু হয়ে যাবে। রবিবারে চ্যানেল নাইন চালু হতে পারে।

নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক এসএটিভির একজন প্রতিবেদক জানান, ভুল বোঝাবুঝির কারণে এমনটি হয়েছে। গতকাল রাত থেকে সম্প্রচার বন্ধ করে দেওয়া হয়েছে। তবে খুব শিগগিরই চালু হবে।

তিনি জানান, শুধু এসএটিভি নয়, রাতে আরও কয়েকটি টেলিভিশনের সংযোগ বিচ্ছিন্ন করে দেওয়া হয়। অনেকে রাতেই বিল পরিশোধ করেছে।

Posted by: | Posted on: January 11, 2021

সাংবাদিক মিজানুর রহমান খান লাইফ সাপোর্টে

গত ডিসেম্বর মাসে তিনি করোনাভাইরাসে আক্রান্ত হন। এরপর থেকেই রাজধানীর ইউনিভার্সেল মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে (সাবেক আয়েশা মেমোরিয়াল হাসপাতাল)  চিকিৎসাধীন আছেন।

হাসপাতালের ব্যবস্থাপনা পরিচালক ডা. আশীষ কুমার চক্রবর্তী  বলেন, ‘শনিবার আমরা তাকে ভেন্টিলেটর দিতে বাধ্য হয়েছি। কারণ, উনি প্রায় এক মাস ধরে চিকিৎসাধীন আছেন। উনার এখন পোস্ট কোভিড কমপ্লিকেশন দেখা দিয়েছে। তাতে উনার রেস্পায়রেটরি মাসেলসগুলোর শক্তি কমে গেছে। ফলে যে পরিমাণ গতি প্রয়োজন তিনি সেটা দিতে পারছেন না। রেস্পায়রেটরি ড্রাইভ ঠিক না থাকলে শরীরে কার্বন ডাই অক্সাইডের পরিমাণ বেড়ে যায়। এ কারণে ভেন্টিলেটর দেওয়া ছাড়া উপায় থাকে না। শনিবার থেকে তিনি ভেন্টিলেটরে আছেন এবং স্থিতিশীল আছেন।’সুত্র-বাংলা ট্রিবিউ্ন ।

Posted by: | Posted on: December 29, 2020

ফটোজার্নালিস্ট অ্যাসোসিয়েশনের সভাপতি গোলাম মোস্তফা ও সাধারণ সম্পাদক কাজল হাজরা

বাংলাদেশ ফটোজার্নালিস্ট অ্যাসোসিয়েশনের ২০২০-২০২২ নির্বাচনে সভাপতি পদে গোলাম মোস্তফা ও সাধারণ সম্পাদক পদে কাজল হাজরা নির্বাচিত হয়েছেন। সোমবার (২৮ ডিসেম্বর) সংগঠনের কেন্দ্রীয় কার্যালয়ে এই নির্বাচন অনুষ্ঠিত হয়।

সোমবার সকাল ৯টায় নির্বাচনে ভোটগ্রহণ শুরু হয় এবং বেলা ৪টা পর্যন্ত চলে। ২০২০-২২ দ্বিবার্ষিক নির্বাচনে ১৫টি পদে প্রতিদ্বন্দ্বিতা করেছেন ৩২ জন। সভাপতি পদে প্রার্থী  ছিলেন গোলাম মোস্তফা ও শফিউদ্দিন আহমেদ বিটু। সাধারণ সম্পাদক পদে নির্বাচন করেছেন কাজল হাজরা ও কাজী বোরহান উদ্দিন। এছাড়াও সহ-সভাপতি পদে পাঁচ জন প্রার্থী প্রতিদ্বন্দ্বিতা করেছেন। এরমধ্যে নির্বাচিত হবেন দুইজন। যুগ্ম সম্পাদক পদে প্রার্থী রয়েছেন তিন জন।

সংগঠনের মোট ভোটার সংখ্যা ১৮১ জন। প্রধান নির্বাচন কমিশনারের দায়িত্ব পালন করেছেন স্বপন দাশগুপ্ত।

প্রসঙ্গত, ১৯৭২ সালে বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের পৃষ্ঠপোষকতায় এই সংগঠনের যাত্রা শুরু হয়।