Main Menu

সুযোগ কাজে লাগাতে পারবেন তো মুমিনুল?

মাহাবুবুর রহমান চঞ্চলঃ


ক্রাইস্টচার্চে দ্বিতীয় ওয়ানডেতে ব্যাট করার সময় হ্যামস্ট্রিংয়ে চোট পান মোহাম্মদ মিঠুন। এই চোট তাঁকে যথেষ্ট ভোগাচ্ছে। তৃতীয় ও শেষ ওয়ানডেতে মিঠুনের খেলার সম্ভাবনা খুবই কম। মুশফিকুর রহিমের ব্যথা পেয়েছেন পাঁজরে। তাঁর খেলা নিয়েও তৈরি হয়েছে অনিশ্চয়তা। এই দোটানায় টেস্ট সিরিজের জন্য আগেই নিউজিল্যান্ডে যাওয়া মুমিনুল হককে নেওয়া হয়েছে ওয়ানডে দলে।


মুমিনুলকে দলে নেওয়ার বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন ম্যানেজার খালেদ মাসুদ, ‘মুশফিক-মিঠুনের স্ক্যান করানোর জন্য আমরা এখনো কোন স্লট পাইনি। কাল তাদের স্ক্যান হতে পারে। এরপরও বোঝা যাবে তারা খেলার মতো অবস্থায় আছে কিনা। আপনারা জানেন মুমিনুল দলের সঙ্গেই আছে শুরু থেকে। সাকিব আল হাসানের বিকল্প হিসেবে ১৫ জনের স্কোয়াডে এখন সে যুক্ত হয়েছে।’

সোমবার ক্রাইস্টচার্চে টেস্ট দলের সদস্যদের সঙ্গে অনুশীলন শেষে ডানেডিনে তৃতীয় ওয়ানডের ভেন্যুতে পৌঁছেছেন মুমিনুল। তিনি অবশ্য নিউজিল্যান্ড গেছেন বেশ আগেই। বিপিএলের ফাইনালের কারণে ওয়ানডে দলের কয়েকজন ব্যস্ত থাকায় টেস্ট দলের মুমিনুল ও সাদমান ইসলামকে আগেভাগেই পাঠিয়ে দেওয়া হয়েছিল প্রস্তুতি ম্যাচের জন্য। মুমিনুল ওয়ানডে সিরিজের আগের প্রস্তুতি ম্যাচেও খেলছেন।

প্রথম দুই ওয়ানডেতে দলের সঙ্গে ছিলেন, বদলি ফিল্ডার হিসেবে মাঠেও নেমেছিলেন মুমিনুল। দ্বিতীয় ওয়ানডের পর ক্রাইস্টাচার্চেই টেস্ট দলের বাকি সদস্যদের সঙ্গে থেকে গিয়েছিলেন তিনি। এবার আনুষ্ঠানিকভাবে ওয়ানডে দলে যুক্ত হয়ে গেলেন ডানেডিন।

ক্রাইস্টচার্চে দ্বিতীয় ওয়ানডেতে ব্যাট করার সময় পেশিতে টান পড়ে মিঠুনের, ওই অস্বস্তিতে ফিফটির পর আউটও হয়ে যান। প্রথম দুই ওয়ানডেই ফিফটি করা এই ব্যাটসমানকে শেষ ম্যাচে পাওয়ার সম্ভাবনা একেবারেই কম। দলের ফিজিও প্রাথমিকভাবে জানিয়েছেন যদি মিঠুনের চোটের মাত্রা গ্রেড-ওয়ানও হয় তবে অন্তত সপ্তাহ খানেক বিশ্রামে থাকতে হতে পারে তাকে। সেক্ষেত্রে প্রথম টেস্টের আগে মাঠে নামতে পারছেন না তিনি। সেদিক থেকে ১০ ফেব্রুয়ারি প্রস্তুতি ম্যাচে পাঁজরে চোট পাওয়া মুশফিকের শেষ ম্যাচে খেলার সম্ভাবনা রয়েছে।






Related News