ফের গণমাধ্যমকে নিয়ন্ত্রণ করছে চীন

প্রেস ওয়াচ রিপোর্টঃ

দেশের মিডিয়াকে নিয়ন্ত্রণ করতে চীনের কমিউনিস্ট সরকার আরও কিছু নতুন পরিকল্পনা প্রকাশ করেছে। চীনের ন্যাশনাল ডেভেলেপমেন্ট অ্যান্ড রিফর্ম কমিশন গত অক্টোবরে ‘নেগেটিভ মার্কেট একসেস লিস্ট- ২০২১’ সংস্করণ প্রকাশ করেছে। যার ফলে ‘অবৈধ সংবাদ এবং মিডিয়া-সম্পর্কিত ব্যবসা’-এর ওপর নতুন নিষেধাজ্ঞা তৈরি হয়েছে।

ওয়াশিংটন টাইমসের প্রতিবেদনে অনুযায়ী, ওই তালিকায় যেসব ক্ষেত্রে বেসরকারি বিনিয়োগ নিষিদ্ধ তা হলো- সংবাদ সংগ্রহ, সম্পাদনা এবং সম্প্রচারের জন্য অর্থায়ন; সংবাদ সংস্থা প্রতিষ্ঠা ও পরিচালনায় বিনিয়োগ করা; ওয়েবপেজ, রেডিও ফ্রিকোয়েন্সি, টেলিভিশন চ্যানেল, সংবাদপত্রের কলাম এবং সংবাদ সংস্থাগুলোর সোশ্যাল মিডিয়া অ্যাকাউন্ট পরিচালনা করা।

চীনা কমিউনিস্ট পার্টি তার সেন্সরশিপের ক্ষেত্রে কোনো ছাড় দেয়নি। জায়ান্ট প্রযুক্তি থেকে শুরু করে বিনোদন শিল্প পর্যন্ত সেন্সরশিপ আরোপ করেছে। এ ছাড়া এই সেন্সরশিপ চীনের সীমানা ছাড়িয়ে গেছে।

সম্প্রতি শি জিনপিং সরকার নতুন ‘পঞ্চবার্ষিক শাসন পরিকল্পনা’ চালু করেছে। তবে সেই সঙ্গে বেসরকারি খাতে তার সাঁড়াশি অভিযান নতুন করে চালু করেছে।

গ্লোবাল থিঙ্ক ট্যাঙ্ক পলিসি রিসার্চ গ্রুপ অনুসারে, চীনা কমিউনিস্ট পার্টি প্রযুক্তি জায়ান্ট থেকে বিনোদন ব্যবসায় এবং তার সীমানা পেরিয়েও সেন্সরশিপ উল্লেখযোগ্যভাবে বৃদ্ধি করেছে।

শি জিনপিংয়ের শাসনামলে চীনা নাগরিকদের তথ্য প্রাপ্তি কঠোর করা হয়েছে। এমনকি কমিউনিস্ট সরকার আফ্রিকা, এশিয়া-প্রশান্ত মহাসাগরীয় অঞ্চল এবং ইউরোপী ও লাতিন আমেরিকার দেশগুলোতে তার সাম্রাজ্যবাদী গল্প প্রচারের চেষ্টা করছে। বর্তমানে সিসিপি চীনের মিডিয়াকে কঠোরভাবে নিয়ন্ত্রণ করছে এবং দেশের বাইরে মুক্ত গণমাধ্যমকেও শোষণের লক্ষ্য স্থির করেছে।

সূত্র : দ্য হংকং পোস্ট