Main Menu

ঢাকায় হাটে হঠাৎ পশুর সংকট।।ব্যবসায়ীদের বিরুদ্ধে কারসাজির অভিযোগ

মাহবুব বাশার :হঠাৎ পশুর সরবরাহ কম ও সংকট দেখা দেওয়ায় ঢাকার হাটে হঠাৎ বেড়ে গেছে দাম। গরু ও ছাগল না পেয়ে বিভিন্ন বাজারে ঘুরছে হাজারো ক্রেতা।

বৃহস্পতিবার (৩১ জুলাই) মধ্যরাত থেকে সরবরাহ কিছুটা থাকলেও সকালের পর থেকে মহানগরীর কমলাপুরসহ নানা পশুর হাটে সংকট দেখা দেয় পশুর। গাড়ি থেকে গরু বাজারে নামলেই তা কিনতে ভিড় করেন অনেকে।

ডিএসসিসি র ৭৩ নং ওয়ার্ডের কুসুমবাগ নিবাসী আওয়ামীলীগ নেতা শাখাওয়াত হোসেন তপন জানান,গতকালও ঢাকার আশপাশের হাটগুলুতে পর্যাপ্ত গরু ছিল। তাই ভেবেছিলাম আজ সকালে গরু কিনবো । কিন্তু কমলাপুরসহ নানা হাটে পশুর সংকট লক্ষ্য করি । তিনি এটিকে ব্যবসায়ীদের তৈরি কৃত্রিম সংকট বলে মনে করেন।তিনি বলেন দেশে এ বছর পর্যাপ্ত পশুর উৎপাদন হয়েছে।তারপরও এ সংকটের কোনও যৌক্তিকতা খুজে পাচ্ছিনা। কি আর করবো ,দেখি কাপাসিয়া যাচ্ছি।শুনেছি সেখানে পর্যাপ্ত গরু আছে।

নয়াবাগ নিবাসী আব্দুর রাজ্জাক জানান,কাল ঈদ। শহরে গরুর রক্ষণাবেক্ষণ করা সমস্যা হওয়ায় অনেকে ঈদের আগেরদিন গরু কিনে। কিন্তু এবার আজ সকালে অফিসে যাবার পথে লক্ষ্য করি কমলাপুরে গরু রাখার জায়গাগুলো খালি পড়ে আছে।পশু না পেয়ে অনেক ক্রেতারা দ্বিগবিদিগ ছুটছেন।হঠাৎ সংকটের কারণ বুঝতে পারছিনা।

ইফতি জেনারেল ষ্টোরের স্বত্তাধিকারী আলী আকবর খান বলেন,প্রতি বছর আমরা ঈদের দুইদিন আগে গরু কিনে আনি।ব্যবসায়ীদের কারসাজির স্বীকার হতে রাজিনা।এ বছরও আমরা দুইদিন আগে গাবতলি হতে গরু কিনে এনেছি।গতকাল কমলাপুর হাট থেকে একটি ভেড়া ও একটি খাসী কিনেছি।আমি উপযুক্ত দামে পশু কিনতে পেরে খুশী।

বাজারে গরু রাখার জায়গাগুলো খালি পড়ে আছে। পশু না পেয়ে অনেক ক্রেতা হতাশা প্রকাশ করেছেন। যদিও সংকট তৈরি হওয়ার গ্রাম থেকে ট্রাকে ট্রাকে গরু আসছে বলে জানা গেছে।






Related News