বঙ্গবন্ধুর সম্মোহনী ক্ষমতা ছিল অসাধারণ: ড. কলিমউল্লাহ

বঙ্গবন্ধুর সম্মোহনী ক্ষমতা ছিল অসাধারণ: ড. কলিমউল্লাহ

প্রেস ওয়াচ রিপোর্টঃ আজ রবিবার, নভেম্বর ১৪, ২০২১ খ্রি. তারিখে মুজিব শতবর্ষ উপলক্ষ্যে জুমে অনুষ্ঠিত আলোচনা সভায় জানিপপ-এর প্রতিষ্ঠাতা চেয়ারম্যান প্রফেসর ডক্টর মেজর নাজমুল আহসান কলিমউল্লাহ, বিএনসিসিও অনুষ্ঠানের সভাপতি হিসেবে সংযুক্ত ছিলেন।

সভাপতির বক্তব্যে প্রফেসর ডক্টর নাজমুল আহসান কলিমউল্লাহ বলেন, বঙ্গবন্ধুর সম্মোহনী ক্ষমতা ছিল অসাধারণ।

মুজিব শতবর্ষ উপলক্ষ্যে জুমে অনুষ্ঠিত আলোচনা সভায় প্রধান অতিথি হিসেবে সংযুক্ত ছিলেন ইউএন ডিজএ্যাবিলিটি রাইটস্ চ্যাম্পিয়ন আব্দুস সাত্তার দুলাল। তিনি বলেন, বঙ্গবন্ধুকে সাধারণ মানুষ অন্তর থেকে ভালোবাসতো। প্রাত্যহিক এবাদতের পর বঙ্গবন্ধুর জন্য তারা প্রার্থনাও করতেন। জনাব দুলাল আরো বলেন,জানিপপ-এর সান্ধ্যকালীন এ সভায় প্রবীণ এবং তরুণ গবেষকবৃন্দ প্রতিনিয়ত বঙ্গবন্ধুর বিভিন্ন দিক জাতির সামনে তুলে ধরেছেন।যা সত্যিকার অর্থে উৎসাহব্যঞ্জক এবং সাধুবাদ পাওয়ার যোগ্য।

আজকের অনুষ্ঠানের বিশেষ অতিথি ছিলেন যথাক্রমে প্রকৌশলী জুয়েল মিয়াজী,রংপুর মহিলা আওয়ামীলীগের সভাপতি মোসাঃ আর্জিনা খানম।

আজকের আলোচনায় সূচনা বক্তব্য প্রদান করেন,দিনাজপুর বীরগঞ্জ উপজেলার ছাত্রলীগের সাধারণ সম্পাদক জনাব গোলাম মুর্শিদ।

মুখ্য আলোচক হিসেবে যুক্ত ছিলেন,জাহাঙ্গীরনগর বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রফেসর ও বঙ্গবন্ধু গবেষক ড. জেবউননেছা। তিনি বঙ্গবন্ধুর কারাগার জীবন নিয়ে আলোচনা করেন। তিনি বলেন, বঙ্গবন্ধু তিনহাজার ৫৩ দিন কারাগারে অন্তরীণ ছিলেন ।তবুও তিনি অন্যায়ের সাথে আপোষ করেননি বিন্দুমাত্র।

আজকের অনুষ্ঠানের গেস্ট অব অনার ছিলেন,ওয়েস্টার্ন সিডনি ইউনিভার্সিটি, অস্ট্রেলিয়া থেকে ড. তানভীর ফিত্তীণ আবীর।

ড. আবীর বলেন, বঙ্গবন্ধুকে নিয়ে ব্যাপক গবেষণা করতে হবে। তিনি আরো বলেন, বঙ্গবন্ধুর স্বপ্নের সোনার বাংলা গড়ার জন্য আইনের শাসন প্রতিষ্ঠা করতে হবে।এ প্রসঙ্গে তিনি সম্প্রতি আইন মন্ত্রণালয়ের যথাযথ পদক্ষেপের ভূয়শী প্রশংসা করেন।

আজকের অনুষ্ঠানে আলোচনায় অংশ নেন শিক্ষা ক্যাডারের সহযোগী অধ্যাপক আবু সালেক খান, রয়েল ইউনিভার্সিটি অব ঢাকা এর সহযোগী অধ্যাপক, বিভাগীয় প্রধান ও ডেইলি প্রেসওয়াচ সম্পাদক জনাব দিপু সিদ্দিকী, কুষ্টিয়া থেকে যুক্ত হন দৈনিক কুষ্টিয়ার সাংবাদিক হুমায়ুন কবির।নীলফামারীর জলঢাকা থেকে যুক্ত হন পিএইচডি গবেষক ফাতেমা-তুজ-জোহরা লিমা।

অধ্যাপক খান বলেন, বঙ্গবন্ধুকে নিয়ে লিখিত প্রবন্ধের চুম্বক অংশ পাঠ করেন। প্রবন্ধে জনাব খান বঙ্গবন্ধুর সফল কূটনৈতিক কার্যক্রমের কার্যক্রম তুলে ধরেন। জনাব সিদ্দিকী বলেন, বঙ্গবন্ধু দেশকে দেশের মানুষকে এক মঞ্চে আহ্বান করেছিলেন। তিনি মূল্যবোধমুখি মানব সমাজ প্রতিষ্ঠায় উদ্যোগী হয়ে বিশ্বে এক অনন্য দৃষ্টান্ত স্থাপন করেছেন। জনাব লিমা বলেন, বর্তমান সরকার তথ্যপ্রযুক্তি ব্যবহার করে দেশকে উন্নতির দিকে এগিয়ে নিয়ে যাচ্ছেন। ডিজিটাল প্ল্যাটফর্ম ব্যবহার করে দেশকে এগিয়ে নেয়ার স্বীকৃতিস্বরূপ জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু কন্যা মাননীয় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা আন্তর্জাতিক এমিনেন্স পুরস্কার লাভ করেন। এজন্য তিনি প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনাকে ধন্যবাদ এবং কৃতজ্ঞতা জানান।