সুনামগঞ্জের ‘পাহাড় বিলাস’ ও ‘হাওর বিলাসে’ ভিড় পর্যটকদের

দিপু সিদ্দিকীঃ

সুনামগঞ্জের বিশ্বম্ভরপুরে গড়ে তোলা পর্যটনকেন্দ্র ‘পাহাড় বিলাস’ ও ‘হাওর বিলাসে’ ভিড় করছেন দর্শনার্থীরা। হাওর, পাহাড় এবং মনোমুগ্ধকর প্রকৃতির ছোঁয়া পেতে প্রতিদিন বিকেল থেকে সন্ধ্যা পর্যন্ত শত শত পর্যটকের পদচারণায় মুখর হয়ে ওঠছে স্পটগুলো। তবে পর্যটকদের অভিযোগ, কেন্দ্র দুটির বিভিন্ন স্থাপনা ছোট হওয়ায় গাদাগাদিতে তাদের বিড়ম্বনায় পড়তে হচ্ছে। এ বিষয়ে উপজেলা প্রশাসন বলছে, স্থাপনাগুলো সম্প্রসারণের উদ্যোগ নেওয়া হয়েছে।

পর্যটন কেন্দ্র ‘পাহাড় বিলাস’। এটি বিশ্বম্ভরপুরের চেচনবিল এলাকায় গড়ে তোলা হয়েছে। আর খচার হাওরের তীরে গড়ে তোলা হয়েছে পর্যটন স্পট ‘হাওর বিলাস’। এসব স্পটে রয়েছে দোলনা, ক্যাফে, গোল ও ত্রিকোণ টেবিলসহ শিশুদের খেলাধুলার উপযোগী বিভিন্ন রাইড। দৃষ্টিনন্দন এসব স্পটে পরিবার-পরিজন নিয়ে সময় কাটাতে ছুটে আসেন পর্যটকরা।

সময় কাটাতে আসা পর্যটকরা বলেছেন, খুবই ভালো লেগেছে। আসার সময় অনেক সুন্দর সুন্দর ফুল দেখেছি। পাহাড়, কাশফুলের বাগান এবং পাশে যে সবজিগুলো চাষ করছে, সেগুলো বেশ সুন্দর লেগেছে। সেই সঙ্গে আবহওয়া খুব ভালো। গাছগাছালি আছে। পরিবেশটাও বেশ ভালো।

এ ছাড়া কারেন্টের বাজার এলাকায় বোয়াল চত্বর ও পলাশ বাজারে গোলচত্বর নির্মাণ করায় শহরের সৌন্দর্য বেড়ে গেছে কয়েক গুণ। সুন্দর এই ম্যুরাল দুটি দেখতে স্থানীয়রা ছাড়াও ভিড় করছেন আশপাশের জেলার মানুষ।

তারা জানিয়েছেন, হাওরের ওপর একটি ব্রিজ তৈরি করায় বেশ মনোরম পরিবেশ সৃষ্টি হয়েছে। হাওরের পরিপূর্ণ সৌন্দর্য আমরা উপভোগ করছি।

পর্যটন ব্যবসাকে এগিয়ে নিতে পর্যটনকেন্দ্রগুলো সম্প্রসারণসহ নানামুখী উদ্যোগের কথা জানালেন সুনামগঞ্জ বিশ্বম্ভরপুরের উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা সাদি উর রহিম জাদিদ। তিনি বলেছেন, হাওর বিলাশের পাশে একটি ক্যাফে করা হয়েছে। আরও ‍কিছু চত্বর আমরা করেছি। আরও কয়েকটা জায়গায় আমরা বসার ব্যবস্থা করেছি।

সুনামগঞ্জ জেলা সদর থেকে বিশ্বম্ভরপুর ২০ কিলোমিটার দূরে সীমান্তঘেঁষা একটি উপজেলা।

00:00
-01:38
Share: