যশোর বোর্ডের চেয়ারম্যানসহ ৫ জনের বিরুদ্ধে দুদকের মামলা

প্রেস ওয়াচ রিপোর্টঃ

চেক জালিয়াতির মাধ্যমে আড়াই কোটি টাকা আত্মসাতের ঘটনায় যশোর শিক্ষা বোর্ডের চেয়ারম্যান, সচিব, হিসাব সহকারীসহ পাঁচজনের নামে মামলা করেছে দুদক।

সোমবার (১৮ অক্টোবর) বিকেল ৫টার দিকে দুদক যশোরের সহকারী পরিচালক মাহফুজ ইকবাল বাদী হয়ে এ মামলা করেছেন।


দুদক যশোরের উপ-পরিচালক মো. নাজমুচ্ছায়াদাত বিষয়টি নিশ্চিত করে জানিয়েছেন প্রাথমিক তদন্তে অভিযোগের সত্যতা মিলেছে।

জানা গেছে, চলতি অর্থবছরে যশোর শিক্ষা বোর্ড সরকারি কোষাগারে জমার জন্য আয়কর ও ভ্যাট বাবদ ১০ হাজার ৩৬ টাকার ৯টি চেক ইস্যু করে। এ ৯টি চেক জালিয়াতি করে ভেনাস প্রিন্টিং অ্যান্ড প্যাকেজিংয়ের নামে ১ কোটি ৮৯ লাখ ১২ হাজার ১০টাকা এবং শাহী লাল স্টোরের নামে ৬১ লাখ ৩২ হাজার টাকা উত্তোলন করে আত্মসাৎ করা হয়। সরকারি বন্ধ থাকার কারণে ঘটনা প্রকাশ্যে আসার দুইদিন পর ১০ অক্টোবর বোর্ডের সচিব এএমএইচ আলী আর রেজা দুদক কার্যালয়ে গিয়ে টাকা আত্মসাতের ঘটনায় অভিযোগ দাখিল করেন।

এরপর ওই দিন বেলা ১২টার দিকে দুদক কর্মকর্তারা বোর্ডে গিয়ে তদন্ত শুরু করে। প্রাথমিক তদন্তে অভিযোগের সত্যতা মেলায় দুদক প্রধান কার্যালয়ের অনুমোদন পেয়ে সোমবার বোর্ডের চেয়ারম্যান ড. মোল্লা আমির হোসেন, সচিব এ এম এইচ আলী আর রেজা, হিসাব সহকারী আব্দুস সালাম, ভেনাস প্রিন্টিং অ্যান্ড প্যাকেজিংয়ের মালিক শরিফুল ইসলাম বাবু ও শাহী লাল স্টোরের মালিক আশরাফুল আলমের বিরুদ্ধে দুর্নীতি দমন আইনে মামলা করা হয়।

অভিযোগে উল্লেখ করা হয়েছে, অসৎ উদ্দেশে অবৈধভাবে লাভবান হওয়ার মানসে দুর্নীতি, প্রতারণা ও ক্ষমতার অপব্যবহারপূর্বক শিক্ষা বোর্ডের সচিব অধ্যাপক এ এম এইচ আলী আর রেজা, চেয়ারম্যান অধ্যাপক ড. মোল্লা আমীর হোসেন, আইডি নং- ৬০৬৯ চেকে স্বাক্ষর করেন এবং অন্যদের সঙ্গে যোগসাজোশে টাকা আত্মসাৎ করেন।

দুদক যশোরের উপ-পরিচালক মো. নাজমুচ্ছায়াদাত বলেন, প্রাথমিক তদন্তে অভিযোগের সত্যতা মেলায় সোমবার মামলা করা হয়েছে। এরপর পূর্ণাঙ্গ তদন্ত শেষে আসামিদের বিরুদ্ধে আদালতে চার্জশিট দাখিল করা হ
Share: