Main Menu

যুবলীগের কমিটিতে নতুন মুখ,কমিটিতে ব্যারিস্টার সুমন ও নিক্সন চৌধুরী

মাহবুব বাশার  ঃ যুবলীগের এবারের পূর্ণাঙ্গ কমিটিতে এসেছে বেশকিছু নতুন মুখ। তাদের মধ্যে সাবেক ছাত্রনেতা এবং আইনজীবীর সংখ্যা বেশি। রয়েছেন অন্যান্য পেশাজীবীরাও। তাদের মধ্যে উল্লেখযোগ্য সংখ্যক সাংবাদিকও রয়েছেন। তবে, সংগঠনটির আগের কমিটিতে থাকা অনেক নেতা বাদ পড়েছেন।

নতুন এসেছেন যারা
প্রেসিডিয়ামে পদ পাওয়া অন্তত পাঁচ জন যুবলীগে এবার প্রথমবারের মতো নেতা হয়েছেন। এদের মধ্যে রয়েছেন মুজিবুর রহমান নিক্সন এবং শেখ সোহেল উদ্দিন, জুয়েল আরেং এমপি, আবুল কালাম আজাদ চৌধুরী এমপি, ব্যারিস্টার সেলিম আলতাফ জর্জ এমপি।

কমিটিতে প্রথমবার স্থান পাওয়া সাবেক ছাত্রনেতারা হলেন সাংগঠনিক সম্পাদক সাইফুর রহমান সোহাগ, প্রচার সম্পাদক জয়দেব নন্দী, উপ-সম্পাদক হিসেবে মনোয়ারুল ইসলাম মাসুদ, শামসুল কবীর রাহাত, আব্দুল আজিজ, আদিত্য নন্দী, দেলোয়ার শাহজাদা প্রমুখ।

আইনজীবী সৈয়দ সাইদুল হক সুমন আইন সম্পাদক পদের মাধ্যমে প্রথমবারের মতো যুবলীগের কমিটিতে জায়গা পেয়েছেন। দফতর সম্পাদক মোস্তাফিজুর রহমান মাসুদ, অর্থ সম্পাদক শাহাদৎ হোসেন, গ্রন্থনা ও প্রকাশনা সম্পাদক জহিরুল ইসলাম মিল্টন, আন্তর্জাতিক সম্পাদক কাজী সরওয়ার হোসেন, বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি সম্পাদক ইঞ্জিনিয়ার শামীম খান, সাংস্কৃতিক সম্পাদক বিপ্লব মুস্তাফিজ প্রমুখ প্রথমবারের মতো যুবলীগে পদ পেয়েছেন।

কেন্দ্রীয় কমিটিতে না হলেও যুবলীগের এবারের জাতীয় কমিটিতে সদস্য হয়েছেন কমপক্ষে ছয় জন সাংবাদিক। ঘোষিত কমিটিতে ২১ জনকে বিষয়ভিত্তিক সম্পাদক ও ২১ জনকে উপসম্পাদক পদ দেওয়া হয়েছে। ৪১ জনকে দেওয়া হয়েছে সহ-সম্পাদকের পদ, ৭৫ জন রয়েছেন নির্বাহী সদস্য।

বাদ পড়লেন যারা
বাদ পড়াদের মধ্যে উল্লেখযোগ্যরা হলেন সাবেক প্রেসিডিয়াম সদস্য আতাউর রহমান আতা, বেলাল হোসেন, আনোয়ার হোসেন, সাবেক যুগ্ম সম্পাদক মহিউদ্দিন আহমেদ মহি ও নাসরিন জাহান শেফালী, সাবেক সাংগঠনিক সম্পাদক ফজলুল হক আতিক, ফারুক হাসান তুহিন, সাবেক উপ-গ্রন্থনা সম্পাদক ইকবাল মাহমুদ বাবলু, সাবেক উপ-মহিলা সম্পাদক জাকিয়া সুলতানা শেফালী, সাবেক সহ-সম্পাদক তারিক হাসান, সাবেক সদস্য মনিরুল ইসলাম হাওলাদার মনির প্রমুখ।

এর আগে, গত বছর অনুষ্ঠিত সপ্তম কংগ্রেসে শেখ ফজলে শামস পরশকে যুবলীগের চেয়ারম্যান ও মাইনুল ইসলাম খান নিখিলকে সাধারণ সম্পাদকের পদ দেওয়া হয়। শনিবার (১৪ নভেম্বর) বিকালে তারা পূর্ণাঙ্গ কমিটির তালিকা নিয়ে আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ওবায়দুল কাদেরের সঙ্গে দেখা করেন। ওবায়দুল কাদের তাদের পূর্ণাঙ্গ কমিটির এই প্রস্তাব গ্রহণ করে কমিটি অনুমোদন দেন।

আওয়ামী যুবলীগের ২০১ সদস্য বিশিষ্ট পূর্ণাঙ্গ কমিটি অনুমোদন দিয়েছেন আওয়ামী লীগের সভাপতি শেখ হাসিনা। শনিবার (১৪ নভেম্বর) আওয়ামী লীগ সভাপতি শেখ হাসিনার ধানমন্ডি রাজনৈতিক কার্যালয় থেকে পূর্ণাঙ্গ কমিটির তালিকা গ্রহণ করেছেন সংগঠনটির নেতারা।
অনুমোদন পাওয়া কমিটিতে সভাপতিমণ্ডলীর সদস্য হিসেবে আছেন মুজিবুর রহমান চৌধুরী নিক্সন এমপি। ২০১৪ সালে স্বতন্ত্র থেকে প্রার্থী হয়ে ফরিদপুর-৪ আসনের সংসদ সদস্য হিসেবে নির্বাচিত হয়েছিলেন মজিবুর রহমান চৌধুরী নিক্সন। সর্বশেষ ২০১৮ সালের নির্বাচনেও স্বতন্ত্র থেকে প্রার্থী হয়ে সংসদ সদস্য নির্বাচিত হন তিনি।
অন্যদিকে আইন বিষয়ক সম্পাদক হিসেবে কমিটিতে আছেন ব্যারিস্টার সৈয়দ সাইদুল হক সুমন। ব্যারিস্টার সৈয়দ সায়েদুল হক সুমন সামাজিক নানা সমস্যা নিয়ে ফেসবুক লাইভ করে আলোচিত। ফেসবুকে বিভিন্ন সামাজিক সমস্যা নিয়ে সরব থাকেন তিনি।

আওয়ামী লীগের সহযোগী সংগঠন যুবলীগের ২০১ সদস্য বিশিষ্ট পূর্ণাঙ্গ কমিটি ঘোষণা করা হয়েছে। কমিটি অনুমোদন দিয়েছেন আওয়ামী লীগের সভাপতি শেখ হাসিনা। শনিবার (১৪ নভেম্বর) আওয়ামী লীগ সভাপতি শেখ হাসিনার ধানমন্ডি রাজনৈতিক কার্যালয় থেকে পূর্ণাঙ্গ কমিটির তালিকা গ্রহণ করেছে সংগঠনটির নেতারা। দলটির সংশ্লিষ্ট সূত্রে এ তথ্য জানা গেছে।

যুবলীগের নতুন কমিটিতে স্থান পেলেন যারা

অনুমোদন পাওয়া কমিটিতে সংগঠনটির প্রেসিডিয়াম সদস্য হিসেবে দায়িত্ব পেয়েছেন ফরিদপুর-৪ আসনের সংসদ সদস্য মজিবুর রহমান চৌধুরী নিক্সন।

নতুন কমিটিতে সভাপতিমণ্ডলীর সদস্য করা হয়েছে অ্যাডভোকেট মামুনুর রশীদ, মনজুর আলম শাহীন, আবু আহমেদ নাসিম পাভেল, শেখ সোহেল উদ্দিন, ডা. খালেদ শওকত আলী, শেখ ফজলে ফাহিম, মুজিবুর রহমান চৌধুরী নিক্সন এমপি, ইঞ্জিনিয়ার মৃনাল কান্তি জোয়ার্দার, তাজউদ্দিন আহমেদ, জুয়েল আরেং, মো. জসিম, মো, আনোয়ার হোসেন ও এন শাহাদাত হোসনে তাসলিমকে।

যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক: মশিউর রহমান বাদশা, সুব্রত পাল, মো. বদিউল আলম, ব্যারিস্টার শেখ ফজলে নাঈম ও মো. রফিকুল আলম জোয়াদার।

সাংগঠনিক সম্পাদক: কাজী মো. মাজহারুল ইসলাম, ডা. হেলাল উদ্দিন, মো. সাইফুর রহমান সোহাগ, মো. জহির উদ্দিন খসরু, মো. সোহেল পারভেজ, আবু মুনির মো. শহিদুল হক রাসেল, মশিউর রহমান চপল, অ্যাডভোকেট মো. শামীম আল সাইফুল সোহাগ ও প্রফেসর ড. মো. রেজাউল কবির।

প্রচার সম্পাদক জয়দেব নন্দী, দফতর সম্পাদক মো. মোস্তাফিজুর রহমান মাসুদ, গ্রন্থনা ও প্রকাশনা সম্পাদক মো. জহিরুল ইসলাম মিল্টন, অর্থবিষয়ক সম্পাদক মো. শাহদাত হোসেন, শিক্ষা প্রশিক্ষণ ও পাঠাগারবিষয়ক সম্পাদক ব্যারিস্টার আলী আসিফ খান রাজিব, আইনবিষয়ক সম্পাদক ব্যারিস্টার সৈয়দ সাইদুল হক সুমন, আন্তজাতিকবিষয়ক সম্পাদক কাজী সরোয়ার হোসেন, ত্রাণ ও সমাজকল্যাণবিষয়ক মো. সাদ্দাম হোসেন পাভেল, বিজ্ঞান ও প্রযুক্তিবিষয়ক সম্পাদক ইঞ্জিনিয়ার মো. শামীম খান, তথ্য ও যোগাযোগ (আইটি)-বিষয়ক সম্পাদক মো. শামসুল আলম অনিক, সাংস্কৃতিক সম্পাদক বিপ্লব মুস্তাফিজ, স্বাস্থ্য ও জনসংখ্যাবিষয়ক সম্পাদক ডা. মো. ফরিদ রায়হান, তথ্য ও গবেষণাবিষয়ক সম্পাদক মীর মো. মহিউদ্দিন।

জনশক্তি ও কর্মসংস্থানবিষয়ক সম্পাদক শাহীন মালুম, ক্রীড়াবিষয়ক সম্পাদক মো. নিজামউদ্দিন চৌধুরী পারভেজ, পরিবেশবিষয়ক সম্পাদক মো. হ্যারিস মিয়া শেষ সাগর, শিল্প ও বাণিজ্যবিষয়ক সম্পাদক মো. আব্দুল হাই, কৃষি ও সমবায়বিষয়ক সম্পাদক অ্যাডভোকেট মো. হেমায়েত উদ্দিন মোল্লা, মুক্তিযোদ্ধাবিষয়ক সম্পাদক মো. আব্দুল মুকিত চৌধুরী, ধর্মবিষয়ক সম্পাদক মাওলানা খলিলুর রহমান সরদার, মহিলাবিষয়ক সম্পাদক অ্যাডভোকেট মুক্তা আক্তার, উপ-প্রচার ও প্রকাশনা সম্পাদক আদিত্য নন্দী, উপ-দফতর সম্পাদক মো. দেলোয়ার হোসেন সাহজাদা, উপ-গ্রন্থনা ও প্রকাশনা সম্পাদক অ্যাডভোকেট শেখ নবীরুজ্জামান বাবু, উপ-অর্থবিষয়ক সম্পাদক শরীফুল ইসলাম।

উপ-শিক্ষা প্রশিক্ষণ ও পাঠাগারবিষয়ক সম্পাদক কাজী খালিদ আল মাহমুদ টুকু, উপ-আইন বিষয়ক সম্পাদক অ্যাডভোকেট মো. এনামুল হোসেন সুমন, উপ-আন্তজাতিকবিষয়ক সম্পাদক মো. সায়েদ আশফাক আকন্দ তুহিন, উপ-ত্রাণ ও সমাজকল্যাণবিষয়ক মো.আলতাফ হোসেন, উপ-বিজ্ঞান ও প্রযুক্তিবিষয়ক সম্পাদক মো. রাশেদুল হাসান সুপ্ত, উপ-তথ্য ও যোগাযোগ (আইটি) বিষয়ক সম্পাদক এন আই আহমেদ সৈকত, উপ-সাংস্কৃতিক সম্পাদক ফজলে রাব্বী স্বরণ।

উপ-স্বাস্থ্য ও জনসংখ্যাবিষয়ক সম্পাদক ডা. মাহফুজুর রহমান উজ্জল, উপ-তথ্য ও গবেষণাবিষয়ক সম্পাদক শেখ মো. মিছির আলী, উপ-জনশক্তি ও কর্মসংস্থানবিষয়ক সম্পাদক শামসুল কবির রাহাত, উপ-ক্রীড়াবিষয়ক সম্পাদক মো. আব্দুর রহিম, উপ-পরিবেশবিষয়ক সম্পাদক সামসুল ইসলাম পাটোয়ারী, উপ-শিল্প ও বাণিজ্যবিষয়ক সম্পাদক মো. ফিরোজ আল-আমিন, উপ-কৃষি ও সমবায়বিষয়ক সম্পাদক মোল্লা রওমন জামির রানা, উপ-মুক্তিযোদ্ধাবিষয়ক সম্পাদক মো. গোলাম কিবরিয়া শামীম, উপ-ধর্মবিষয়ক সম্পাদক হরে কৃষ্ণ বৈদা, উপ-মহিলাবিষয়ক সম্পাদক সৈয়দা সানজিদা শারমীন।

সহ-সম্পাদক যারা হলেন: মো. সাইফুল আলম সাইফুল, সাইফুল ইসলাম শাহীন পাটোয়ারী, মো. বেলাল হোসেন ফিরোজ, আবির মাহমুদ ইমরান, তোফাজ্জল হোসেন, মো.আতাউর রহমান উজ্জল, মো. মামুন আজাদ, মির্জা মো. নাসিউল আলম শুভ, মো. রাজু আহমেদ, গোলাম ফেরদৌস ইব্রাহীম, মো. মাইনুল ইসলাম, ব্যারিস্টার আরাফাত হোসেন খান, মো. আলামিনুল হক আলামিন, জামিল আহমেদ, মো. আব্দুল রহমান জীবন, নাজমুল হুদা ওয়ারেসি চণ্ডল, মো. আরিফুল ইসলাম, মো. আজিজুল রহমান সরকার, সামিউল আমিন, মো. আলমগীর হোসেন শাহ জয়, মো. কামরুল হাসান লিংকন, রাজীব আহমেদ তালুকদার, মো. বাবলুর রহমান বাবলু, এ কে এম মুক্তাদির রহমান শিমুল, হিমেলুর রহমান হিমেল, আগতাসামুল হাসান ভূইয়া রুমি, মো. রাশেদুল ইসলাম সাফিন, মো. মনোয়ারুল ইসলাম মাসুদ, মো. রায়হান রুবেল, সাইফুল ইসলাম সাইফ, ইঞ্জিনিয়ার মো. কামর’জ্জামান, মো. মনিরুজ্জামান পিন্টু, মো. মনিরুল ইসলাম আকাশ, জিএম ওয়াহেদ পারভেজ, মো. জয়নাল আবেদীন চৌধুরী, ডা. মো. মনজুর’ল ইসলাম ভূইয়া রাফি, মো. নাসির উদ্দিন মিন্টু, মশিউর রহমান মহারাজ ও এ কে এম মহিউদ্দিন খোকা মজুমদার।প্রেসওয়াচ।






Related News