Tuesday, August 11th, 2020

now browsing by day

 
Posted by: | Posted on: August 11, 2020

ওএমএসে প্রথমবারের মতো মাইক্রোনিউট্রিয়েন্ট সমৃদ্ধ চাল দিচ্ছে বাংলাদেশ

ওপেন মার্কেট সেল (ওএমএস) কর্মসূচির মাধ্যমে বাংলাদেশ সরকার দীর্ঘদিন ধরে ভর্তুকি দিয়ে নিম্ন-আয়ের লাখ লাখ মানুষকে চাল সরবরাহ করে আসছে।
যাই হোক সোমবার ওএমএস কার্যক্রমের ইতিহাসে প্রথমবারের মতো বাংলাদেশ একটি কর্মসূচি চালু করেছে। এ কর্মসূচির আওতায় হাজার হাজার দরিদ্র পরিবার ছয়টি গুরুত্বপূর্ণ মাইক্রোনেট্রিয়েন্টস ভিটামিন এ, ভিটামিন বি ১, ভিটামিন বি ১২, ফলিক এসিড, আয়রন ও দস্তায় সমৃদ্ধ স্বল্প মূল্যের চালের সরবরাহ পাবে।

ফর্টিফাইড রাইস বা পুষ্টিসমৃদ্ধ এ চাল সাধারণ চালের সঙ্গে ১:১০০ অনুপাতে মেশানো হয়।

নিয়মিত ওএমএস হচ্ছে সরকারের একটি খাদ্য বিতরণ কর্মসূচি, যা বাজার মূল্য স্থিতিশীল করতে এবং স্বল্প আয়ের জনগোষ্ঠীকে সহায়তা করার জন্য যখন বছরজুড়ে ভর্তুকি মূল্যে চাল বিক্রি করে।

অন্যদিকে, নতুন উদ্যোগের আওতায় তাৎক্ষণিক ব্যবহারের উপযোগী চাল সরবরাহ করা হবে। এটি ব্যাপক আকারে মাইক্রোনিউট্রিয়েন্ট-এর ঘাটতি মোকাবিলায় সহায়তা করবে।

সুরক্ষিত এই চালগুলো দেখতে সাধারণ ভাতের মতো। এর রন্ধনপ্রণালী ও স্বাদও একই রকম। তবে এটি ছয়টি প্রয়োজনীয় ভিটামিন ও খনিজসমৃদ্ধ। জনসংখ্যার যে দরিদ্র অংশটি মাছ, মাংস, ফলমূল ও অন্যান্য খাবারের সংস্থান করতে না পারায় অপুষ্টিতে ভোগে এটি মূলত তাদের জন্য।

ভিটামিন ও খনিজ ঘাটতিকে বিশ্বব্যাপী সাত শতাংশ রোগের কারণ হিসেবে বিবেচনা করা হয়। উন্নয়নশীল দেশগুলোতে নানা রোগে আক্রান্ত হয়ে মৃত্যুর শীর্ষ ১০টি কারণের মধ্যে আয়রন, ভিটামিন এ এবং জিঙ্কের ঘাটতির মতো কারণগুলোও রয়েছে।

বিশ্ব খাদ্য কর্মসূচির (ডব্লিউএফপি) কর্মকর্তারা সোমবার ঢাকা ট্রিবিউনকে জানিয়েছেন, খাদ্য মন্ত্রণালয় এবং জাতিসংঘের ডব্লিউএফপি আনুষ্ঠানিকভাবে ওএমএসে উৎকৃষ্ট মানের এ চাল অন্তর্ভুক্ত করেছে।

প্রকল্পের আওতায় এই চালের দাম বাজার দরের চেয়ে কম নির্ধারণ করা হয়েছে। স্বল্প আয়ের পরিবারগুলো দৈনিক সর্বোচ্চ ৫ কেজি করে চাল সংগ্রহ করতে পারবে। কেজি প্রতি দাম ধরা হয়েছে ৩০ টাকা করে। এর আওতায় প্রতিটি পরিবার মাসে গড়ে ২০ কেজি চাল কিনতে সমর্থ হবে। এক লাখ ৪৪ হাজার পরিবারের প্রায় সাত লাখ ২০ হাজার মানুষ এই ওএমএস থেকে উপকৃত হবে।

সোমবার থেকে ঢাকা উত্তর ও ঢাকা দক্ষিণ সিটি কর্পোরেশন এলাকায় ১২০টি কেন্দ্রে সপ্তাহে ছয় দিন বাছাইকৃত এ চাল বিক্রি করা হবে। বাছাইকৃত দোকানগুলোতে সকাল ৯টা থেকে বিকেল ৫টা পর্যন্ত এ চাল পাওয়া যাবে।

বিশ্ব খাদ্য কর্মসূচির কর্মকর্তারা ঢাকা ট্রিবিউনকে বলেছেন যে, জাতিসংঘের সংস্থাটি ওএমএস কর্মসূচির মাধ্যমে ফর্টিফাইড রাইস বা পুষ্টিসমৃদ্ধ এ চালের বিতরণ নিশ্চিত করতে আগ্রহী। এটি খাদ্য নিরাপত্তার ঝুঁকিতে থাকা এবং খাদ্যতালিকায় পুষ্টির অভাব রয়েছে এমন দুর্বল পরিবারগুলোকে প্রয়োজনীয় পুষ্টির যোগান দেবে।

বিশ্ব খাদ্য কর্মসূচির কান্ট্রি রিপ্রেজেন্টেটিভ রিচার্ড রাগান বলেন, ‘খাদ্য নিরাপত্তাহীনতা দরিদ্রদের, বিশেষত দ্রুত নগরায়ণকরণের অঞ্চলে বসবাসকারীদের ওপর দীর্ঘস্থায়ী প্রভাব ফেলেছে। বৈচিত্র্যময় এবং পুষ্টিকর খাবারের অভাব বাংলাদেশে মাইক্রোনিউট্রিয়েন্টের ঘাটতি এবং অপুষ্টির অন্যতম প্রধান কারণ।’

খাদ্য বিভাগ ও বিশ্ব খাদ্য কর্মসূচির সূত্রগুলো নিশ্চিত করেছে যে, তারা অক্টোবরের শেষ নাগাদ ঢাকায় ওএমএসের অধীনে চাল বিতরণ  কর্মসূচি অব্যাহত রাখবে। প্রয়োজনে বর্তমান মহামারি পরিস্থিতি বিবেচনায় এই কর্মসূচি অক্টোবর পরও আরও বাড়ানোর প্রস্তুতি রয়েছে।

খাদ্য অধিদফতরের মহাপরিচালক সরোয়ার মাহমুদ, বিশ্ব খাদ্য কর্মসূচির বাংলাদেশ প্রতিনিধি রিচার্ড রাগান ও ঢাকা রেশনিংয়ের চিফ কন্ট্রোলার মো. জাহাঙ্গীর আলম সোমবার (১০ আগস্ট) ঢাকার মোহাম্মদপুরের চাঁদ উদ্যানে এ কর্মসূচির উদ্বোধন করেন।

নিউট্রিশন ইন্টারন্যাশনাল (এনআই) এবং গ্লোবাল অ্যালায়েন্স ফর ইম্প্রুভড নিউট্রিশন (জিএআইএন) এই কর্মসূচিতে পুষ্টিসমৃদ্ধ এ চাল ব্যবহারের প্রতি সমর্থন জানিয়েছে।

সরকারের খাদ্য বিভাগের মহাপরিচালক সরোয়ার মাহমুদ বলেন, কোভিড-১৯ সংকটের মধ্যে নিম্ন আয়ের পরিবারগুলোকে খাবারের বৈচিত্র্য নিয়ে আপস করতে হচ্ছে। ফর্টিফাইড রাইস বা পুষ্টিসমৃদ্ধ এ চাল তাদের প্রয়োজনীয় ভিটামিন ও খনিজের যোগান দেবে।

তিনি বলেন, শহুরে স্বল্প আয়ের সুবিধাবঞ্চিত দরিদ্র জনগোষ্ঠীর পুষ্টির ঘাটতি মোকাবিলায় তাদের কাছে পুষ্টিকর খাদ্য সহায়তা পৌঁছাতে এটি একটি সাশ্রয়ী উদ্যোগ।

প্রথম চালু হয় ২০১৩ সালে

মাইক্রোনিউট্রিয়েন্ট সমৃদ্ধ পুষ্টিকর এ ধান ২০১৩ সালের জুলাইয়ে বাংলাদেশে প্রথমবারের মতো কুড়িগ্রামে চালু হয়েছিল। ওই উদ্যোগ ছিল মূলত পরীক্ষামূলক।

পুষ্টি চাল নামে পরিচিত এই চালটিতে ভিটামিন এ, বি ১ এবং বি ১২ এবং ফলিক অ্যাসিড, আয়রন ও দস্তার মতো উপাদান রয়েছে।

জাতিসংঘের ওয়ার্ল্ড ফুড প্রোগ্রাম (ডব্লিউএফপি) এর সঙ্গে দুর্যোগ ব্যবস্থাপনা ও ত্রাণ মন্ত্রণালয় এবং মহিলা ও শিশু বিষয়ক মন্ত্রণালয়ের চুক্তি রয়েছে। এতে দুইটি সামাজিক সুরক্ষা কর্মসূচিতে গ্রহণযোগ্যতার পরীক্ষার জন্য বাংলাদেশে এ চাল চালুর বিষয়টি উল্লেখ রয়েছে। ওই দুই সামাজিক সুরক্ষা কর্মসূচি হচ্ছে ভালনারেবল গ্রুপ ফিডিং (ভিজিএফ) এবং ভালনারেবল গ্রুপ ডেভলপমেন্ট (ভিজিডি)।

এই পরীক্ষামূলক কর্মসূচির আওতায় কুড়িগ্রামের তিন হাজার পরিবারের অতি-দরিদ্র নারীদের প্রথমে এ চাল সরবরাহ করা হয়েছিল। পরে সাতক্ষীরায় আরও ছয় হাজার পরিবার ভিজিডি এবং ভিজিএফ কর্মসূচির আওতায় তাদের মাসিক খাদ্য স্থানান্তরের অংশ হিসাবে এ চাল পেয়েছিল।

সাধারণ চালে মাইক্রোনিউট্রিয়েন্টে কম থাকে। এটি মূলত শর্করার উৎস। তবে পুষ্টি চাল বিশেষ করে ক্ষুধা লুকানো মানুষের পুষ্টিবর্ধনের জন্য একটি বড় সুযোগ। কেননা, এ ধরনের লোকজনের শরীরে মাইক্রোনিউট্রিয়েন্ট (ভিটামিন ও খনিজ)-এর ঘাটতি তৈরি হয়।

কর্মকর্তারা বলছেন, এ ধরনের লোকজন প্রায়ই পর্যাপ্ত পরিমাণ ক্যালোরি খেয়ে থাকেন। তবে তাদের প্রাথমিক ডায়েটগুলো তাদের মানসিক ও শারীরিক স্বাস্থ্যের জন্য প্রয়োজনীয় পর্যাপ্ত ভিটামিন ও খনিজ সরবরাহ করতে ব্যর্থ হয়।

বিশ্ব খাদ্য কর্মসূচির সঙ্গে অংশীদারিত্বের মাধ্যমে সুইস প্রতিষ্ঠান ডিএসএম নিউট্রিশনাল প্রোডাক্ট পুষ্টি চালের জন্য জাতিসংঘের সংস্থাটির কৌশলগত পদ্ধতিকে সমর্থন জানিয়েছিল। তারা বাংলাদেশ, কম্বোডিয়া ও ভিয়েতনামে সামাজিক সুরক্ষার নেটওয়ার্কগুলোতে এ চাল অন্তর্ভুক্ত করার প্রয়াসে যুক্ত হয়েছে।

ডাচ মাল্টিন্যাশনাল রয়্যাল ডিএসএম এনভি-এর সহযোগী ডিএসএম নিউট্রিশনাল প্রোডাক্টস, আরেকটি সুইস প্রতিষ্ঠান বুহলার-এর সঙ্গে মিলিত হয়ে ২০০৭ সালে নিয়মিত চালের সঙ্গে পুষ্টিকর চালের মিশ্রণের জন্য চীনে উক্সি নিউট্রি রাইস কোম্পানি লিমিটেড প্রতিষ্ঠা করেছিল।

Posted by: | Posted on: August 11, 2020

জন্মাষ্টমী উপলক্ষে স্বাস্থ্যবিধি মেনে চলছে পূজা-অর্চনা

যথাযথ ভাবগাম্ভীর্যের মধ্য দিয়ে জন্মাষ্টমী পালন করছেন সনাতন ধর্মালম্বীরা। শ্রীকৃষ্ণের শুভ জন্মতিথি উপলক্ষে মন্দিরে মন্দিরে মঙ্গলবার (১১ আগস্ট) সকাল থেকেই চলছে স্বাস্থ্যবিধি মেনে পূজা-অর্চনা। পূজা অর্চনার পাশাপাশি প্রতিবছর শোভাযাত্রা হয়ে থাকলেও করোনা সংক্রমণ রোধে এবার সেটি হচ্ছে না।

রামকৃষ্ণ মঠ এবং রামকৃষ্ণ মিশনের অধ্যক্ষ ও সম্পাদক স্বামী পূর্ণাতমানন্দজী মহারাজ বাংলা ট্রিবিউনকে বলেন, ‘কমপক্ষে পাঁচ হাজার বছর আগে ভগবান শ্রীকৃষ্ণের আবির্ভাব হয়েছে। তারপর থেকে তার বাণী, আদর্শ, ভাব সনাতন ধর্মে অত্যন্ত জনপ্রিয়তা লাভ করেছে। এই পাঁচ হাজার বছর ধরেই তিনি আমাদের সর্বশ্রেষ্ঠ অবতার বলে নন্দিত হয়েছেন।’

তিনি আরও বলেন, ‘করোনা দুর্যোগে আজকে পরিস্থিতি ভয়ঙ্কর। আমার মনে হয় না, স্মরণকালে এরকম পরিস্থিতির মধ্য দিয়ে মানুষকে যেতে হয়েছে। এতে সারাবিশ্ব এফেক্টেড হয়ে গিয়েছে। এজন্য সবার প্রতি আমাদের মানবিক আচরণ করতে হবে। সবার ভাবের প্রতি, মতের প্রতি, সম্প্রদায়ের প্রতি শ্রদ্ধাশীল হতে হবে।’

এই আয়োজন সম্পর্কে তিনি বলেন, ‘ঢাকার এই মঠ সব থেকে প্রাচীন। এখানে সকাল থেকে পূজা পাঠের মাধ্যমে উদযাপন করছি। সারা দেশেই পালিত হচ্ছে। রামকৃষ্ণ মঠে রাত ৯টায় কৃষ্ণ পূজার মাধ্যমে জন্মাষ্টমী শেষ হবে।’

সনাতন ধর্ম মতে, অধর্ম ও দুর্জনের বিনাশ করে ধর্ম ও সুজনের রক্ষায় কৃষ্ণ যুগে যুগে পৃথিবীতে আসেন। অপশক্তির হাত থেকে শুভশক্তিকে রক্ষার জন্য শ্রীকৃষ্ণ মথুরার অত্যাচারী রাজা কংসকে হত্যা করে মথুরায় শান্তি স্থাপন করেছিলেন। শ্রীকৃষ্ণের ভাব ও দর্শন যুগ যুগ ধরে সনাতন সমাজ ও সংস্কৃতিতে গভীরভাবে প্রোথিত। কৃষ্ণের প্রেমিকরূপের পরিচয় পাওয়া যায় তার বৃন্দাবন লীলায়, যা বৈষ্ণব সাহিত্যের মূল প্রেরণা।

Posted by: | Posted on: August 11, 2020

বঙ্গবন্ধুর হত্যা ছিল স্বাধীন বাংলাদেশকে হত্যার ষড়যন্ত্র: তথ্যমন্ত্রী

.

তথ্যমন্ত্রী ড. হাছান মাহমুদ (ছবি: ফোকাস বাংলা)

তথ্যমন্ত্রী ও আওয়ামী লীগের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক ড. হাছান মাহমুদ বলেছেন, ‘বঙ্গবন্ধু হত্যা ছিল সদ্য স্বাধীন বাংলাদেশ রাষ্ট্রকে হত্যার ষড়যন্ত্রের অংশ। যেসব দেশি-বিদেশি চক্র বাংলাদেশের স্বাধীনতা চায়নি, তারা ভেবেছিল, বাংলাদেশ কখনও স্বাধীন রাষ্ট্র হিসেবে মাথা তুলে দাঁড়াতে পারবে না। কিন্তু স্বাধীনতার পর মাত্র সাড়ে তিন বছরের মাথায় যখন বঙ্গবন্ধুর নেতৃত্বে একটি যুদ্ধবিধ্বস্ত দেশ তিন কোটি গৃহহারা মানুষকে পুনর্বাসন করে পোড়ামাটির ধ্বংসস্তূপ থেকে উঠে দাঁড়িয়ে, খাদ্যে স্বয়ংসম্পূর্ণ হয়ে ৭.৪ শতাংশ অর্থনৈতিক প্রবৃদ্ধি অর্জন করে সমৃদ্ধির পথে এগোতে শুরু করলো, তখন সেই সদ্য স্বাধীন রাষ্ট্রকে হত্যার ষড়যন্ত্রের অংশ হিসেবে নির্মমভাবে বঙ্গবন্ধু ও তার পরিবারের সদস্যদের হত্যা করা হয়।

মঙ্গলবার (১১ আগস্ট) দুপুরে রাজধানীর কাকরাইলে ‘জাতীয় শোক দিবস ২০২০’ উপলক্ষে ইনস্টিটিউশন অব ডিপ্লোমা ইঞ্জিনিয়ার্স, বাংলাদেশ-আইডিইবি আয়োজিত আলোচনা সভায় প্রধান অতিথির বক্তৃতায় তিনি এসব কথা বলেন। তথ্যমন্ত্রী এসময় ১৯৭৫ সালের ১৫ আগস্ট ঘাতকদের হাতে শহীদ জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু ও তার পরিবারের সব সদস্য, শহীদ জাতীয় চার নেতা ও মুক্তিযুদ্ধের সব শহীদের প্রতি গভীর শ্রদ্ধা নিবেদন করে তাদের আত্মার শান্তি কামনা করেন। এদিন জন্মাষ্টমী উপলক্ষে সনাতন ধর্মের সবাইকে শুভেচ্ছা জানান তিনি।

Posted by: | Posted on: August 11, 2020

অস্ত্রোপচারের পরও প্রণব মুখোপাধ্যায়ের অবস্থা সংকটজনক

মস্তিষ্কে অস্ত্রোপচারের পরও করোনাভাইরাসে আক্রান্ত ভারতের সাবেক রাষ্ট্রপতি প্রণব মুখোপাধ্যায়ের অবস্থা সংকটজনক রয়ে গেছে। মঙ্গলবার (১১ আগস্ট) বিকেলে দিল্লির আর্মি হসপিটাল রিসার্চ অ্যান্ড রেফারেল-এর এক বিবৃতিতে জানিয়েছে ৮৪ বছর বয়স্ক এই কংগ্রেস নেতাকে এখনও ভেন্টিলেটর সাপোর্টে রাখা হয়েছে। সোমবার রাতে এই হাসপাতালেই অস্ত্রোপচারের মাধ্যমে তার মস্তিষ্ক থেকে জমাটবাধা তরল অপসারণ করা হয়। সম্প্রচারমাধ্যম এনডিটিভির প্রতিবেদন থেকে এসব তথ্য জানা গেছে।

অস্ত্রোপচারের পরও প্রণব মুখোপাধ্যায়ের অবস্থা সংকটজনক

বিদেশ ডেস্ক
প্রকাশিত : ১৬:৫২, আগস্ট ১১, ২০২০ | সর্বশেষ আপডেট : ১৬:৫২, আগস্ট ১১, ২০২০

মস্তিষ্কে অস্ত্রোপচারের পরও করোনাভাইরাসে আক্রান্ত ভারতের সাবেক রাষ্ট্রপতি প্রণব মুখোপাধ্যায়ের অবস্থা সংকটজনক রয়ে গেছে। মঙ্গলবার (১১ আগস্ট) বিকেলে দিল্লির আর্মি হসপিটাল রিসার্চ অ্যান্ড রেফারেল-এর এক বিবৃতিতে জানিয়েছে ৮৪ বছর বয়স্ক এই কংগ্রেস নেতাকে এখনও ভেন্টিলেটর সাপোর্টে রাখা হয়েছে। সোমবার রাতে এই হাসপাতালেই অস্ত্রোপচারের মাধ্যমে তার মস্তিষ্ক থেকে জমাটবাধা তরল অপসারণ করা হয়। সম্প্রচারমাধ্যম এনডিটিভির প্রতিবেদন থেকে এসব তথ্য জানা গেছে।.

ভারতের সাবেক রাষ্ট্রপতি প্রণব মুখোপাধ্যায়

২০১২ সাল থেকে ২০১৭ সাল পর্যন্ত ভারতের রাষ্ট্রপতির দায়িত্ব পালন করেছেন প্রণব মুখোপাধ্যায়। সোমবার সকালে করোনাভাইরাসে আক্রান্ত হওয়ার তথ্য নিজেই প্রকাশ করেন তিনি। টুইট বার্তায় জানান,অন্য চিকিৎসা নিতে হাসপাতালে গেলে তার করোনা পরীক্ষা করা হয়। এতে তার শরীরে এ ভাইরাস শনাক্ত হয়। পরে রাতে জানা যায় মস্তিষ্কে অস্ত্রোপচার করা হয়েছে তার।

মঙ্গলবার বিকেলে হাসপাতালের এক বুলেটিনে জানানো হয়, ‘সোমবার গুরুতর অবস্থায় সাবেক রাষ্ট্রপতি প্রণব মুখার্জিকে দিল্লি সেনানিবাসের আর্মি হাসপাতালে আনা হয়। পরীক্ষায় তার মস্তিষ্কে জমাটবাধা তরল শনাক্ত হলে তাকে জীবনরক্ষাকারী অস্ত্রোপচারের মধ্য দিয়ে যেতে হয়। অস্ত্রোপচারের পরও তিনি ভেন্টিলেটর সাপোর্টে গুরুতর অবস্থায় রয়েছেন। তার শরীরে করোনাভাইরাসও রয়েছে।’
এদিকে প্রণব মুখোপাধ্যায়ের আরোগ্য কামনা করে শুভেচ্ছা পাঠানো অব্যাহত রয়েছে। মঙ্গলবার বিজেপি মুখপাত্র গোপাল কৃষ্ণ আগরওয়াল টুইট বার্তায় লিখেছেন, ‘পুরো দেশ আপনার সুস্বাস্থ্য এবং দীর্ঘ জীবন প্রার্থনা করছে প্রণব দা।’ ভারতের ভাইস প্রেসিডেন্ট ভেঙ্কাইয়া নাইডুর কার্যালয়ের এক বার্তায় জানানো হয়েছে, প্রণব মুখোপাধ্যায়ের মেয়ে শর্মীষ্ঠা মুখার্জির সঙ্গে কথা বলেছেন ভারতীয় ভাইস প্রেসিডেন্ট। তিনি তার দ্রুত আরোগ্য ও সুস্বাস্থ্যও কামনা করেন।

Posted by: | Posted on: August 11, 2020

জয়পুরহাটে পুলিশের ভয়ে মাস্ক নিয়ে ঘোরেন লোকজনন

জয়পুরহাট জেলা শহরে মানুষের মধ্যে স্বাস্থ্যবিধি মেনে চলার কিছুটা প্রবণতা লক্ষ্য করা গেলেও উপজেলা শহরসহ হাট-বাজার গুলোতে স্বাস্থ্যবিধিতো দূরের কথা, মাস্কও পরছেন না কেউ। মঙ্গলবার (১১ আগস্ট) সকাল ৯টায় জয়পুরহাট শহরের জনবহুল পাঁচুরমোড় এলাকায় দেখা যায়, অনেকের মুখে মাস্ক থাকলেও অনেকের মাস্ক থুতনির নিচে। আর অনেককে পকেটে মাস্ক নিয়ে ঘুরতেও দেখা গেছে।