Tuesday, April 16th, 2019

now browsing by day

 
Posted by: | Posted on: April 16, 2019

পররাষ্ট্র প্রতিমন্ত্রীর সঙ্গে সাক্ষাৎ করল আইটিএফে অংশ নিতে যাওয়া খেলোয়াড়রা

মাহাবুবুর রহমান চঞ্চল: আন্তর্জাতিক টেনিস ফেডারেশনের অনুমোদিত ‘আইটিএফ এশিয়ান অনূর্ধ্ব-১৪ ডেভলপমেন্ট চ্যাম্পিয়নশীপস ২০১৯ : ডিভিশন-১’ প্রতিযোগিতায় অংশগ্রহণকারী বাংলাদেশ দলের খেলোয়াড়রা আজ ফেডারেশন সভাপতি পররাষ্ট্র প্রতিমন্ত্রী শাহরিয়ার আলমের সঙ্গে তার দপ্তরে সাক্ষাৎ করেছেন। আগামী ৪ থেকে ১৮ মে উজবেকিস্তানের তাসকান্দে অনুষ্ঠিত হবে এ টুর্নামেন্ট।
প্রতিযোগিতায় আইটিএফ দলের হয়ে অংশগ্রহণের জন্য এবারই প্রথম তিন জন খেলোয়াড় সুযোগ পেয়েছেন। টুর্নামেন্টে অংশগ্রহণকারী দেশগুলো হচ্ছে চায়না, চাইনিজ তাইপে, হংকং, ভারত, ইন্দোনেশিয়া, জাপান কাজাখস্তান, কোরিয়া, মালয়েশিয়া, ফিলিপাইনস, শ্রীলংকা, থাইল্যান্ড ভিয়েতনাম ও স্বাগতিক উজবেকিস্তান।
সাক্ষাৎকালে প্রতিমন্ত্রী দলের সদস্যদের ফুল দিয়ে স্বাগত জানান। সভাপতি তাসকান্দে অবস্থিত বাংলাদেশ দূতাবাসকে বাংলাদেশ দলের খেলোয়াড়দের জন্য সহযোগিতার বিষয়ে প্রয়োজনীয় নির্দেশ প্রদান করেন। প্রতিযোগিতায় অংশগ্রহণের লক্ষ্যে বাংলাদেশ দল আগামী ৩ মে উজবেকিস্তানের উদ্দেশ্যে যাত্রা করবে।

Posted by: | Posted on: April 16, 2019

বিও অ্যাকাউন্ট খুলতে ইটিআইএন বাধ্যতামূলক নয় : এনবিআর চেয়ারম্যান

(বাসস) : পুঁজিবাজারে বিনিয়োগকারীদের বেনিফিশিয়ারি ওনার (বিও) অ্যাকাউন্ট খুলতে ইটিআইএন (আয়কর সনদ) বাধ্যতামূলক নয় বলে জানিয়েছেন জাতীয় রাজস্ব বোর্ডের (এনবিআর) চেয়ারম্যান মো. মোশাররফ হোসেন ভূইয়া।
মঙ্গলবার রাজধানীর সেগুনবাগিচায় রাজস্ব ভবন সভাকক্ষে বাংলাদেশ স্টিল ম্যানুফ্যাকচারার্স এসোসিয়েশন (বিএসএমএ), রিয়েল এস্টেট এন্ড হাউজিং এসোসিয়েশন অব বাংলাদেশ (রিহ্যাব), বাংলাদেশ ল্যান্ড ডেভেলপমেন্ট এসোসিয়েশন, বাংলাদেশ স্টেইনলেস স্টিল বিল্ডিং ম্যানুফ্যাকচারার্স এসোসিয়েশন এবং স্টিল বিল্ডিং ম্যানুফ্যাকচারার্স এসোসিয়েশন প্রতিনিধিদের সঙ্গে প্রাক-বাজেট আলোচনায় সভাপতির বক্তব্যে তিনি এসব কথা বলেন।
বর্তমানে পুঁজিবাজারে সূচক কমার অনেকগুলো কারণের মধ্যে ইটিআইএন ইস্যুও নাকি একটি বলে পুঁজিবাজার নিয়ন্ত্রক সংস্থা বিএসইসির চেয়ারম্যান জানিয়েছেন উল্লেখ করে মোশাররফ হোসেন বলেন,এখন যে পদ্ধতিতে বিও অ্যাকাউন্ট খোলা যায় ভবিষ্যতেও একই পদ্ধতিতে বিও অ্যাকাউন্ট খোলা যাবে। বিও অ্যাকাউন্ট করার ক্ষেত্রে ইটিআইএন বাধ্যতামূলক হবে না।
উল্লেখ্য,বর্তমানে ইটিআইএন ছাড়াই বিও অ্যাকাউন্ট খোলার সুযোগ রয়েছে। তবে আগামী অর্থবছরে বিও অ্যাকাউন্ট খুলতে ইটিআইএন বাধ্যতামূলক করা হবে,এই মর্মে সম্প্রতি একটি পত্রিকায় খবর পরিবেশনের কারণে কিছুটা বিভ্রান্তির সৃষ্টি হয়েছে বলে বিএসইসি মনে করছে। সেই প্রেক্ষিতে আজ এনবিআর চেয়ারম্যান স্পষ্ট করে জানান,আগামী অর্থবছর বিও অ্যাকাউন্ট খুলতে ইটিআইএন বাধ্যতামূলক করা হচ্ছে না।
মোশাররফ হোসেন বলেন, নতুন ভ্যাট আইন করার ক্ষেত্রে আমরা বিশেষ সুবিধাগুলো একেবারেই ফেলে দিতে পারবো না। কাজেই কিছু কিছু জায়গায় আমরা বিশেষ সুবিধা রাখবো।
তিনি বলেন, ‘কাস্টমস্ ডিউটি কিভাবে কমানো যেতে পারে সে বিষয়টি আমরা দেখবো। এনবিআর শুধু রাজস্ব আহরণেই কাজ করে না, দেশের শিল্পায়ন এবং ব্যবসা বাণিজ্য কিভাবে বৃদ্ধি পাবে সে লক্ষ্যেও আমরা কাজ করছি।’
বরাবরের মতো এবারের বাজেটেও শিল্পায়নকে গুরুত্ব দেয়া হচ্ছে উল্লেখ করে মোশাররফ হোসেন বলেন, ক্ষুদ্র এবং মাঝারী শিল্প গড়ে তোলার পাশাপাশি কিভাবে আরো বেশি রাজস্ব পাওয়া যায় সেদিকে সবার দৃষ্টি রাখতে হবে। তিনি বলেন, আমরা সবার বাজেট প্রস্তাব গুরুত্বের সঙ্গে নিয়েছি। আলাপ আলোচনার মাধ্যমে আগামী বাজেটে সেগুলো অন্তর্ভূক্ত করা হবে।
সভায় রিহ্যাবের পক্ষ থেকে ফ্ল্যাট ও প্লট রেজিস্ট্রেশন কর ও ফি ৭ শতাংশে নির্ধারণ,আবাসনখাতে বাংলাদেশ ব্যাংক থেকে সিঙ্গেল ডিজিট সুদে দীর্ঘমেয়াদী রিফাইন্যান্সিং চালু এবং ২০ হাজার কোটি টাকার তহবিল গঠন, বৈধভাবে উপার্জিত অপ্রদর্শিত অর্থ আবাসনে বিনিয়োগের সুযোগ দেয়ার জন্য আয়কর অধ্যাদেশের যুগপোযোগী সংশোধনসহ একাধিক প্রস্তাব করা হয়।
বাংলাদেশ স্টিল ম্যানুফ্যাকচারার্স এসোসিয়েশন বিদ্যমান টার্নওভার ট্যাক্স শুন্য ৬ শতাংশের পরিবর্তে শুন্য ৩০ শতাংশ নির্ধারণ করা এবং সর্বোচ্চ করপোরেট ট্যাক্স ৩৫ শতাংশের পরিবর্তে ২৫ শতাংশ নির্ধারনের প্রস্তাব করে।

Posted by: | Posted on: April 16, 2019

চিরায়ত চিকিৎসা পদ্ধতির প্রতি গুরুত্বারোপ প্রধানমন্ত্রীর

(বাসস) : প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা দেশের চিরায়ত চিকিৎসা পদ্ধতির ওপর গুরুত্বারোপ করে প্রচলিত চিকিৎসা ব্যবস্থার পাশাপাশি প্রাচীনকাল থেকে চলে আসা চিরায়ত স্বাস্থ্য সেবা পদ্ধতিকে মূলধারার ফিরিয়ে আনার আহ্বান জানিয়েছেন।
আজ বঙ্গবন্ধু আন্তর্জাতিক সম্মেলন কেন্দ্রে আয়োজিত জাতীয় স্বাস্থ্য সেবা সপ্তাহ-২০১৯ উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে প্রধানমন্ত্রী বলেন, ‘আমরা ভেষজ, আয়ুর্বেদিক, ইউনানী এবং হোমিওপ্যাথি চিকিৎসা উপেক্ষা করতে পারি না এবং মানুষের চিকিৎসার সুবিধার জন্য এগুলোর উন্নয়নের জন্য আরো গুরুত্ব দিতে হবে।’
প্রধানমন্ত্রী বলেন, বাংলাদেশ বর্তমানে মান সম্পন্ন ওষুধ উৎপাদনে ব্যাপক সফল্য অর্জন করেছে এবং বিদেশে এর চাহিদা তৈরি হয়েছে পাশাপাশি চিরায়ত ওষুধেরও ব্যাপক গুরুত্ব রয়েছে।

বিশ্বব্যাপী ভেষজ (হার্বাল) চিকিৎসার চাহিদা ব্যাপক উল্লেখ করে তিনি চিরায়ত চিকিৎসার উন্নয়নে নিবিড় গবেষণার প্রয়োজনীয়তার ওপর গুরুত্বারোপ করেন।
প্রধানমন্ত্রী তৃণমূল পর্যায়ে জরুরী স্বাস্থ্যসেবা সহজতর করতে ২০১৭-১৮ অর্থবছরে সরকারি অর্থে কেনা অ্যাম্বুলেন্স ও জিপ বিতরণ করেন।
তিনি জনগণের দোরগোড়ায় স্বাস্থ্যসেবা পৌঁছে দিতে তাঁর সরকারের অঙ্গীকার পুনর্ব্যক্ত করে বলেন, স্বাস্থ্য খাতের সামগ্রিক উন্নয়নে বিভিন্ন পদক্ষেপ নেয়া হয়েছে।
শেখ হাসিনা বলেন, সকল মানুষকে স্বাস্থ্যসেবার আওতায় আনার অঙ্গীকারের অংশ হিসেবে দেশব্যাপী কমিউনিটি ক্লিনিক স্থাপন করা হয়েছে।
তিনি বলেন, বর্তমান প্রায় ১৪ হাজার ক্লিনিক মা ও শিশুদের স্বাস্থ্যসেবা দিচ্ছে এবং এখান থেকে ৩০টি মারাত্মক রোগের ওষুধ বিনামূল্যে দেয়া হচ্ছে।
তিনি দুঃখ প্রকাশ করে বলেন যে, ১৯৯৬-২০০১ মেয়াদের আওয়ামী লীগ সরকারের আমলে ক্লিনিকগুলো প্রতিষ্ঠিত হওয়ায় পরবর্তী বিএনপি-জামায়াত শাসনামলে স্বাস্থ্যসেবা প্রদানকারী এই বুনিয়াদী প্রতিষ্ঠানগুলো বন্ধ করে দেয়া হয়।
তিনি বলেন, প্রসবকালীন সময়ের জন্য দক্ষ প্রশিক্ষণ কার্যক্রম অব্যাহত রয়েছে। সরকার আইসিটি ব্যবহার করে ‘স্বাস্থ্য বার্তা’ নামে কল সেন্টারের মাধ্যমে টেলি মেডিসিন সেবা চালু করেছে।
প্রধানমন্ত্রী বলেন, এসব উদ্যোগ হচ্ছে মূলতঃ জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান প্রবর্তিত স্বাস্থ্যসেবারই অংশ। এ প্রসঙ্গে তিনি স্বাধীনতা পরবর্তী সরকারের আমলে স্বাস্থ্যসেবা জনগণের দোরগোড়ায় পৌঁছাতে ইউনিয়ন পর্যায়ে ১০ শয্যার হাসপাতাল নির্মাণের কথা স্মরণ করেন।
স্বাস্থ্য ও পরিবার কল্যাণ মন্ত্রী জাহিদ মালেক অনুষ্ঠানে সভাপতিত্ব করেন। এতে বিশেষ অতিথি ছিলেন প্রতিমন্ত্রী ডা. মো. মুরাদ হাসান।
স্বাস্থ্যসেবা বিভাগের সচিব স্বাগত বক্তৃতা দেন। এছাড়া বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থা (ডাব্লিউএইচও)-এর প্রতিনিধিগণ অনুষ্ঠানে বক্তৃতা করেন।
প্রধানমন্ত্রী উল্লেখ করেন যে, বঙ্গবন্ধু সংবিধানে স্বাস্থ্যকে ৫টি মৌলিক চাহিদার একটি হিসেবে অন্তর্ভুক্ত করেন।
তিনি বলেন, এই সাংবিধানিক নীতির অনুসরণে আওয়ামী লীগ সরকার মেডিকেল বিশ্ববিদ্যালয়, মেডিকেল কলেজ এবং প্রশিক্ষণ ইনস্টিটিউট প্রতিষ্ঠার মাধ্যমে জনগণের মান সম্পন্ন চিকিৎসা সুবিধা প্রদান এবং চিকিৎসক ও নার্সদের মতো দক্ষ জনশক্তি তৈরির ওপর গুরুত্বারোপ করেছে।
শেখ হাসিনা বলেন, তাঁর সরকার ঢাকায় প্রথম মেডিকেল বিশ্ববিদ্যালয় বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব মেডিকেল বিশ্ববিদ্যালয় স্থাপন করে।
তিনি বলেন, তাঁর পরবর্তীতে সরকার দেশের ৮টি বিভাগের প্রতিটি মেডিকেল কলেজকে বিশ্ববিদ্যালয় হিসেবে গড়ে তোলার পরিকল্পনা গ্রহণ করে। বর্তমানে চট্টগ্রাম, সিলেট ও রাজশাহীতে তিনটি মেডিকেল বিশ্ববিদ্যালয় প্রতিষ্ঠা করা হয়েছে।
শেখ হাসিনা শুধু সায়েন্স ব্যাক গ্রাউন্ডের বদলে সব একাডেমিক ব্যাকগাউন্ড থেকে নার্স-নিয়োগে প্রয়োজনীয় আইন ও বিধি সংশোধনে সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষকে নির্দেশ দিয়েছেন।

তিনি অপারেশন পরবর্তী রোগীদের পরিচর্চার জন্য নার্সদের বিশেষ প্রশিক্ষণের ওপর গুরুত্বারোপ করেন।
প্রধানমন্ত্রী বলেন, স্বাস্থ্য খাতের উন্নয়নের কারণে দেশের গড় আয়ু ৬৬ দশমিক ৮ বছর থেকে বেড়ে ৭২ বছর ছাড়িয়েছে এবং মাতৃমৃত্যুর হার ৩ দশমিক ৪৮ থেকে কমে ১ দশমিক ৭২ (প্রতি হাজারে) এবং শিশু মৃত্যুর হার প্রতি ১০০০ এ ৪১ থেকে কমে ২৪-এ দাঁড়িয়েছে ।
আওয়ামী লীগ সরকার সর্বজনীন স্বাস্থ্যসেবা নিশ্চিত করতে কাজ করছে উল্লেখ করে তিনি বলেন, তার সরকার বর্তমানে প্রতিবন্ধীদের জন্য আর্থিক সহায়তা দিচ্ছে। তিনি বলেন, আগামী বাজেট থেকে অটিস্টিকসহ সব ধরণের প্রতিবন্ধীকে আর্থিক সহায়তা দেওয়া হবে। শেখ হাসিনা এ সময় অটিস্টিকদের কল্যাণে তাঁর কন্যা সায়মা ওয়াজেদ হোসেনের অবদানের কথা স্মরণ করেন।
প্রধানমন্ত্রী হৃদরোগ, স্ট্রোক, ক্যান্সার, ডায়াবেটিস, কিডনি রোগের ব্যাপক বিস্তার ঘটায় এইসব রোগ সম্পর্কে সতর্ক থাকার জন্য দেশবাসীর প্রতি আহ্বান জানান। তিনি বলেন, এই রোগগুলো প্রতিকারের চেয়ে প্রতিরোধমূলক ব্যবস্থা গ্রহনই উত্তম। তিনি এ সময় এইসব রোগের ব্যাপারে সচেতনতা সৃষ্টির ওপর গুরুত্বারোপ করে বলেন, এগুলো প্রতিরোধে জনসচেতনতা বৃদ্ধি সেরা সমাধানগুলোর একটি। তিনি পুষ্টিকর খাদ্য গ্রহনের জন্য সকলের প্রতি আহ্বান জানিয়ে বলেন, রোগ নিরাময়ের চেয়ে প্রতিরোধ করা ভালো।
প্রধানমন্ত্রী এ সময় বাংলাদেশকে একটি উন্নত ও সমৃদ্ধশালী এবং ক্ষুধা ও দারিদ্র্যমুক্ত দেশ হিসেবে গড়ে তুলতে সহ¯্রাব্দের উন্নয়ন লক্ষ্যমাত্রা (এমডিজি)-এর মত টেকসই উন্নয়ন লক্ষ্যমাত্রা (এসডিজি) অর্জনে দৃঢ় আশাবাদ ব্যক্ত করেন।

Posted by: | Posted on: April 16, 2019

বিশ্বের অধিকাংশ সমস্যার কারণ কোরআনকে অনুসরণ না করা: খামেনি

বর্তমানে মুসলিম বিশ্ব তথা গোটা মানবসমাজের অধিকাংশ সমস্যা ও সংকটের কারণ হচ্ছে পবিত্র কোরআনকে অনুসরণ না করা। ইরানের সর্বোচ্চ নেতা আয়াতুল্লাহ উজমা খামেনি আন্তর্জাতিক কোরআন প্রতিযোগিতায় অংশগ্রহণকারী হাফেজ ও ক্বারিদের এক সমাবেশে সোমবার এমন মন্তব্য করেন।তিনি বলেন, পবিত্র কোরআন পৃথিবীতে সম্মান-মর্যাদা, কল্যাণ, উন্নয়ন, শক্তি-সামর্থ্য, সংহতি ও সুন্দর জীবন ব্যবস্থা এবং পরকালের সুখ-শান্তির ক্ষেত্র প্রস্তুতকারী হিসেবে কাজ করে।

কিন্তু বর্তমানে কোনো কোনো মুসলিম দেশের শীর্ষ নেতা সিরিয়া ও ইয়েমেন যুদ্ধের মতো সংঘাত এবং মুসলমান হত্যার ক্ষেত্র তৈরির ভূমিকায় অবতীর্ণ হয়েছেন, বলেছেন ইরানের এই নেতা।

খামেনি এছাড়াও বলেন, কয়েকটি মুসলিম দেশ যুক্তরাষ্ট্র ও ইহুদিবাদী ইসরায়েলের দালালি করছে। তথ্য সূত্র: পার্স টুডে।-ইত্তেফাক

Posted by: | Posted on: April 16, 2019

বিশ্বকাপের জন্য বাংলাদেশ দলের চূড়ান্ত নাম ঘোষণা

মাহাবুবুর রহমান চঞ্চলঃ


কিছুটা বিতর্ক থাকলেও আসন্ন ইংল্যান্ডে অনুষ্ঠেয় আইসিসি ওয়ানডে বিশ্বকাপের জন্য চূড়ান্ত দল ঘোষণা করেছে বাংলাদেশ ক্রিকেট বোর্ড (বিসিবি)। বিশ্বকাপ দলে প্রথমবারের মতো জায়গা করে নিয়েছেন মুস্তাফিজুর রহমান, মোসাদ্দেক হোসেন সৈকত, সাইফ উদ্দিন, মেহেদি হাসান মিরাজ ও আবু জায়েদ রাহী।


মূল দল ঠিক রেখে ত্রিদেশীয় সিরিজে স্ট্যান্ড বাই হিসেবে রাখা হয়েছে নাঈম হাসান ও ইয়াসির রাব্বিকে।ইনজুরির কারণে দল থেকে বাদ পড়ছেন তাসকিন আহমেদ। তিনি অবশ্য বেশকয়েক্মাস ধরেই ইনজুরি সমস্যায় ভুগছেন।আজ মঙ্গলবার দুপুরে মিরপুরে এক সংবাদ সম্মেলনে দলের সদস্যদের নাম ঘোষণা করেন প্রধান নির্বাচক মিনহাজুল আবেদীন নান্নু। এ সময় উপস্থিত ছিলেন বিসিবির ক্রিকেট অপারেশন্স কমিটির চেয়ারম্যান আকরাম খান, নির্বাচক হাবিবুল বাশার সুমন এবং বিসিবির মিডিয়া কমিটির চেয়ারম্যান জালাল ইউনুস।

বাংলাদেশ দল : মাশরাফি বিন মর্তুজা (অধিনায়ক), সাকিব আল হাসান, তামিম ইকবাল, মুশফিকুর রহিম, মাহমুদউল্লাহ রিয়াদ, রুবেল হোসেন, সৌম্য সরকার, মুস্তাফিজুর রহমান, সাব্বির রহমান, মোসাদ্দেক হোসেন সৈকত, লিটন দাস, মিঠুন, সাইফ উদ্দিন, মেহেদি হাসান মিরাজ, আবু জায়েদ রাহী।

এছাড়া ত্রিদেশীয় সিরিজে স্ট্যান্ড বাই-নাঈম হাসান ও ইয়াসির রাব্বি। সুত্রঃইত্তেফাক