Main Menu

রোহিঙ্গাদের জন্য ৯২০ মিলিয়ন ডলার সহায়তা চেয়েছে জাতিসংঘ

(বাসস) : রোহিঙ্গাদের মানবিক সহায়তার জন্য আন্তর্জাতিক সম্প্রদায়ের কাছে ২০১৯ সালে ৯২০ মিলিয়ন মার্কিন ডলার আর্থিক সহায়তা চেয়েছে জাতিসংঘ সংস্থা ও সহযোগী এনজিওগুলো।
আজ শুক্রবার জাতিসংঘ সংস্থা ও সহযোগী এনজিওগুলো রোহিঙ্গাদের জন্য যৌথ সহায়তা পরিকল্পনা ২০১৯ ঘোষণা করেছে। নতুন পরিকল্পনায় জাতিসংঘ সংস্থাগুলোসহ মোট ১৩২টি সংস্থা কাজ করবে।
জাতিসংঘ শরণার্থী সংস্থা (ইউএনএইচসিআর) ও আন্তর্জাতিক অভিবাসন সংস্থা (আইওএম) শুক্রবার জেনেভা থেকে এ বিষয়ে একটি যৌথ সংবাদ বিজ্ঞপ্তি প্রকাশ করে।
আন্তর্জাতিক অভিবাসন সংস্থা (আইওএম) মহাপরিচালক আন্তনিও ভিতোরিনো বলেন, ‘বাংলাদেশ সরকারের সংহতি এবং মানবিক সহায়তা প্রদানকারী সহযোগী সংস্থাগুলোর অঙ্গীকার প্রথম যৌথ সহায়তা পরিকল্পনা ২০১৮ সফরভাবে বাস্তবায়ন নিশ্চিত করে।
সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে বলা হয়, বাংলাদেশে অবস্থানকারী প্রায় ১০ লাখ রোহিঙ্গা এবং প্রায় সাড়ে তিন লাখ স্থানীয় জনগোষ্ঠীর মানবিক সহায়তার জন্য এই ৯২০ মিলিয়ন ডলার খরচ হবে। গত বছর জাতিসংঘের পক্ষ থেকে এজন্য ৯৫০ মিলিয়ন ডলার সহায়তা চেয়ে ৬৫৫ মিলিয়ন ডলার পাওয়া গিয়েছিল।
এ বছরের সহায়তার অর্ধেকের বেশি খাদ্য, পানি, পয়ঃনিষ্কাশন, বাসস্থানের জন্য বরাদ্দ করা হবে। বাকি অর্থ স্বাস্থ্য, ক্যাম্প ব্যবস্থাপনা ইত্যাদি খাতে ব্যয় হবে।
জাতিসংঘের শরণার্থী বিষয়ক হাইকমিশনার ফিলিপ্পো গ্রান্ডি বলেন, ‘আজ আমাদের মানবিক দায়িত্ব হলো রাষ্ট্রবিহীন রোহিঙ্গা ও তাদের বাংলাদেশি আশ্রয়দাতাদের অবস্থা স্থিতিশীল করা।’
তিনি রোহিঙ্গাদের তৎক্ষণিক প্রয়োজন মোকাবেলার পাশাপাশি, রোহিঙ্গা সংকটের মূল কারণ নিরসন ও তাদের প্রত্যাবাসনে জরুরি পদক্ষেপের আহ্বান জানান।
তিনি এ অঞ্চল ও এর বাইরের দেশগুলোর প্রতি বাংলাদেশের সঙ্গে সংহতি প্রকাশ রোহিঙ্গাদের স্বেচ্ছা, নিরাপদ ও মর্যাদাপূর্ণ প্রত্যাবাসনের পরিস্থিতি সৃষ্টিতে মিয়ানমারকে সহায়তার আহ্বান জানান।
উল্লেখ্য, ২০১৭-এর আগস্ট থেকে এ পর্যন্ত প্রায় সাড়ে সাত লাখ রোহিঙ্গা বাংলাদেশে পালিয়ে এসেছে। এছাড়া আগে থেকে দুই লাখেরও বেশি রোহিঙ্গা বাংলাদেশে অবস্থান করছিল।






Related News