kk

বৃহস্পতিবার (০২ জুন) সকালে রাজধানীর সেতু ভবনে আয়োজিত সাংবাদ সম্মেলনে তিনি এ মন্তব্য করেন।

সেতুমন্ত্রী বলেন, বিএনপি জনগণের কাছে যাওয়ার জন্য কোনো ইস্যু খুঁজে না পেয়ে তারা এখন সময় ক্ষেপণের জন্য নিজ বলয়ে সংলাপ করছে।

বিএনপির নেতায় নেতায় সংলাপ জনগণ এর আগেও দেখেছে উল্লেখ করে তিনি বলেন, কিন্তু জনগণ পর্বতের মুষিক প্রসব ছাড়া আর কিছুই দেখেনি।

ওবায়দুল কাদের বলেন, বিএনপি দিন-রাত সরকারের অন্ধ সমালোচনা আর বিরামহীন মিথ্যাচার এবং বিষোদগার করে চলেছে। এখন তারা বলছেন আমার ভাষা নাকি রাজনীতির ভাষা নয়।

আওয়ামী লীগ সাধারণ সম্পাদক বলেন, আমরা সব সময় রাজনৈতিক ভাষায় কথা বলি, আমাদের ভাষায় কোনো প্রকার আপত্তিকর বক্তব্য আসে না, এমন শিক্ষা আওয়ামী লীগের নেতাকর্মীরা পায়নি। অপরদিকে বিএনপি ও তাদের কর্মীরা রাস্তার ভাষায় কথা বলে।

ওবায়দুল কাদের বলেন, বিএনপি নেতারা বঙ্গবন্ধুকন্যা প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার নাম সম্মানের সঙ্গে উচ্চারণ করেন না। তারা স্লোগান দেয়, ‘৭৫’এর হাতিয়ার গর্জে উঠুক আরেকবার’; এর চেয়ে অশ্রাব্য ভাষা আর কী হতে পারে!

আরও পড়ুন: ‘বিএনপি দেশে নৈরাজ্য সৃষ্টির জন্য মরিয়া হয়ে উঠেছে

বিএনপি নেতাদের উদ্দেশে তিনি বলেন, প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনাকে হত্যার হুমকি দেয়- এটা কি কখনো মেনে নেয়া যায়? এর চেয়ে আর নোংরা ভাষা কি হতে পারে? আগে নিজেরা সংযত ভাষায় কথা বলুন, তারপর আমাদের বলুন।

তিনি বলেন, জনগণ মনে করে, আগুন সন্ত্রাস, দুর্নীতি আর লুটপাট যাদের রাজনীতি, তাদের ভাষা-মাধুর্যের চেয়ে ভাষা চাতুরতাই বেশি প্রিয় হবে-এটাই স্বাভাবিক।

বুধবার (০১ জুন) সকালে জাতীয় প্রেসক্লাবে কৃষক দল আয়োজিত এক সেমিনারে বিএনপি মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর অভিযোগ করে বলেন, অগণতান্ত্রিক ভাষায় কথা বলছেন ক্ষমতাসীন দলের নেতারা। আওয়ামী লীগ সন্ত্রাসী কর্মকাণ্ড করে ক্ষমতায় টিকে থাকতে চায়।

মির্জা ফখরুল বলেন, গত মঙ্গলবার যেভাবে হুমকি দিয়েছেন ওবায়দুল কাদের সাহেব, এটা কোনো রাজনীতির ভাষা নয়, এটা কোনো গণতন্ত্রের ভাষা নয়। আপনারা মুখে মিথ্যা কথা বলেন কেন, গণতন্ত্র করতে চান? আপনারা তো গণতন্ত্রই বিশ্বাস করেন না। গণতন্ত্রে বিশ্বাস করলে এই ভাষায় কথা বলতেন না। আজকে আপনারা ছাত্রদের মারলেন, জঘন্যভাবে মারলেন, আজকে আবার সেটা জাস্টিফাই করছেন, এটাই হচ্ছে আপনাদের চরিত্র। এরা একদিকে লুট করবে, মানুষকে হত্যা করবে, আবার অন্যদিকে সন্ত্রাস করবে। সন্ত্রাস করে ক্ষমতা দখল করে আরও বেশি করে লুটপাট করবে তারা।