পিতা-মাতার প্রতি পরম শ্রদ্ধাশীল ছিলেন বঙ্গবন্ধু : ড. কলিমউল্লাহ

পিতা-মাতার প্রতি পরম শ্রদ্ধাশীল ছিলেন বঙ্গবন্ধু : ড. কলিমউল্লাহ

প্রেস ওয়াচ রিপোর্টঃআজ বুধবার, নভেম্বর ১৭, ২০২১ খ্রি. তারিখে মুজিব শতবর্ষ উপলক্ষ্যে জুমে অনুষ্ঠিত আলোচনা সভায় জানিপপ-এর প্রতিষ্ঠাতা চেয়ারম্যান প্রফেসর ডক্টর মেজর নাজমুল আহসান কলিমউল্লাহ, বিএনসিসিও অনুষ্ঠানের সভাপতি হিসেবে সংযুক্ত ছিলেন।

সভাপতির বক্তব্যে প্রফেসর ডক্টর নাজমুল আহসান কলিমউল্লাহ বলেন, পিতা-মাতার প্রতি পরম শ্রদ্ধাশীল ছিলেন বঙ্গবন্ধু।

মুজিব শতবর্ষ উপলক্ষ্যে জুমে অনুষ্ঠিত আলোচনা সভায় প্রধান অতিথি হিসেবে ওপার বাংলা ভারত থেকে সংযুক্ত ছিলেন বিশিষ্ট কলামিস্ট এবং টেলিভিশন ব্যক্তিত্ব শ্রীমান পিনাকী ভট্টাচার্য।

পিতা-মাতার প্রতি পরম শ্রদ্ধাশীল ছিলেন বঙ্গবন্ধু : ড. কলিমউল্লাহ

প্রধান অতিথির বক্তৃতায় শ্রীমান পিনাকী বলেন, বঙ্গবন্ধুর ব্যক্তিত্ব, রাজনৈতিক দূরদর্শিতা এবং মানবিক গুণাবলীর কারণে পৃথিবীর অন্য জাতীয় নেতাদের মধ্য থেকে ব্যতিক্রমী হয়ে উঠেছেন।তিনি অমানবিক এবং অকল্যাণকর ঝুঁকিপূর্ণ রাষ্ট্রের কথা বিবেচনা করে বাংলাদেশের সংবিধান রচনার সূচনাতে ধর্মনিরপেক্ষতাবাদ যুক্ত করেছেন।যা বাংলাদেশকে এশিয়ায় প্রথম ধর্ম নিরপেক্ষ রাষ্ট্রের কৃতিত্ব এনে দিয়েছে।যেখানে ভারত ১৯৭৬ সালে ৪২তম সংশোধনীতে ধর্মনিরপেক্ষতাবাদ যুক্ত করতে পেরেছিল। সে কারণে বঙ্গবন্ধু শুধু বাংলাদেশের বাঙালি জাতির পিতা হননি, তিনি সমগ্র বিশ্বের মহান নেতায় পরিণত হয়েছেন।

আজকের অনুষ্ঠানে বিশেষ অতিথি হিসেবে সংযুক্ত ছিলেন হাজী দানেশ বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ের সমাজবিজ্ঞান বিভাগের সহকারী অধ্যাপক এবং বঙ্গবন্ধু হলের সহকারী প্রভোস্ট জনাব মোহাম্মদ সাইফউদ্দীন দুরুদ। জনাব দুরুদ,তার বক্তৃতায় বঙ্গবন্ধুর মানবিক এবং রাজনৈতিক গুণাবলী তুলে ধরেন এবং বলেন, বঙ্গবন্ধুকে নিয়ে জানিপপ-এর নিয়মিত এ ধরনের সেমিনার আয়োজন নিঃসন্দেহে নতুন প্রজন্মকে বঙ্গবন্ধু সম্পর্কে জানার কৌতূহল আরো বাড়িয়ে দেবে।

 সেমিনারে গেস্ট অফ অনার হিসেবে যুক্ত ছিলেন,ওয়েস্টার্ন সিডনি ইউনিভার্সিটি, অস্ট্রেলিয়া থেকে ড. তানভীর ফিত্তীণ আবীর। ডক্টর আবির, বিশ্বসভায় বাংলাদেশের প্রধানমন্ত্রী জননেত্রী শেখ হাসিনার ভাষণকে রাষ্ট্রনায়কোচিত বলে উল্লেখ করেন। তিনি বলেন, জলবায়ুসহ ধনীকরাষ্ট্র এবং গরীব রাষ্ট্রের ব্যবধান এবং বৈষম্য দূরীকরণে বাংলাদেশের মাননীয় প্রধানমন্ত্রীর দিকনির্দেশনামূলক বক্তব্য বিশ্ববাসীর নজর কেড়েছে।

আলোচনায় মূখ্য আলোচক হিসেবে সংযুক্ত ছিলেন রয়েল ইউনিভার্সিটি অব ঢাকা এর সহযোগী অধ্যাপক, বিভাগীয় প্রধান ও ডেইলি প্রেসওয়াচ সম্পাদক জনাব দিপু সিদ্দিকী।

জনাব সিদ্দিকী বলেন, বঙ্গবন্ধু ছিলেন বাংলাদেশের ভবিষ্যৎদ্রষ্টা। বঙ্গবন্ধু আমাদেরকে ত্যাগ এবং প্রত্যাক্ষানুভূতির কথা বলেছেন।তিনি সেবার মানসিকতা নিয়ে সবাইকে একসঙ্গে কাজ করার প্রতি আহ্বান করেছেন। তিনি বিবাদহীন রাজনীতি করার প্রতি গুরুত্বারোপ করেছেন। বঙ্গবন্ধুর এই ভাবধারা আমাদেরকে বজায় রাখতে হবে। তবেই ২০৪১ সালের পূর্বে আমরা বঙ্গবন্ধু কন্যা জননেত্রী শেখ হাসিনার স্বপ্নের উন্নতবিশ্বের স্বপ্নচূড়ায় পৌঁছতে পারব।

 আলোচনায় সূচনা বক্তব্য প্রদান করেন,নীলফামারীর জলঢাকা থেকে পিএইচডি গবেষক ফাতেমা-তুজ-জোহরা লিমা। জানিপপ কর্তৃক আয়োজিত এ সভায় অন্যান্যের মধ্যে আলোচনায় অংশ নেন,দিনাজপুর বীরগঞ্জ উপজেলার ছাত্রলীগের সাধারণ সম্পাদক জনাব গোলাম মুর্শিদ। এছাড়াও আজকের আলোচনা সভায় সংযুক্ত ছিলেন,রংপুর মহিলা আওয়ামীলীগের সভানেত্রী মোছাম্মৎ আর্জিনা খানম,শিক্ষা ক্যাডারের সহযোগী অধ্যাপক ও গবেষক আবু সালেক খান, চাঁদপুরস্হ কচুয়ার নুরপুর থেকে ফখরুল ইসলাম, কুমিল্লার লাকসাম থেকে প্রভাষক কামাল উদ্দিন,সোনালী ব্যাংক কর্মকর্তা ই এন রুমা।