Main Menu

শনিবার থেকে ওয়ারীর ৪১ নং ওয়ার্ড লকডাউন

করোনা সংক্রমণ রোধে শনিবার (৪ জুলাই) থেকে লকডাউন হচ্ছে রাজধানীর ওয়ারী। এ অবস্থায় জীবন-জীবিকার তাগিদে অনেকে এলাকা ছেড়েছেন। প্রায় সবগুলো সড়কেই ব্যারিকেড দিয়েছে আইনশৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনী।

লকডাউনে জরুরি বিধিনিষেধ এড়াতে আসবাবপত্র নিয়ে ওয়ারী এলাকা ছাড়ছেন অনেকে। আবার এলাকার বাইরে কর্মস্থল হওয়ায় কাজ হারানোর শঙ্কায় আছেন অনেক বাসিন্দা। এলাকার ভেতরে যাদের রুটিরুজির ব্যবস্থা তারাও পড়েছেন বিপাকে। এমন বাস্তবতায় শনিবার থেকে ২১ দিনের জন্য লকডাউনে যাচ্ছে পুরান ঢাকার ওয়ারী এলাকা।

এলাকাবাসী জানান, হুট করে লকডাউন দিয়ে দিল। আমরা চলব কীভাবে? খাব কি; বা ঘরভাড়াই বা কীভাবে দেব? অফিস না গেলে চাকরি থাকবে না। 

শনিবার থেকে লকডাউন হলেও এলাকার মোট ১৭টি প্রবেশ পথের মধ্যে ১৫টিতে বাঁশের বেড়া দিয়ে বন্ধ করে দেয়া হয়েছে। খোলা থাকছে রাংকিন স্ট্রিট টিপু সুলতান ক্রসিং এবং হট কেকের মোড়।

ইতোমধ্যে প্রায় ২০০ স্বেচ্ছাসেবক প্রস্তুত রাখা হয়েছে বাসিন্দাদের জরুরি সেবার জন্য। ওয়ারী বালিকা সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ে খোলা হয়েছে করোনা পরীক্ষার জন্য নমুনা সংগ্রহের বুথ।

এ প্রসঙ্গে ৪১ নম্বর ওয়ার্ড কাউন্সিলর সরোয়ার হাসান আলো বলেন, যাওয়া-আসার জন্য ১৭টি স্পটের মধ্যে দুটি খোলা থাকবে। আসা করি এলাকাবাসী সরকারি নির্দেশনা মেনে চলবেন। 

লকডাউন চলা অবস্থায় আইন অমান্য করলে কঠোর ব্যবস্থার হুঁশিয়ারি দিয়েছে আইনশৃঙ্খলা বাহিনী।

ওয়ারী থানার ইনচার্জ মোহাম্মদ আজিজুর রহমান বলেন, আমরা সব প্রস্তুতি নিয়েছি। এখন সময়ের অপেক্ষায় আছি। 

কোভিড ঊনিশের সংক্রমণ বেশি হওয়ায় গেল ৩০ জুন দক্ষিণ সিটির ওয়ারী এলাকা রেডজোন হিসেবে ঘোষণা দেয় জনপ্রশাসন মন্ত্রণালয়। এগে রাজধানীর পূর্ব রাজারবাগ ২১ দিন লকডাউন করা হয়।






Related News