Main Menu

খালেদা জিয়ার মুক্তির এখতিয়ার প্রধানমন্ত্রীর হাতে নেই : তথ্যমন্ত্রী

(বাসস) : তথ্যমন্ত্রী ড. হাছান মাহমুদ আজ বলেছেন, কারাগার থেকে বিএনপি চেয়ারপার্সন বেগম খালেদা জিয়ার মুক্তির দুইটি উপায় রয়েছে- রাষ্ট্রপতির ক্ষমা প্রার্থনা অথবা আদালতে আইনি লড়াই।
তিনি বলেন, ‘বেগম জিয়া অথবা অন্য কোন বন্দিকে মুক্তি দেয়ার ব্যাপারে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার কোন আইনগত অধিকার নাই।’
আজ মঙ্গলবার সচিবালয়ে নিজ কার্যালয়ে সাংবাদিকদের সাথে আলাপকালে তিনি এসব কথা বলেন।
বিএনপি নেতা রিজভী আহমেদের বক্তব্যের উল্লেখ করে তথ্যমন্ত্রী বলেন, এক সংবাদ সম্মেলনে তিনি (রিজভী আহমেদ) বিএনপি চেয়ারপার্সন বেগম খালেদা জিয়াকে মুক্তি দেয়ার জন্য প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনাকে আহবান জানিয়েছেন। তিনি বলেন, ‘কিন্তু কারাগার থেকে কোন বন্দিকে মুক্তি দেয়ার ব্যাপারে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার কোন আইনগত অধিকার নাই।’
ড. হাছান মাহমুদ বলেন, ‘প্রকৃতপক্ষে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার কাছে খালেদা জিয়ার মুক্তি চেয়ে রিজভী আহমেদ আদালতকে অসম্মান করেছেন।’
আওয়ামী লীগের প্রচার ও প্রকাশনা সম্পাদক ড. হাছান মাহমুদ বলেন, তারা যদি বেগম জিয়াকে মুক্ত করতে চান তাহলে বিএনপিকে আইন ও আদালতের মাধ্যমে অগ্রসর হতে হবে।
তিনি আরও বলেন, অপরাধ স্বীকার করে রাষ্ট্রপতির কাছে ক্ষমা প্রার্থনা করলে তিনি (খালেদা জিয়া) মুক্তি পেতে পারেন।
বিএনপি’র মিত্র জামায়াত সম্পর্কে তথ্যমন্ত্রী বলেন, তারা হয়তো নতুন কৌশল গ্রহণ করেছে, কেননা তাদের সম্পর্ক খুবই গভীর।
ড. হাছান মাহমুদ বলেন, ‘বিএনপি ও জামায়াত আলাদা হচ্ছে- এ রকম একটি প্রতিবেদন আমি দেখেছি। কিন্তু প্রকৃত সংবাদ হচ্ছে জামায়াতই বিএনপিকে ত্যাগ করছে, বিএনপি জামায়াতকে ছাড়তে চাচ্ছে না।’
তিনি বলেন, ‘বিএনপি যদি তাদের ভুল-ত্রুটি স্বীকার করে জামায়াতকে ত্যাগ করে, তাহলে আমরা তাদেরকে (বিএনপি) স্বাগত জানাব।’
তথ্যমন্ত্রী বলেন, ‘বিএনপি অথবা জামায়াত একে অপরকে ত্যাগ করবে না, কেননা উভয় রাজনৈতিক দলের চিন্তা-ভাবনা ও আদর্শ প্রায় অনুরূপ।’
তিনি বলেন, প্রত্যেকেই জানেন বিএনপি ও জামায়াত উভয়ই সাম্প্রদায়িক দল এবং চিন্তা, আদর্শ চেতনার দিক থেকে তারা খুবই ঘনিষ্ঠ।






Related News