আবহাওয়া

now browsing by category

 
Posted by: | Posted on: August 30, 2021

যুক্তরাষ্ট্রে আঘাত হানছে শক্তিশালী ঘূর্ণিঝড় ‘আইডা’

প্রেস ওয়াচ ডেস্কঃ

মেক্সিকো উপসাগরে সৃষ্ট শক্তিশালী ঘূর্ণিঝড় ‘আইডা’ যুক্তরাষ্ট্রের লুইজিয়ানা অঙ্গরাজ্যে আঘাত হানতে যাচ্ছে। ঘণ্টায় সর্বোচ্চ ২৪০ কিলোমিটার পর্যন্ত ঝড়ো বাতাস বইতে পারে।

হারিকেনের প্রভাবে উপকূলীয় এলাকায় ঝড়ো বাতাস বয়ে যাচ্ছে। মার্কিন আবহাওয়া দফতর বলছে, ২০০৫ সালে নিউ অরলিয়েন্সে ঘূর্ণিঝড় ক্যাটরিনা যে তাণ্ডব চালিয়েছিল তার চেয়ে ভয়াবহ হতে পারে আইডা। রবিবার যেকোনও সময় তাণ্ডব চালাবে ঘূর্ণিঝড়টি। এখন চারমাত্রার ক্যাটাগরিতে রূপ নিয়েছে।

ক্ষয়ক্ষতি এড়াতে সরিয়ে নেওয়া হয়েছে হাজার হাজার মানুষকে। আতঙ্কে মানুষজন এলাকা ছাড়তে গিয়ে সড়কে ব্যাপক যানজট সৃষ্টি হয়েছে। এতে দুর্ভোগ আরও বেড়েছে।

জাতীয় হারিকেন কেন্দ্র থেকে বলা হয়েছে, রবিবার সম্ভাব্য বিপর্যয়কর ঝড়ো বাতাসে ক্ষয়ক্ষতি হতে পারে। ভারী বৃষ্টিপাতে উপকূলীয় এলাকায় বন্যা দেখে দেবে।

গভর্নর জন বের এডওয়ার্ডস বাসিন্দাদের সতর্ক করে বলেন, ঝড়ের সময় আপনাদের ঘরের জানালা বন্ধ রাখুন। আবহওয়া খুবই খারাপ থাকবে’।

লুইজিনিয়ার প্রতিবেশি অঙ্গরাজ্য মিসিসিপিতে জরুরি সতর্কতা জারি করেছেন গভর্নর। এদিকে প্রেসিডেন্ট জো বাইডেন ঘূর্ণিঝড় আইডাকে খুবই বিপজ্জনক অ্যাখা দিয়েছেন। কেন্দ্রীয় সরকার সহায়তা করতে প্রস্তত বলেও জানান বাইডেন।

 

Posted by: | Posted on: August 23, 2021

বেড়েই চলেছে পানি, ৮ পয়েন্টে বিপৎসীমার ওপরে

প্রেস ওয়াচ রিপোর্টঃ

বাংলা ট্রিবিউন রিপোর্ট
২২ আগস্ট ২০২১, ২০:৪৫

মৌসুমি বায়ুর প্রভাবে দেশের উত্তরাঞ্চলসহ উজানে বাড়ছে বৃষ্টি। এ বৃষ্টিতে বেড়ে যাচ্ছে নদনদীর পানি। ফলে নদী অববাহিকায় একের পর এক এলাকা প্লাবিত হচ্ছে। বর্তমানে ধরলা, যমুনা, পদ্মা, আত্রাই, গড়াই নদীর আট স্টেশনের পানি বিপৎসীমার ওপর দিয়ে প্রবাহিত হচ্ছে। আগামী ২৪ ঘণ্টায়  দেশের কুড়িগ্রাম, সিরাজগঞ্জ, পাবনা, কুষ্টিয়া, মানিকগঞ্জ,  রাজবাড়ী, ফরিদপুর ও শরিয়তপুর জেলার নিম্নাঞ্চলের বন্যা পরিস্থিতির অবনতি হতে পারে। পাশাপাশি যমুনা নদীর সিরাজগঞ্জ পয়েন্ট এবং ধলেশ্বরী নদীর এলাসিন পয়েন্টের পানি বিপৎসীমা অতিক্রম করতে পারে।

বন্যা পূর্বাভাস ও সতর্কীকরণ কেন্দ্রের এক কর্মকর্তা জানান, মৌসুমি বায়ুর প্রভাবে দেশের বিভিন্ন অঞ্চলে বৃষ্টি হচ্ছে। কোথাও কোথাও বিক্ষিপ্তভাবে ভারী বৃষ্টিও হচ্ছে। এ কারণে দেশের অনেক নদী অববাহিকার অনেক এলাকায় বন্যার কবলিত হয়েছে।  ৫ নদীর অনেক স্টেশনের পানি এখন বিপৎসীমার ওপরে। আরও দুটির পয়েন্টের পানি আগামী ২৪ ঘণ্টায় বিপৎসীমা অতিক্রম করতে পারে। এতে আরও বেশ কিছু এলাকা প্লাবিত হওয়ার শঙ্কা দেখা দিয়েছে।

এদিকে বন্যা পূর্বাভাস ও সতর্কীকরণ কেন্দ্র জানায়, ব্রহ্মপুত্র, যমুনা ও পদ্মা নদ- নদীগুলোর পানির সমতল বৃদ্ধি পাচ্ছে যা আগামী ২৪ ঘণ্টা পর্যন্ত অব্যাহত থাকতে পারে। আগামী ২৪ ঘণ্টায় দেশের কুড়িগ্রাম, সিরাজগঞ্জ, পাবনা, কুষ্টিয়া, মানিকগঞ্জ,  রাজবাড়ী, ফরিদপুর ও শরিয়তপুর জেলার নিম্নাঞ্চলের বন্যা পরিস্থিতির অবনতি হতে পারে। পাশাপাশি আগামী ২৪ ঘণ্টায় যমুনা নদীর সিরাজগঞ্জ পয়েন্ট এবং ধলেশ্বরী নদীর এলাসিন পয়েন্টের পানি বিপৎসীমা অতিক্রম করতে পারে। তবে তিস্তা নদীর পানি স্থিতিশীল থাকতে পারে। কমতে পারে গঙ্গা ও সুরমা-কুশিয়ারা নদীগুলোর পানি, যা আগামী ২৪ ঘণ্টা অব্যাহত থাকতে পারে।

কেন্দ্র জানায়, ধরলা নদীর কুড়িগ্রাম পয়েন্টের পানি বিপৎসীমার ৭ সেন্টিমিটার ওপর দিয়ে প্রবাহিত হচ্ছে। এদিকে যমুনা নদীর মথুরা পয়েন্টের পানি গতকাল ছিল ৮ সেন্টিমিটার, আজ তা বেড়ে ১২ সেন্টিমিটার বিপৎসীমার ওপর দিয়ে প্রবাহিত হচ্ছে। এছাড়া যমুনার কাজিপুর পয়েন্টের পানি এখন ১ সেন্টিমিটার, আরিচা পয়েন্টের পানি ২ সেন্টিমিটার ওপর দিয়ে যাচ্ছে। এদিকে পদ্মা নদীর গোয়ালন্দ পয়েন্টের পানি ৪২ থেকে বেড়ে আজ ৪৯ সেন্টিমিটার ওপর দিয়ে প্রবাহিত হচ্ছে। নতুন করে এই নদীর সুরেশ্বর পয়েন্টের পানি বিপৎসীমার ৮ সেন্টিমিটার ওপর দিয়ে যাচ্ছে। অন্যদিকে নতুন করে আত্রাই নদীর বাঘাবাড়ি পয়েন্টের পানি ৯ সেন্টিমিটার ওপর দিয়ে যাচ্ছে। এদিকে গড়াই নদীর কামারখালি পয়েন্টের পানি ২০ সেন্টিমিটার থেকে কিছুটা কমে এখন বিপৎসীমার ১৯ সেন্টিমিটার ওপর দিয়ে প্রবাহিত হচ্ছে।

গত ২৪ ঘণ্টায় বন্যা পূর্বাভাস ও সতর্কীকরণ কেন্দ্রের স্টেশনগুলোর মধ্যে সর্বোচ্চ বৃষ্টি হয়েছে সিলেট স্টেশনে ৮১ মিলিমিটার। এছাড়া  পঞ্চগড় স্টেশনে ৬৩, লালাখালে ৭৮, কানাইঘাটে ৭৪, ডালিয়ায় ৫১ এবং লামা স্টেশনে ৩১ মিলিমিটার বৃষ্টি হয়েছে।

এছাড়া দেশের উজানে ভারতের স্টেশনগুলোর মধ্যে পাসিঘাটে ৫৯ মিলিমিটার বৃষ্টি রেকর্ড করা হয়েছে।

এদিকে বাংলাদেশের আবহাওয়া অধিদফতর জানায়, মৌসুমি বায়ুর অক্ষের বর্ধিতাংশ রাজস্থান, হরিয়ানা, উত্তর প্রদেশ, বিহার, পশ্চিমবঙ্গ ও বাংলাদেশের উত্তরাঞ্চল হয়ে আসাম পর্যন্ত বিস্তৃত রয়েছে। মৌসুমি বায়ু  বাংলাদেশের উপর কম সক্রিয় ও উত্তর বঙ্গোপসাগরে মাঝারি থেকে দুর্বল অবস্থায় আছে। এসবের প্রভাবে রংপুর, রাজশাহী, ঢাকা ময়মনসিংহ, চট্টগ্রাম ও সিলেট বিভাগের কিছু কিছু জায়গায় এবং খুলনা ও বরিশাল বিভাগের দুই এক জায়গায় অস্থায়ী ভাবে দমকা হাওয়াসহ বৃষ্টি বা বজ্রসহ বৃষ্টি হতে পারে। সেইসাথে দেশের  কোথাও কোথাও বিক্ষিপ্তভাবে মাঝারি ধরণের ভারী বৃষ্টি হতে পারে।

এদিকে নদী বন্দরগুলোর জন্য এক সতর্কবার্তায় বলা হয়, রংপুর, দিনাজপুর, রাজশাহী,  বগুড়া,  বরিশাল, কুমিল্লা ও নোয়াখালী অঞ্চলগুলোর উপর দিকে দক্ষিণ -দক্ষিণ পূর্ব দিক থেকে ঘণ্টায় ৪৫ থেকে ৬০ কিলোমিটার বেগে অস্থায়ী ভাবে দমকা বা ঝড়ো হাওয়াসহ বৃষ্টি বা বজ্রসহ বৃষ্টি হতে পারে। এজন্য এসব এলাকার বন্দরগুলোকে ১ নম্বর সতর্ক সংকেত দেখাতে বলা হয়েছে।

Posted by: | Posted on: August 17, 2021

সাগরে লঘুচাপ, ঢাকাসহ দক্ষিণাঞ্চলের কোথাও কোথাও ভারী বৃষ্টি

মৌসুমি বায়ুর সঙ্গে বঙ্গোপসাগরে সৃষ্ট  লঘুচাপের  প্রভাবে আকাশে সঞ্চারণশীল মেঘের সৃষ্টি হয়েছে। এ কারণে রাজধানী ঢাকাসহ দেশের দক্ষিণাঞ্চলে ভারী বৃষ্টি হচ্ছে। লঘুচাপটি সুস্পষ্ট লঘুচাপে পরিণত হলে এই বৃষ্টি আরও বাড়তে পারে এবং সারাদেশেই ভারী বৃষ্টি হতে পারে। নদী বন্দরের দিকে ঝড়ো হাওয়া বয়ে যেতে পারে বলে নদী বন্দরগুলোকে ১ নম্বর সতর্ক সংকেত দেখাতে বলা হয়েছে।

আবহাওয়াবিদ বজলুর রশিদ বাংলা ট্রিবিউনকে বলেন, ‘মৌসুমি বায়ু এবং লঘুচাপের প্রভাবে এই বৃষ্টি হচ্ছে। আগামী কয়েকদিন এই বৃষ্টি অব্যাহত থাকতে পারে। ঢাকাসহ দেশের দক্ষিণাঞ্চলে ভারী বৃষ্টি হতে পারে। নদীবন্দরে  ১ নম্বর সতর্ক সংকেত দেখাতে বলা হয়েছে। লঘুচাপটি যদি সুস্পষ্ট লঘুচাপে পরিণত হয়, তাহলে সংকেত বাড়তে পারে। তাই এখনও সমুদ্রবন্দরে সংকেত দেখাতে বলা হয়নি। ভারী বৃষ্টিরও সতর্কতা  এখনও দেইনি আমরা।’

আবহাওয়া অধিদফতর জানায়, পশ্চিম-মধ্য বঙ্গোপসাগরে সৃষ্টি হওয়া লঘুচাপটি এখন ভারতের উড়িষ্যা উপকূলে অবস্থান করছে। এটি আরও পশ্চিম,  উত্তর-পশ্চিম দিকে অগ্রসর হতে পারে। এদিকে মৌসুমি বায়ুর অক্ষের বর্ধিতাংশ হরিয়ানা, পাঞ্জাব, উত্তর প্রদেশ, বিহার, পশ্চিমবঙ্গ ও বাংলাদেশের উত্তরাঞ্চল হয়ে  উত্তর পূর্ব দিকে আসাম পর্যন্ত বিস্তৃত রয়েছে। এর একটি বর্ধিতাংশ উত্তর বঙ্গোপসাগরে অবস্থান করছে। মৌসুমি বায়ু  বাংলাদেশের ওপর মোটামুটি সক্রিয় ও উত্তর বঙ্গোপসাগরে মাঝারি থেকে প্রবল অবস্থায় আছে। এসবের প্রভাবে সিলেট, চট্টগ্রাম, খুলনা,  বরিশাল  বিভাগের অধিকাংশ জায়গায় এবং রংপুর, ময়মনসিংহ, রাজশাহী ও  ঢাকা  বিভাগের অনেক জায়গায় অস্থায়ীভাবে দমকা হাওয়াসহ বৃষ্টি বা বজ্রসহ বৃষ্টি হতে পারে। সেইসঙ্গে দেশের কোথাও কোথাও মাঝারি ধরনের ভারী থেকে অতিভারী বৃষ্টি হতে পারে।

গত ২৪ ঘণ্টায় সর্বোচ্চ বৃষ্টি হয়েছে সন্দ্বীপে ৭৬ মিলিমিটার। এছাড়া বিভাগীয় শহরগুলোর মধ্যে ঢাকায় ১৩, ময়মনসিংহে ৪, চট্টগ্রামে ২২, সিলেটে ২৫, খুলনায় ২ এবং বরিশালে ৬ মিলিমিটার বৃষ্টি হয়েছে।

এদিকে নদী বন্দরগুলোর জন্য এক সতর্কবার্তায় বলা হয়, রংপুর,  রাজশাহী,  বগুড়া, পাবনা, টাঙ্গাইল,  ঢাকা, ফরিদপুর, যশোর,  কুষ্টিয়া, খুলনা,  বরিশাল, পটুয়াখালী,  নোয়াখালী, কুমিল্লা, চট্টগ্রাম,  সিলেট ও কক্সবাজার অঞ্চলগুলোর ওপর দিকে দক্ষিণ ও দক্ষিণ-পূর্ব দিক থেকে ঘণ্টায় ৪৫ থেকে ৬০ কিলোমিটার বেগে অস্থায়ীভাবে দমকা বা ঝড়ো হাওয়াসহ বৃষ্টি বা বজ্রসহ বৃষ্টি হতে পারে। এজন্য এসব এলাকার বন্দরগুলোকে ১ নম্বর সতর্ক সংকেত দেখাতে বলা হয়েছে।