Main Menu

বিনা প্রতিদ্বন্দ্বিতায় ঢাবি শিক্ষক সমিতির সভাপতি রহমত উল্লাহ, সম্পাদক নিজামুল

ডেইলি প্রেসওয়াচ রিপোর্টঃ

ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় (ঢাবি) শিক্ষক সমিতির ২০২১ সালের কার্যকর পরিষদ নির্বাচনে বিনা প্রতিদ্বন্দ্বিতায় জয়ী পেয়েছেন আওয়ামীপন্থী শিক্ষকদের প্যানেল নীলদল৷ এতে সভাপতি পদে জয়ী হলেন আইন অনুষদের ভারপ্রাপ্ত ডিন অধ্যাপক মো. রহমত উল্লাহ এবং সাধারণ সম্পাদক পদে অধ্যাপক নিজামুল হক ভূইয়া৷
বিএনপি-জামায়াত সমর্থক শিক্ষকদের সংগঠন সাদা দল অংশগ্রহণ না করায় বিনা প্রতিদ্বন্দ্বিতায় আওয়ামী লীগ সমর্থক শিক্ষকদের সংগঠন নীল দল জয়ী হয়েছে।
তফশিল অনুযায়ী রবিবার (২০ ডিসেম্বর) রাত ৮টায় নির্বাচন পরিচালক অধ্যাপক জাকির হোসেন ভূঁইয়া প্রার্থীদের চূড়ান্ত তালিকা প্রকাশ করেন। এতে নীল দল ছাড়া অন্য কোনও দল মনোনয়নপত্র জমা না দেওয়ায় নীল দলের প্রার্থীরা বিনা প্রতিদ্বন্দ্বিতায় জয়ী হন।
এছাড়াও সহ-সভাপতি পদে অধ্যাপক সাবিতা রেজওয়ানা চৌধুরী, কোষাধ্যক্ষ পদে অধ্যাপক ড. মো. আকরাম হোসেন, এবং যুগ্ম-সম্পাদক পদে অধ্যাপক মো. আব্দুর রহিম জয়ী হয়েছেন।
এছাড়া ১০টি সদস্য পদে অধ্যাপক জিয়া রহমান, অধ্যাপক সাদেকা হালিম, অধ্যাপক এজেএম শফিউল আলম ভুইয়া, অধ্যাপক ইসতিয়াক মঈন সৈয়দ, অধ্যাপক সাইফুল ইসলাম, অধ্যাপক আমজাদ আলী, অধ্যাপক চন্দ্রনাথ পোদ্দার, অধ্যাপক আবু সারা শামসুর রউফ, অধ্যাপক মুহাম্মদ আব্দুল মঈন এবং অধ্যাপক নিসার হোসেন জয়ী হয়েছেন।
সোমবার (২১ ডিসেম্বর) বিকাল চারটায় আনুষ্ঠানিকভাবে নির্বাচনের ফলাফল ঘোষণা করবেন নির্বাচন পরিচালক অধ্যাপক জাকির হোসেন ভূঁইয়া। ৩০ ডিসেম্বর সকাল ১০টা থেকে বিকাল আড়াইটা পর্যন্ত ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় ক্লাবে এই নির্বাচন অনুষ্ঠিত হওয়ার কথা ছিল।
প্রতি বছরই ডিসেম্বরের শেষ সপ্তাহে একবছর মেয়াদী শিক্ষক সমিতির নির্বাচন অনুষ্ঠিত হয়ে থাকে। নির্বাচনে প্রধানত আওয়ামী লীগ সমর্থক শিক্ষকদের সংগঠন নীল দল এবং বিএনপি-জামায়াত সমর্থক শিক্ষকদের মধ্যে প্রতিদ্বন্দ্বিতা হয়। বিশ্ববিদ্যালয়ের বামপন্থি শিক্ষকদের সংগঠন গোলাপি দলও নির্বাচনে অংশ নেয়। তবে এবছর নির্বাচনে অংশ নিতে মনোননয়নপত্র সংগ্রহ করেনি গোলাপি দল।
গত ৭ ডিসেম্বর শিক্ষক সমিতির নির্বাচনের তফসিল ঘোষণা করা হলেও মহামারির মধ্যে তা স্থগিত রেখে পরিস্থিতি স্বাভাবিক হলে নির্বাচন অনুষ্ঠানের দাবি জানিয়েছিল সাদা দল। পরে ১৭ ডিসেম্বর মনোনয়নপত্র জমা না দিয়ে সংবাদ সম্মেলন করে সাদা দলের আহ্বায়ক অধ্যাপক ওবায়দুল ইসলাম নির্বাচনে অংশগ্রহণ না করার ঘোষণা দেন।






Related News