Main Menu

“বাঙালী তুই থুথু খা !” – জাঁ-নেসার ওসমান

“বাঙালী তুই থুথু খা !”
………. জাঁ-নেসার ওসমান

খবরের কাগজে মাননীয় বিচারপতি আদালতে রায় ঘোষণার সময় জানান, নিরপরাধ ব্যাক্তিকে নির্যাতনের কালে পানি চাইলে মুখে থুথু ছিটানোর কথা প্রকাশ করেন।
এটা চরম মানবধিকার লঙ্ঘন বলে তিনি মন্তব্য করেন।
অনেক নিন্দুক আবার পুলিশের নির্যাতনের বিবরণে, বানিয়ে বানিয়ে বা মিথ্যার আশ্রয় নিয়ে পানি চাইলে মুখে প্র¯্রাব করার অজুহাত তোলেন।
অমার কথা হলো, বাংলাদেশ প্রায় পঞ্চাশ বছর হলো স্বাধীণ হয়েছে। বাংলার মানুষ এখন সারা বিশ্বে মাথা উঁচু করে দাঁড়াতে শিখেছে। আজ বাংলাদেশের প্রধাণমন্ত্রী জননেত্রী শেখ হাসিনা,
মাদার অব্ হিউম্যানিটি উপাধিতে ভুষিত। মানবতার মহৎ আদর্শে আজ বাংলাদেশ শৈনেঃ শৈনেঃ
উন্নয়নের পথে এগিয়ে চলেছে। তখন বাংলার কিছু নিন্দুক জনতার পুলিশের নামে এসব মিথ্যে অপবাদ করতেই পারে।
কিন্তু হে আপামর বাংলার বাঙালী-সন্তান তোমাদিগের হয়তো জানা নেই যে, বিশ্বের প্রথম গণতন্ত্রের চারণভুমি মহাভারত মানে ইন্ডিয়ার প্রধাণমন্ত্রী শ্রী মোরারজী দেশাই নিজেই নিজের মূত্র পান করতেন।
মূত্র পান এমন খারাপ কিছু নয়। এই মূত্র পান করা ইন্ডিয়ার প্রধাণমন্ত্রী শ্রী মোরারজী দেশাই ভারতের সর্বোচ্চ রাষ্ট্রীয় সম্মান “পদ্মবিভুষণ” ও পাকিস্তানের সর্বোচ্চ সম্মান “নিশানে-ই-পাকিস্তান” লাভ করেছেন। তাই বলি মূত্র পানকে এমনি রূপে হেয় করবেন না। কারণ মূত্র পান সাস্থ্য ভালো রাখে।
তাই জনতার প্রিয় পুলিশ ভাই যদি মূত্র পান করাণ(বাস্তবে যা তিনি করাননি) তাহলে তো দোষের কিছু দেখিনা। থানায় নিরপরাধ লোকের সুস্বাস্থ্য কামনায় পুলিশ ভাই এমন কাজ করতেও পারেন।
গণতন্ত্রের চারণভুমি মহাভারত উপমহাদেশের রায়পুর গ্রমের শ্রী গোবিন্দ পন্ডিত একজন ইলেক্ট্রিক্যাল ইন্জিনিয়র, তিনি নিজ মূত্র নিজে প্রতিদিন পান করেন ও দীর্ঘায়ূ লাভ করেছেন।
এ-ছাড়া শোনা যায় যে, গণতন্ত্রের চারণভুমি মহাভারতের রায়পুরার অনেক স্বামী প্রতিদিন ( মাসের সাত দিন বাদে) তাঁরা, তাঁর নিজ স্ত্রীর মূত্র কোনো প্রকার পাত্র ছাড়াই সরাসরি পান করেন আর স্ত্রীও কোনো প্রকার পাত্র ছাড়াই সরাসরি স্বামীর মূত্র পান করেন। যা ভারতীয় শাস্ত্রে বহু বছরের পারম্পারিক পারিবারিক চিকিৎসা ব্যবস্থা বলে মনে করা হয়।
গণতন্ত্রের চারণভুমি মহাভারত উপমহাদেশের রায়পুর গ্রমের শুধু ইলেক্ট্রিক্যাল ইন্জিনিয়র নন
২০১৫ সালের বিহারের মন্ত্রী সভার সড়ক ও পরিবহণ মন্ত্রী শ্রী নিতিন গাড়করও মূত্র পানে অভ্যস্ত ছিলেন। ফলে বিহারের রাস্তাঘাটের প্রভুত উন্নয়ন হয়। বিশ্বে, অন্যান্ন দেশও বিহারের মন্ত্রী সভার সড়ক ও পরিবহণ মন্ত্রী শ্রী নিতিন গাড়করের মত সবাই মূত্র পানের বিষয়টি ভেবে দেখতে পারেন।
আর একবার ভারতের কিশোরী স্কুলের মেয়েরা রাত্রে ঘুমের মাঝে হোষ্টেলের বিছানায় প্রস্রাব করে। পরদিন হোষ্টেল ওর্য়াডেন ওই মেয়ে কজনকে প্রস্রাব চাঁটান এবং কিছুদিনের মাঝেই ওই মেয়েদের বিছানায় প্রস্রাব করা বন্ধ হয়ে যায়।
গণতন্ত্রের চারণভুমি মহাভারত উপ-মহাদেশের অনেক গ্রামে বহু দরিদ্র পরিবার অসুখ বিসুখের ভয়ে নিয়মিত মূত্র পান করেন।
আর শুধু গণতন্ত্রের চারণভুমি মহাভারত কেন?
আমেরিকার বিশ্ব বিখ্যাত গায়িকা ম্যাডোনা একবার অসুখে পড়লে, বহু চিকিৎসাতেও ম্যাডোনা ভালো হচ্ছিলোনা। তখন ম্যাডোনা ভারতীয় বন্ধুর পরামর্শে নিজ মূত্র পান, চিকিৎসা গ্রহণের ফলে আরোগ্য লাভ করেন।
তাই বলি বাঙালী, তোমাদিগের যা অবস্থা, তাতে খামোখা পুলিশ ভাইকে দোষারোপ করোনা। তোমারা যাকে মানবতা বিরোধী বলছো তার মাঝেই তোমাদিগের মঙ্গল নিহিত রয়েছে।
তাই বলি মন খারাপ না করিয়া “বাঙালী তুই থুথু খা!! বাঙালী তুই মুতু খা!! তাহলে হয়তো সমাজের অনেক রোগ বালাই ভালো হয়ে যাবে। তোরাও ভালো হবি।

জাঁ-নেসার ওসমানঃ চলচ্চিত্র পরিচালক, সমাজচিন্তাবিদ গ্রন্থকার ও প্রাবন্ধিক।