বঙ্গবন্ধু বাঙালী জাতির অধিকার প্রতিষ্ঠায় আমৃত্যু সংগ্রাম করে গেছেন : ড. কলিমউল্লাহ

Posted by: | Posted on: August 20, 2021

ডেইলি প্রেসওয়াচ রিপোর্টঃ

জাতীয় নির্বাচন পর্যবেক্ষণ পরিষদের (জানিপপ) প্রতিষ্ঠাতা চেয়ারম্যান প্রফেসর ডক্টর মেজর নাজমুল আহসান কলিমউল্লাহ বিএনসিসিও বলেছেন, জাতির  পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান বাঙালী জাতির অধিকার প্রতিষ্ঠায় আমৃত্যূ সংগ্রাম করে গেছেন। তিনি পশ্চিম পাকিস্তানের সকল প্রকার বৈষম্যের বিরুদ্ধে ঐক্যবদ্ধ আন্দোলন গড়ে তোলেন। তিনি বাঙালী জাতির অধিকার প্রতিষ্ঠায় যুগপৎ আন্দোলন পরিচালনা করে বাংলাদেশকে স্বাধীন রাষ্ট্র হিসেবে বিশ্বের মানচিত্রে স্থান করে দেন।

বৃহস্পতিবার (১৯ আগস্ট) জাতীয় শোক দিবস উপলক্ষ্যে ওয়েবেনার জুমে অনুষ্ঠিত আলোচনা সভায় সভাপতির বক্তব্যে এ কথা বলেন প্রফেসর ড. কলিমউল্লাহ।

বক্তব্যে প্রফেসর ডক্টর নাজমুল আহসান কলিমউল্লাহ জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানসহ ১৫ আগস্টে নিহত সকল শহীদের রুহের মাগফেরাত কামনা করেন।

বৃহস্পতিবার (১৯ আগস্ট) জাতীয় শোক দিবস উপলক্ষ্যে ওয়েবেনার জুমে অনুষ্ঠিত আলোচনা সভায় জানিপপ’র প্রতিষ্ঠাতা চেয়ারম্যান প্রফেসর ডক্টর মেজর নাজমুল আহসান কলিমউল্লাহ বিএনসিসিও

আলোচনায় সূচনা বক্তব্য প্রদান করেন অর্ণব মুর্শেদ। তিনি বঙ্গবন্ধু এবং বঙ্গমাতাসহ সকল শহীদের আত্নার মাগফেরাত কামনা করেন।

শোকাবহ আগস্ট উপলক্ষ্যে ভার্চুয়াল প্লাটফর্ম জুমে অনুষ্ঠিত আলোচনা সভায় মূল আলোচক হিসেবে বক্তব্য উপস্থাপন করেন কলামিস্ট, বঙ্গবন্ধু গবেষক এবং মুক্তিযোদ্ধা সংহতি পরিষদের মহাসচিব হাসানুজ্জামান। তিনি বলেন, বঙ্গবন্ধু হত্যাকান্ডের পেছনে খন্দাকার মুশতাক এবং সেনাশাসক জিয়াউর রহমান জড়িত ছিলেন। যা ছিলো অত্যন্ত দুঃখজনক। বঙ্গবন্ধুর নাম ব্যবহারে সংশ্লিষ্টদের প্রতি যত্নবান হওয়ার আহ্বান জানান তিনি।

ইউএন ডিজএবিলিটি হিউম্যান রাইটস্ চ্যাম্পিয়ন আব্দুস সাত্তার দুলাল বলেন, বঙ্গবন্ধু মানুষের জন্য আন্দোলন সংগ্রাম পরিচালনা করেছেন। তিনি মানুষকে প্রকৃতভাবে ভালবাসতেন। তাঁর আদর্শ ধারণ করে বাঙালী জাতিকে সামনে অগ্রসর হতে হবে। বঙ্গবন্ধু সৈনিক মাসুদ মিল্টন বলেন, বঙ্গবন্ধুকে হত্যার মধ্যে দিয়ে ঘাতকদের দীর্ঘদিনের ষড়যন্ত্র বাস্তবে রূপ লাভ করেছে। খন্দাকর মুশতাক সরকারে আওয়ামীলীগ নামধারী ২৫ জন ব্যক্তি যোগদানের মাধ্যমে জাতিকে কলঙ্কিত করেছে। তিনি বঙ্গবন্ধুর খুনীদের বিচার দাবি করেন।

দিপু সিদ্দিকী, বিভাগীয় প্রধান ও সহযোগী অধ্যাপক

দিপু সিদ্দিকী,সহযোগী অধ্যাপক ও বিভাগীয় প্রধান

 

 

রয়্যাল ইউনিভার্সিটি অব ঢাকা ‘র এর বিভাগীয় প্রধান ও সহযোগী অধ্যাপক দিপু সিদ্দিকী বলেন, বঙ্গবন্ধু শিক্ষা ব্যবস্থায় আমুল পরিবর্তন করেন। তাঁর শিক্ষা দর্শন ছিলো মানবপ্রেম, মূল্যবোধ এবং সংস্কৃত মনস্ক। বঙ্গবন্ধু গবেষক এম এম আসাদুজ্জামান নূর বলেন, বঙ্গবন্ধুর লেখা ও ভাষণগুলো আমাদের সবার জানা উচিত।

গবেষক সাজেদা হক বলেন, বঙ্গবন্ধু আদর্শ ধারণ করতে হলে আমাদেরকে নিজস্ব দায়িত্ব নিষ্ঠার সাথে পালন করতে হবে। জানিপপ ন্যাশনাল ভলেনটিয়ার, লেখক, ও গবেষক

লেখক, ও গবেষক মোহাম্মদ হাবিবুর রহমান

মোহাম্মদ হাবিবুর বলেন, ৫২-এর ভাষা আন্দোলন থেকে শুরু করে ৭০ এর নির্বাচন পর্যন্ত বঙ্গবন্ধুর নিয়মতান্ত্রিক আন্দোলন পরিচালনা করে বাংলাদেশ একটি স্বাধীন রাষ্ট্রে পরিণত করেছিলেন।

জানিপপ ন্যাশনাল ভলেনটিয়ার মো. আরিফুল ইসলাম বলেন, বাঙালী জাতির জন্য বঙ্গবন্ধু ও বঙ্গমাতার অবদান অপরিসীম। তিনি বলেন, আগামীর বাংলাদেশ বিনির্মাণে জাতিকে ঐক্যবদ্ধ হয়ে কাজ করার পাশাপাশি বাংলাদেশকে পরিচালনার নিমিত্তে জননেত্রী শেখ হাসিনার হাতকে শক্তিশালী করতে হবে। জানিপপ ন্যাশনাল ভলেনটিয়ার ও গবেষক নাজমুল হক শ্রেয়াস বলেন, বঙ্গবন্ধু জাতি ধর্ম বর্ণ নির্বিশেষে মানুষকে মানুষ হিসেবে মর্যাদা দিতেন।  জানিপপ ন্যাশনাল ভলেনটিয়ার ও সাংবাদিক ইঞ্জিনিয়ার মোঃ মনজুরুল ইসলাম বলেন, বঙ্গবন্ধু বাংলাদেশের সাথে মিশে গেছেন। তিনি ১৫ আগস্টে নিহত সকল শহীদের আত্নার মাগফেরাত কামনা করেন ।

এছাড়াও অন্যান্যদের মধ্যে বক্তব্য উপস্থাপন করেন জানিপপ ন্যাশনাল ভলেনটিয়ার ও বেগম রোকেয়া বিশ্ববিদ্যালয়ের লোকপ্রশাসন বিভাগের প্রভাষক মোহাম্মদ মুজাহিদুল ইসলাম, জানিপপ ন্যাশনাল ভলেনটিয়ার যথাক্রমে মো. খাদেমুল ইসলাম, আফসানা সনি, ও রায়হান আহমেদ।