Main Menu

ডুবে যাওয়া জাহাজের ১২ নাবিককে উদ্ধার করেছে বাংলাদেশ বিমান বাহিনী

প্রেসওয়াচ রিপোর্টঃ

বঙ্গোপসাগরে ডুবে যাওয়া পাথরবোঝাই লাইটার জাহাজের ১২ নাবিককে উদ্ধার করেছে বাংলাদেশ বিমান বাহিনীর দুটি হেলিকপ্টার।

বুধবার (২৬ মে) সাগরে কয়েক ঘণ্টা খোঁজাখুঁজির পর এমভি সানভ্যালি-৪ নামের লাইটার জাহাজটি সন্ধান পায় বিমানবাহিনীর সদস্যরা। পরে সেখান থেকে ১২ নাবিককে উদ্ধার করা হয় বলে সাংবাদিকদের জানিয়েছেন বাংলাদেশ বিমান বাহিনীর কমান্ড্যান্ট ক্যাপ্টেন আবু সালেহ মোহাম্মদ মান্নাফী।

১২ নাবিককে উদ্ধার করে প্রথমে বিমান বাহিনীর তত্ত্বাবধানে জহুরুল হক ঘাঁটিতে আনা হয়। এরপর সেখানে তাদের স্বাস্থ্য পরীক্ষা করা হয়। চিকিৎসা শেষে তাদের জাহাজের মালিকের কাছে হস্তান্তর করা হবে।

এর আগে গত ২৫ মে রাতে এমভি সানভ্যালি-৪ লাইটার জাহাজটি চট্টগ্রাম বন্দর থেকে ভাঙা পাথর নিয়ে ঢাকায় উদ্দেশ্যে রওনা করে। ঢাকা যাওয়ার পথে গভীর রাতে উত্তাল ঢেউয়ের কবলে পড়ে বঙ্গোপসাগরে ডুবে যায়।

 উদ্ধার নাবিকরা জানিয়েছেন, উত্তাল ঢেউয়ের কারণে দুইটি হ্যাচ ভেঙে জাহাজটিতে পানি ঢুকে যায়। এরপর তলা ফেটে জাহাজটি ধীরে ধীরে ডুবতে থাকে। জাহাজটি যেখানে ডুবে যাচ্ছিল আমরা সেটি নিশ্চিত করে বলতে পারছিলাম না। যে কারণে এক পর্যায়ে আমরা বাঁচার আশায় ছেড়ে দিয়েছি। কিন্তু বিমানবাহিনীর দুটি হেলিকপ্টার অনেক কষ্ট করে আমাদের অবস্থান শনাক্ত করে। পরে তারা ঝুঁকি নিয়ে আমাদের উদ্ধার করে।

ক্যাপ্টেন আবু সালেহ মোহাম্মদ মান্নাফী সাংবাদিকদের বলেন, মঙ্গলবার বিকেলে জাহাজটি ঢাকার উদ্দেশ্যে যাত্রা করে। কিন্তু রাত ১১টার দিকে সাগরে প্রবল ঢেউয়ের কবলে পড়ে জাহাজের বিভিন্ন অংশ ভেঙে যায়। এসময় জাহাজে থাকা নাবিকরা তাদের উদ্ধারে আকুতি জানান। এমন খবরে বুধবার সকালে উদ্ধার অভিযানে যায় বাংলাদেশ বিমান বাহিনীর দুইটি হেলিকপ্টার। এরপর কয়েক ঘণ্টা অভিযান চালিয়ে ১২ নাবিককে উদ্ধার করা হয়।

তিনি আরও জানান, জাহাজ ডুবে যাওয়ার পর দীর্ঘ ১৪ ঘণ্টা নাবিকরা সাগরে ভাসছিল। তখন সাগরে ৬৫ থেকে ৭০ কিলোমিটার বেগে বাতাস প্রবহমান ছিল। যে কারণে আমাদের অনেক কিছু বিবেচনায় নিয়ে অভিযান পরিচালনা করতে হয়।






Related News