Main Menu

ধিক্কার নিজেরে —জাঁ-নেসার ওসমান

ঢাকা ,১৫ আগস্ট,২০২০।ডেইলি প্রেসওয়াচঃ জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের ৪৫তম শাহাদাতবার্ষিকীতে জাঁ-নেসার ওসমান’র ভাবনা

‘ধিক্কার নিজেরে’   —জাঁ-নেসার ওসমান

“কি সুন্দর মালা আজি পরিয়াছো গলে প্রচেত…”

মেঘনাদ বধকাব্যে মহাকবি মাইকেল মধুসূদন দত্তের রাজা রাবণের উক্তি।
“কি সুন্দর মালা আজি পরিয়াছো গলে প্রচেত…” সমুদ্রের প্রতি ধিক্কার জানিয়েছিলেন রাজা রাবণ। রাজা রাবণের আক্ষেপ ছিলো, যে সমুদ্র নার্গিস, সিডর, আম্পানের মতো মহাপ্রলয়ের সৃষ্টিকওে সেই সমুদ্র আজ কতোগুলো মর্কটের হাতে নাজেহাল!
কন্যাকুমারী হতে শ্রীলংকা পর্যন্ত পাথর ফেলে ফেলে সেতু নির্মাণ করে রাজা রাম ধেয়ে আসছেন সীতা উদ্ধারে।
আজ জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের পঁয়তাল্লিশতম নৃশংস হত্যাকান্ডের দিন মনে হচ্ছে যেন আমি আবার বাংলাদেশে সেই মহাকবি মাইকেল মধুসূদন দত্তের রাজা রাবণের উক্তির প্রতিধ্বনি শুনি।
“কি সুন্দর মালা আজি পরিয়াছো গলে হে বীরবাঙালি…”
যেই বাঙালি পাকিস্তানি বর্বরতার বিরুদ্ধে জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের নেতৃত্বে খালি গায়ে খালি পায়ে বিশ্বের তুখোড় সৈন্য বাহিনিকে পরাস্ত করতে পারে, সেই বাঙালী আজ নির্জীব!
ধুঁকে ধুঁকে মরা ক্লীব লিঙ্গের মতো দিনাতিপাত করছেন।
কতগুলো আদম সন্তান কি এক ইউটিউবে মাঝে মাঝে তাদের নরম গরম মশলা মেশানো বক্তব্য জাহির করে চোলাই মদখেয়ে চোঁয়া ঢেকুর তোলারমতো তৃপ্তিকুড়াচ্ছেন।

জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের ৪৫তম শাহাদাতবার্ষিকী

 

লেখক – জাঁ-নেসার ওসমান, গবেষক,সমাজ চিন্তাবিদ চলচ্চিত্র নির্মাতা ।

ভাই তোমরা ওই মার্ক জুকারবার্গের কিছু পয়সাদিয়ে বাঙালীর কি বিপ্লব আনছো তা আল্লাহ্ মাবুদই জানেন।মুখপোড়া বীরহনুমান যেমন লংকা কান্ডে শ্রীলংকায় আগুন দিয়ে ছারখার করেছিলো আজও তেমনি কতিপয় অসাধু
বাঙালী মর্কট বাঙালীর মুখে কলঙ্ক মাখিয়ে বাংলাদেশটাকে বসবাসের অযোগ্য করে তুলছে!!
জানিনা নীতি নির্ধারকরা কার মুখোপানে চেয়ে সব, মুখ বুঁজেসহ্য করছেন।
রামের মর্কট বাহিনী একটি অন্যায়ের বিরুদ্ধে অপহৃতা সীতা দেবীকে উদ্ধারের জন্য লড়াইয়ে সামিল হয়েছিলো।
হত্যা করেছিলো কুম্ভকর্নকে, বধ করেছিলো মেঘনাদকে,পরাজিত করেছিলো রাবণকে, সেই মর্কটরা আজ কোথায়!!
আজকের বান্দর, মাদারীর হাতের ডুগডুগির তালে, গলায়বাঁধা দড়ির টানে ডিগবাজী দেয় দোল খায়।
কোনো অন্যায়ের প্রতিবাদে এগোয়না।
কারণ দড়িবাঁধা শৃঙ্খলিত বানর আর কতো দুর যেতে পারে।
আর এদিকে বাংলার ঘওে ঘওে বাংলার বিবেক বলে যারা আখ্যায়িত-তারা সব করোনার ছোবলে, কোমর ভাঙা রাস্তার খেঁকি সারমেয়র ন্যায় টেলিভিশেন দেখে সময় কাটাচ্ছেন।
আর এসি রুমে টক্ শো’তে বাঘা বাঘা শব্দবান মেরে বাংলার বিবেককে জাগ্রত করায় ব্যাস্ত।
এই সব শব্দভেদী বান কালের গর্ভে ধীরে ধীরে ইথারের মাঝে ছড়িয়ে যেতে যেতে শব্দবান এখন বাতকর্মে রুপান্তরিত হয়েছে।
বাতকর্ম বিরক্তি উৎপাদন করেমাত্র কিন্তু রাজা দশরথের শব্দভেদী বানের মতো কোনো শত্রুর বিনাশ করতে পারে না।
আজ দশভুজা বাংলাদেশে অন্যায় বিনাশ করতে এসে নিজেই দশদিন পর মর্ত্য ত্যাগ করেন, ফলে একাদশ দিন থেকে শুরু হয় রাক্ষস চন্ডালের ত্রাসের রাজত্ব।
এই ত্রাশের ভুবনে কে করবে আমাদের সাধারণের রক্ষা!
কে আজ রক্ষা কর্তার ভুমিকায় অবতীর্ণ হবেন!!
আজ বাংলার তাবৎ আপমর জনসাধারণকে বলতে হয়- হে বীর বাঙালী- হে জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুরের
লক্ষ লক্ষ কোটি কোটি অনুসারিরা আজ আপনারা কেন জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের স্বপ্ন পুরণে ব্যর্থ হচ্ছেন, বলবেন? কেন জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের সোনার বাংলা গড়তে পারছেন না, বলবেন?
আপনাদের সাথে রয়েছেন জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের সুযোগ্য কন্যা মাদার অব হিউম্যানিটি, জননেত্রী প্রধানমন্ত্রি শেখ হাসিনা।
তারপরও যদি আপনারা জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের স্বপ্ন পুরণে ব্যর্থ হোন তাহলে নিজেরে ধিক্কার দেয়া ছাড়া আর কিইবা করার আছে, বলেন ??
তাই ধিক্কার দেই নিজেরে!!

লেখক – জাঁ-নেসার ওসমান, গবেষক,সমাজ চিন্তাবিদ  চলচ্চিত্র  নির্মাতা ।






Related News