nbr

জাতীয় রাজস্ব বোর্ডের (এনবিআর) সূত্রমতে, এবারের কর রিটার্ন দাখিল প্রবৃদ্ধির হার ৬.৯০ শতাংশ। এছাড়া সময় বৃদ্ধির আবেদন জমা পড়েছে তিন লাখ ৬২ হাজার ২৮২টি। এর মধ্যে ই-রিটার্ন দাখিলের সংখ্যা ৬১ হাজার ২০৩টি। যদিও দেশে বর্তমানে ৭০ লাখের বেশি কর শনাক্তকারী নম্বরধারী (টিআইএন) ব্যক্তি রয়েছেন।

২০২০-২১ করবর্ষে ডিসেম্বর পর্যন্ত প্রায় ২০ লাখ ৪২ হাজার করদাতা আয়কর রিটার্ন দাখিল করেছিলেন। রিটার্ন দাখিলের জন্য অতিরিক্ত সময় চেয়ে আবেদন জমা পড়েছিল ১ লাখ ৫০ হাজার। সবমিলিয়ে গত অর্থবছরে ২৪ লাখ করদাতা আয়কর রিটার্ন দাখিল করেছিলেন বলে জানিয়েছে এনবিআর।

এবারের আয়কর রিটার্ন জমা দেওয়ার সর্বশেষ তারিখ ছিল ৩১ ডিসেম্বর পর্যন্ত। কিন্তু ৩১ ডিসেম্বর এবং ১ জানুয়ারি সরকারি ছুটির দিন হওয়ায়, কর রিটার্নের সর্বশেষ তারিখ ২ জানুয়ারি পর্যন্ত ধার্য করা হয়।

আরও পড়ুন- আয়কর রিটার্ন জমার সময় বাড়াবেন কীভাবে?

প্রসঙ্গত, করোনাসময়ে স্বাস্থ্য নিরাপত্তার কথা ভেবে এবার কর মেলা অনুষ্ঠিত হয়নি। তবে সারা দেশে ৩১টি কর অঞ্চলে মেলার মতো করেই কর সংক্রান্ত সকল সেবা দেওয়া হয়েছে। এছাড়াও অনেকে অনলাইনের মাধ্যমে তাদের রিটার্ন জমা দিয়েছেন বলে এনবিআর সূত্রে জানা গেছে।