p11

বৃহস্পতিবার (৩০ ডিসেম্বর) রাজধানীর রাজারবাগে বাংলাদেশ পুলিশ অডিটোরিয়ামে আয়োজিত এক অনুষ্ঠানে মন্ত্রী এসব কথা বলেন। কোভিড-১৯ নিয়ন্ত্রণে জীবনের ঝুঁকি নিয়ে দায়িত্ব পালনকারী পুলিশ সদস্যদের কাজের স্বীকৃতিস্বরূপ করোনা ইনসিগনিয়া আনুষ্ঠানিকভাবে উন্মোচন উপলক্ষে এ অনুষ্ঠানের আয়োজন করা হয়।

করোনা ইনসিগনিয়া আনুষ্ঠানিকভাবে উন্মোচনের পর আইজিপি স্বরাষ্ট্রমন্ত্রীকে ইনসিগনিয়া পরিয়ে দেন। পরে স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী একে একে আইজিপি, অতিরিক্ত আইজি এবং পুলিশ সদস্যদের করোনা ইনসিগনিয়া পরিয়ে দেন।

এরপর পুলিশ সদস্যদের উদ্দেশে স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী বলেন, আপনারা আবারও প্রমাণ করলেন পুলিশ জনগণের পাশে থাকে, ভবিষ্যতেও পাশে থাকবে। করোনা কীভাবে আমাদের পর্যুদস্ত করেছে তা আপনারা দেখেছেন। প্রধানমন্ত্রীর দূরদর্শী নেতৃত্বে দেশে করোনা মোকাবিলায় লকডাউন, কোয়ারেন্টাইন বাস্তবায়ন, অসুস্থ রোগীকে হাসপাতালে পৌঁছানো, তাদের বাড়িতে খাবার পৌঁছে দেওয়া, করোনায় কেউ মারা গেলে যখন আত্মীয়-স্বজনরা মরদেহ ফেলে চলে গেছেন তখন তার দাফন ও সৎকার করা, এমনকি কৃষকের ধান কাটার ব্যবস্থাও করেছে পুলিশ।

আরও পড়ুন: খালেদা জিয়ার বিদেশ যাওয়ার আইনি সুযোগ নেই: স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী

করোনা মোকাবিলায় কেন্দ্রীয় পুলিশ হাসপাতালের অবদানের কথা উল্লেখ করে মন্ত্রী বলেন, করোনা রোগীদের চিকিৎসায় যখন দেশের অনেক বড় বড় হাসপাতাল কিংকর্তব্যবিমূঢ় হয়ে পড়েছে, সেখানে পুলিশ হাসপাতাল করোনা চিকিৎসায় অভাবনীয় সাফল্য দেখিয়েছে। তারা শুধু পুলিশ সদস্যদের নয়, বিভিন্ন শ্রেণি-পেশার সাধারণ মানুষকেও চিকিৎসা সেবা দিয়েছেন।

এসময় করোনাকালে জনগণের পাশে দাঁড়িয়ে তাদেরকে সেবা দেওয়ার কাজে নেতৃত্ব দেওয়ায় আইজিপি ও পুলিশ সদস্যদের বিশেষ ধন্যবাদ জানান আসাদুজ্জামান খান কামাল।