pm

বৃহস্পতিবার (২৮ অক্টোবর) বিকেলে প্রধানমন্ত্রীর ত্রাণ ভাণ্ডারে অনুদান গ্রহণ অনুষ্ঠানে শেখ হাসিনা বলেন, আগামী বছরের মাঝামাঝি সময়ের মধ্যেই দেশের সব নাগরিককে টিকার আওতায় নিয়ে আসা হবে।

আর ক’দিন বাদেই শীত নামবে বাংলার প্রকৃতিতে। আসন্ন এই ঋতুতে যাতে ছিন্নমূলের মানুষগুলোকেও উষ্ণতায় রাখা সম্ভব হয়। তাই কিছুটা আগে ভাগেই প্রস্তুতি সরকার প্রধানের কার্যালয় ঘিরে।

বৃহস্পতিবার বিকেলে প্রধানমন্ত্রীর ত্রাণ ভাণ্ডারে বাংলাদেশ অ্যাসোসিয়েশন অব ব্যাংকস-বিএবিসহ বিভিন্ন প্রতিষ্ঠানের পক্ষ থেকে অনুদান দেওয়া হয়। এই অনুষ্ঠানে গণভবন থেকে ভিডিও কনফারেন্সে যুক্ত ছিলেন সরকার প্রধান শেখ হাসিনা।

প্রধানমন্ত্রীর পক্ষে এ সময়, বিভিন্ন প্রতিষ্ঠানের পক্ষ থেকে দেওয়া নগদ ১০ লাখ টাকা এবং ২৬ লাখ ৪৫ হাজার কম্বল গ্রহণ করেন কার্যালয়ের মুখ্যসচিব ড. আহমদ কায়কাউস।

আরও পড়ুন: স্কুলশিক্ষার্থীদের টিকা দেওয়ার তারিখ ঘোষণা

সংক্ষিপ্ত এই আয়োজনে মানবতার সেবায় এগিয়ে আসার জন্য বিএবিসহ সংশ্লিষ্ট সব দাতাদের ধন্যবাদ জানান প্রধানমন্ত্রী। তিনি বলেন, বেসরকারি খাত উন্মুক্তকরণের সুবিধা ভোগ করছে দেশ।

করোনা পরিস্থিতি যাতে আবারও জটিল আকার ধারণ না করে, সেজন্য দেশবাসীকে সর্বোচ্চ সতর্কতা অবলম্বনের আহ্বান জানান শেখ হাসিনা।

তিনি বলেন, শীত আসছে। এ সময় আমাদের সতর্কতা অবলম্বন করতে হবে। তাহলে করোনা আমাদেরকে আর কাবু করতে পারবে না। টিকা কর্মসূচিও চলছে। আসছে বছরের মাঝামাঝির মধ্যেই আমরা সবাইকে টিকা দিতে পারব।

টিকা নেওয়ার পরও সর্বত্র স্বাস্থ্যবিধি মেনে চলতে সব শ্রেণি-পেশার মানুষকে একযোগে কাজ করার কোনো বিকল্প নেই বলেও জানান প্রধানমন্ত্রী।