ec

ডেইলি প্রেসওয়াচ রিপোর্ট/মাহবুব বাশারঃ  ১৫ আগস্ট।জাতীয় শোক দিবস।স্বাধীনতার স্থপতি,মুক্তিযুদ্ধের সর্বাধিনায়ক,জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের ৪৬তম শাহাদত বার্ষিকী।জাতি-ধর্ম-বর্ণ নির্বিশেষে বাঙালি জাতি গভীর শ্রদ্ধার সঙ্গে দিবসটি পালন করে ।করোনা ভাইরাস এর কারণে স্বাস্থ্যবিধি অনুসরণ করে জাতীয় শোক দিবসের কর্মসূচি পালন করা হয়। এতে ডিএসসিসি ৭৩ নং ওয়ার্ড আওয়ামীলীগ নেতা সহ বিভিন্ন স্তরের বিপুল সংখ্যক লোকজন উপস্থিত হন।  এছাড়াও জাতীয় সংসদ সচিবালয়ের উপ-সচিব একে এম কিবরিয়া মজুমদার। জনাব মজুমদার ,হযরত আলী,জিয়া উদ্দিন জিয়া, নজরুল ইসলাম সহ গণ্যমান্যজন ও মানিকদিয়া ক্লাব কর্মকর্তাবৃন্দ অংশগ্রহণ করেন।
বক্তারা ,১৯৭৫ সালের ১৫ আগস্ট বাংলাদেশের স্থপতি, হাজার বছরের শ্রেষ্ঠ বাঙালি জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের প্রতি বিনম্র শ্রদ্ধা জানিয়ে বলেন,১৫ আগস্ট জাতীয় শোক দিবস। বাঙালির জীবনে এক শোক বিধুর দিন। এ হত্যাকাণ্ড বাঙালী জাতির জন্য ছিলো অপূরণীয় ক্ষতি। বঙ্গবন্ধু নিজে কষ্ট করে বাঙালী জাতির জীবনযাত্রার মান উন্নয়নে পাঞ্জেরীর ভূমিকা পালন করেন। বঙ্গবন্ধু ছিলেন দেশ ও জাতির প্রতিমূর্তি। বঙ্গবন্ধু দেশকে সমৃদ্ধ করার জন্য আজীবন কাজ করে গেছেন।বাঙালী জাতিকে নিজ দায়িত্ব ও কর্তব্য পালনের মাধ্যমে বঙ্গবন্ধুর প্রতি সম্মান প্রদর্শন করতে হবে। তাহলেই বঙ্গবন্ধুর প্রতি প্রকৃত সম্মান প্রদর্শিত হবে।

শোক পালনের অংশ হিসেবে দরিদ্র জনগণের মাঝে খাদ্য বিতরণ, দোয়া ও গণভোজের আয়োজন করা হয় । অনুষ্ঠানের সার্বিক তত্ত্বাবধান ও পরিচালনা করেন নজরুল ইসলাম ।