25 edit

ড. কলিমউল্লাহ বলেছেন, জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু বাকশাল গঠনের মধ্য দিয়ে জাতিকে ঐক্যবদ্ধ করতে চেয়ে ছিলেন। মঙ্গলবার, মুজিব শতবর্ষ উপলক্ষ্যে জানিপপ কর্তৃক আয়োজিত বর্ষকালব্যপী জুম ওয়েবিনারে আলোচনা সভার ১৭৭তম পর্বে সভাপতির বক্তব্যদান কালে ড. কলিমউল্লাহ একথা বলেন।    

জানিপপ-এর প্রতিষ্ঠাতা চেয়ারম্যান প্রফেসর ডক্টর মেজর নাজমুল আহসান কলিমউল্লাহ, বিএনসিসিও’র সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত এ আলোচনা সভায় প্রধান অতিথি হিসেবে সংযুক্ত ছিলেন ইউএন ডিজএ্যাবিলিটি রাইটস্ চ্যাম্পিয়ন আবদুস সাত্তার দুলাল এবং বিশেষ অতিথি হিসেবে সংযুক্ত ছিলেন রংপুর মহিলা আওয়ামীলীগের সভাপতি মোসাঃ আর্জিনা খানম ও শিক্ষা ক্যাডারের সহযোগী অধ্যাপক ও গবেষক মোঃ আবু সালেক খান।
সভায় গেস্ট অব অনার হিসেবে সংযুক্ত ছিলেন ছোলমাইদ উচ্চ বিদ্যালয়ের সহকারি প্রধান শিক্ষক আফরোজা বেগম নীলা এবং মুখ্য আলোচক হিসেবে নীলফামারীর জলঢাকা থেকে পিএইচডি গবেষক ফাতেমা-তুজ-জোহরা লিমা।
সভাপতির বক্তৃতায় ড. কলিমউল্লাহ বলেন, জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু বাকশাল গঠনের মধ্য দিয়ে জাতিকে ঐক্যবদ্ধ করতে চেয়ে ছিলেন।
প্রধান অতিথির বক্তৃতায় আব্দুস সাত্তার দুলাল বলেন, বঙ্গবন্ধু স্পষ্টভাষী ছিলেন। বর্তমান জমানায় স্পষ্ট ভাবে সত্য কথা উচ্চারণ করার শক্তি সম্পন্ন মানুষের সংখ্যা কমে যাচ্ছে। যা রীতিমতো উদ্বেগজনক।
আর্জিনা বেগম বলেন, বঙ্গবন্ধু তৃণমূল থেকে সর্বোচ্চ স্তর পর্যন্ত দুর্নীতিমুক্ত শাসন ব্যবস্থা কায়েম করতে চেয়েছিলেন।
গবেষক মোঃ আবু সালেক খান বলেন,আজ ঐতিহাসিক ২৫ জানুয়ারি বঙ্গবন্ধুর দ্বিতীয় বিপ্লবের দিন,এই বিপ্লব কার্যকর করতে পারলে আজ বাঙালি জাতিকে উন্নয়নের মহাসড়কে অবস্থান করতে হতো না,অনেক আগেই বাঙালি উন্নয়নের গন্তব্যে পৌঁছে যেত।
আফরোজা বেগম নীলা বলেন,বঙ্গবন্ধু ১৯৭৩ সালে পঞ্চবার্ষিকী পরিকল্পনা করে উন্নয়নের পথ সুগম করেছিলেন। বঙ্গবন্ধু শুধু একজন রাজনীতিবিদই ছিলেন না,তিনি একজন আধ্যাত্মিক জ্ঞান সম্পন্ন লোক ছিলেন।
ফাতেমা-তুজ-জোহরা লিমা বলেন, বাংলাদেশের অর্থনীতির কাঠামো চুরমার করে দেয়া হয়েছিল বঙ্গবন্ধুকে হত্যার মধ্য দিয়ে।
ডক্টর আবির বলেন, বাংলাদেশের উন্নয়ন প্রক্রিয়া সকল নাগরিক বান্ধব হতে হবে এবং দেশের ক্রমবর্ধমান উন্নয়নকে ত্বরান্বিত করার জন্য সকলকে ঐক্যবদ্ধভাবে কাজ করতে হবে।
দিপু সিদ্দিকী বলেন, বঙ্গবন্ধু ন্যায্যতায় বিশ্বাসী ছিলেন, ন্যায় পরায়ণতায় বিশ্বাসী ছিলেন।
সভায় সূচনা বক্তব্য প্রদান করেন দিনাজপুরের বীরগঞ্জ উপজেলা ছাত্রলীগের সাধারণ সম্পাদক গোলাম মুর্শিদ অর্ণব।
সভাটি সঞ্চালনা করেন রয়েল ইউনিভার্সিটি অব ঢাকা এর সহযোগী অধ্যাপক,বিভাগীয় প্রধান ও ডেইলি প্রেসওয়াচ সম্পাদক দিপু সিদ্দিকী।
এছাড়াও সভায় অন্যান্যদের মধ্যে সংযুক্ত ছিলেন সোনালী ব্যাংকের কর্মকর্তা ইএন রুমা।