dmp

দিপু সিদ্দিকীঃ

এবার পয়লা বৈশাখে নববর্ষের সব অনুষ্ঠান দুপুর দুইটার মধ্যে সারতে হবে বলে জানিয়েছেন ডিএমপি কমিশনার শফিকুল ইসলাম। তিনি বলেন, শোভাযাত্রা বাদে ব্যবহার করা যাবে না মুখোশ। থাকবে না খাবারের দোকান, বাজানো যাবে না ভুবুজেলা। এ ছাড়া মঙ্গল শোভাযাত্রায়ও থাকছে বিশেষ নিরাপত্তা ব্যবস্থা।

মঙ্গলবার (১২ এপ্রিল) সকালে রমনা বটমূল এলাকা পরিদর্শন শেষে এসব কথা জানান তিনি।

হঠাৎই সন্ত্রাসী কর্মকাণ্ডের চেষ্টা, কিন্তু কঠোর নিরাপত্তা বেষ্টনি আর চারদিকে সিসি টিভির চোখে ভেস্তে গেল নাশকতার পরিকল্পনা। অবশেষে আইনশৃঙ্খলা রক্ষা বাহিনীর হাতে ধরাশাই।

দুই বছর পর আবারো প্রাণ ফিরছে প্রাণের বটমূলে। শেষ বেলায় চলছে প্রস্তুতির আয়োজন। তাইতো আইনশৃঙ্খলা রক্ষা বাহিনীও ঝালিয়ে নিচ্ছেন যেকোনো অনাকাঙিক্ষত পরিস্থিতি মোকাবিলায় করণীয়। এ কর্মযজ্ঞে ডগস্কয়াডের পাশপাশি সিসি ক্যামেরা আর বিশেষ রোবট থাকছে সহায়ক হিসেবে।

পুরো কার্যক্রম পরিদর্শন করে ডিএমপি কমিশনার মোহা. শফিকুল ইসলাম বলেন, মঙ্গল শোভাযাত্রায় যারা অংশগ্রহণ করবে তাদের সবাইকে চেক করে তারপর কার্যক্রম শুরু হবে। সেই সঙ্গে মুখোশ পরিধান করে না আসার জন্য, উচ্চশব্দ যেমন ভুবুজেলা ব্যবহার না করার অনুরোধ জানাব।

ডিএমপি কমিশনার জানান, দেশে আবারো জঙ্গি তৎপরতার তথ্য আছে তাদের কাছে। এ ছাড়া ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় এলাকাও জঙ্গি তৎপরতার খবরেই বাড়তি সতর্ক তারা।

শফিকুল ইসলাম বলেন, আমাদের কিছু বন্ধু রাষ্ট্র আমাদের কাছে গুরুত্বপূর্ণ কিছু বার্তা দিচ্ছে। তারা আশঙ্কা করছে বাংলাদেশ, ভারত ও পাকিস্তান এ তিন দেশে জঙ্গি তৎপরতা উল্লেখযোগ্যভাবে বৃদ্ধি পাচ্ছে। আমরা সম্প্রতি এসব সংগঠনের তৎপরতা লক্ষ্য করছি।
 
তবে এমন বিধি নিষেধে সাধারণ মানুষের উৎসবে ভাটা পড়বে কিনা এমন প্রশ্নের জবাবে ডিএমপি কমিশনার বলেন, তার কথার ওপর ভিত্তি করে উৎসব পালনের সিদ্ধান্ত নেবে না মানুষ। আমার কথা শুনে কেউ আসবেন কি, আসবেন না সে সিদ্ধান্ত নেবেন। যিনি সিদ্ধান্ত নেওয়ার তিনি আগে থেকেই সিদ্ধান্ত নিয়ে রেখেছেন যে তিনি আসবেন।