3ap2

প্রেস ওয়াচ রিপোর্টঃ  শুক্রবার,৮ এপ্রিল,২০২২ খ্রি. তারিখে মুজিব শতবর্ষ এবং জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান’র ১০২তম জন্মদিন উপলক্ষ্যে জানিপপ কর্তৃক আয়োজিত বর্ষকালব্যপী জুম ওয়েবিনারে এক বিশেষ্ আলোচনা সভার ২৪৮তম পর্ব অনুষ্ঠিত হয়।
জানিপপ-এর প্রতিষ্ঠাতা চেয়ারম্যান প্রফেসর ড.মেজর নাজমুল আহসান কলিমউল্লাহ, বিএনসিসিও’র সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত এ আলোচনা সভায় প্রধান অতিথি হিসেবে সংযুক্ত ছিলেন রংপুর মহিলা আওয়ামীলীগের সভাপতি মোসাঃ আর্জিনা খানম এবং বিশেষ অতিথি হিসেবে সংযুক্ত ছিলেন শিক্ষা ক্যাডারের সহযোগী অধ্যাপক ও বঙ্গবন্ধু গবেষক আবু সালেক খান,নীলফামারীর জলঢাকা থেকে পিএইচডি গবেষক ফাতেমা তুজ-জোহরা লিমা,কুমিল্লার লাকসাম থেকে প্রভাষক কামাল উদ্দিন ও সিমরান ফেরদাউস।
সভায় গেস্ট অব অনার হিসেবে সংযুক্ত ছিলেন ভারতের টেলিভিশন ব্যক্তিত্ব ও কলামিস্ট পিনাকী ভট্টাচার্য এবং মুখ্য আলোচক হিসেবে সংযুক্ত ছিলেন বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়, গোপালগঞ্জ এর বঙ্গবন্ধু ইনস্টিটিউট অব লিবারেশন ওয়ার এন্ড বাংলাদেশ স্টাডিজ এর অধীনে পিএইচডি গবেষণারত প্রশান্ত কুমার সরকার।
সভাপতির বক্তৃতায় ড. কলিমউল্লাহ বলেন, জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান সবসময় ধর্মীয় অনুশাসন মেনে চলতেন।
গবেষক আবু সালেক খান বলেন,বঙ্গবন্ধু দেশকে দেখতেন সাধারণ মানুষের দৃষ্টিতে, তাই তিনি মানুষের দুঃখ কষ্ট অনুভব করতে পেরেই পাকিস্তানি দুঃশাসনের হাত থেকে বাঙালি জাতিকে মুক্ত করে স্বাধীন বাংলাদেশ প্রতিষ্ঠা করতে পেরেছিলেন।
বক্তারা বলেন,জাতির পিতা শেখ মুজিবুর রহমান একজন বঙ্গবন্ধু যিনি গোপালগঞ্জের টুঙ্গিপাড়ায় জন্মেছিলেন। তার কর্মময় প্রজ্ঞা- একটি ছাত্র সংগঠন সৃষ্টি, রাজনৈতিক দল সৃষ্টি, জাতিরাষ্ট্র সৃষ্টি, দ্বিতীয় বিপ্লব সৃষ্টি, একটি সংবিধান সৃষ্টি- এই সব অনন্য সৃষ্টির স্রষ্টা জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান। তার কর্মময় জীবনের প্রজ্ঞা ৭ মার্চের ভাষণে ইউ ডি আই- এ না গিয়ে তিনি বায়াফ্রার মতো অবস্থা যাতে না হয়, সেটি নিশ্চিত করার জন্য ৭ই মার্চে ঠিক যে কথাটি বলা দরকার ছিল, সেটি বলে সাড়ে সাত কোটি বাঙালিকে ঐক্যের জায়গায় এনেছিলেন। সে কারণেই তার প্রজ্ঞার পরিচয় ২৬ মার্চে স্বাধীনতার ঘোষণা।
সভাটি সঞ্চালনা করেন রয়েল ইউনিভার্সিটি অব ঢাকা’র সহযোগী অধ্যাপক,বিভাগীয় প্রধান ও ডেইলি প্রেসওয়াচ সম্পাদক দিপু সিদ্দিকী।
সভায় অন্যান্যদের মধ্যে সংযুক্ত ছিলেন ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষার্থী আবুল হাসনাত ইরফান।