usa arab

ইউক্রেন যুদ্ধের জেরে রাশিয়ার তেল-গ্যাস আমদানি নিষিদ্ধের ধাক্কা সামলাতে গিয়ে যুক্তরাষ্ট্র যখন নিজেই চাপের মুখে, তখন বাইডেন প্রশাসনকে অনেকটা বুড়ো আঙুল দেখিয়ে চীনে তেল পাঠানোর ঘোষণা দিয়েছে মার্কিনিদের ‘পুরোনো মিত্র’ সৌদি আরব। বৃহস্পতিবার (১০ মার্চ) দেশটির রাষ্ট্রায়ত্ত তেল কোম্পানি সৌদি আরামকো জানিয়েছে, তারা চীনের উত্তরপূর্বাঞ্চলে বিশাল একটি তেল পরিশোধনাগার তৈরি করবে। আর তা চালু হবে ২০২৪ সালের মধ্যেই।

আরামকো বলেছে, তারা চীনের নর্থ হুয়াজিন কেমিক্যাল ইন্ডাস্ট্রিজ গ্রুপ এবং পানজিন জিনচেং ইন্ডাস্ট্রিয়াল গ্রুপের সঙ্গে যৌথভাবে লিয়াওনিং প্রদেশে একটি সমন্বিত তেল পরিশোধনাগার ও পেট্রোকেমিক্যাল কমপ্লেক্স নির্মাণ করবে। সেখানে দৈনিক তিন লাখ ব্যারেল তেলের পাশাপাশি বছরে ১৫ লাখ মেট্রিক টন ইথিলিন ক্র্যাকার ও ১৩ লাখ মেট্রিক টন প্যারাক্সিলিনও উৎপাদন হবে। আর এর জন্য স্থাপনাটিতে দৈনিক প্রায় ২ লাখ ১০ হাজার ব্যারেল অপরিশোধিত তেল পাঠাবে সৌদি আরামকো।

অবশ্য ইউক্রেন যুদ্ধের মধ্যে চীনের সঙ্গে তেল-সম্পর্কিত চুক্তি শুধু সৌদিই নয়, রাশিয়াও করেছে। গত ৪ ফেব্রুয়ারি রাষ্ট্রায়ত্ত রুশ গ্যাস কোম্পানি রসনেফট চায়না ন্যাশনাল পেট্রোলিয়াম করপোরেশনের (সিএনপিসি) সঙ্গে ১০ বছর মেয়াদী একটি চুক্তি করেছে। এর আওতায় দৈনিক ১০ কোটি মেট্রিক টন বা ২ লাখ ৮২১ ব্যারেল তেল চীনের উত্তরপশ্চিমাঞ্চলীয় পরিশোধনাগারগুলোতে পাঠাবে রাশিয়া।