j cover

দিপু সিদ্দিকীঃ

মুক্তিযোদ্ধা চলচ্চিত্রজন জানেসার ওসমানকে সম্মাননা স্মারক প্রদান করেছে আন্তর্জাতিক স্বল্পদৈর্ঘ্য ও মুক্ত চলচ্চিত্র উৎসব ২০২২’ কমিটি ।’১৬তম আন্তর্জাতিক স্বল্পদৈর্ঘ্য ও মুক্ত চলচ্চিত্র উৎসব ২০২২’এ মুক্তিযোদ্ধা চলচ্চিত্রজন জানেসার ওসমানকে এ সম্মাননা স্মারক প্রদান করা হয়।

গত ১ মার্চ (মঙ্গলবার) রাতে রাজধানীর শিল্পকলা একাডেমির এক্সপেরিমেন্টাল থিয়েটার হলে বাংলাদেশ শর্ট ফিল্ম ফোরাম আয়োজিত ‘মুক্তিযোদ্ধা চলচ্চিত্রজনদের অভিবাদন এবং শুভেচ্ছা প্রদান’ করা হয়। অনুষ্ঠানের মাধ্যমে ২৯ জন বীর মুক্তিযোদ্ধা চলচ্চিত্রজনকে সম্মাননা প্রদান করা হয়। তন্মধ্যে মুক্তিযোদ্ধা চলচ্চিত্রজন জানেসার ওসমান সহ ১০ জন স্বশরীরে উপস্থিত থেকে সম্মাননা গ্রহণ করেন। অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তব্যে ঢাকা দক্ষিণ সিটি করপোরেশনের (ঢাদসিক) মেয়র ব্যারিস্টার শেখ ফজলে নূর তাপস প্রধান অতিথি হিসেবে বীর মুক্তিযোদ্ধা চলচ্চিত্রজনকে সম্মাননা প্রদান করেন।

এ সময় ঢাদসিক মেয়র ব্যারিস্টার শেখ তাপস মুক্তিযোদ্ধা চলচ্চিত্রজনেরা চেতনার জাগরণে এখনো মুক্তিযুদ্ধের সংগ্রাম চালিয়ে যাচ্ছেন বলে অভিমত ব্যক্ত করেন।

‘১৬তম আন্তর্জাতিক স্বল্পদৈর্ঘ্য ও মুক্ত চলচ্চিত্র উৎসব ২০২২’ এর উৎসব পরিষদের চেয়ারম্যান নাট্যজন নাসির উদ্দিন ইউসুফ বলেন, “মুক্তিযোদ্ধা হিসেবে চলচ্চিত্রজনদের যে গৌরব, তা নতুন প্রজন্মের মধ্যে বাহিত হওয়া উচিত। সেজন্যই আমাদের এই আয়োজন। এই আয়োজনে ১৩০টি দেশের ৩ হাজার ৮০০ এর অধিক চলচ্চিত্র জমা পড়েছে। বাংলাদেশের কোনও ফোরামে এতগুলো দেশের সম্পৃক্ততা নেই। তাই, এই আয়োজন আমাদের জন্য অত্যন্ত গর্বের।”

অনুষ্ঠানে অন্যান্যের মধ্যে চলচ্চিত্র ব্যক্তিত্ব মানজারে হাসীন মুরাদ, উৎসব আয়োজক কমিটির পরিচালক সৈয়দ ইমরান হোসেন কিরমানী বক্তব্য রাখেন।

আন্তর্জাতিক স্বল্পদৈর্ঘ্য ও মুক্ত চলচ্চিত্র উৎসব সম্মাননা স্মারকপ্রাপ্ত মুক্তিযোদ্ধা চলচ্চিত্রজন জানেসার ওসমান বলেন,“এই সম্মাননা গ্রহণ করা একটি আবেগের বিষয় এবং রোমাঞ্চকর। এভাবে সম্মান দেখিয়ে আন্তর্জাতিক স্বল্পদৈর্ঘ্য ও মুক্ত চলচ্চিত্র উৎসব ২০২২’ কমিটি  একটি চমৎকার কাজ  করেছে।উৎসব কমিটি  যে সম্মাননা দিয়েছে এতে আমরা গৌরবান্বিত বোধ করছি”। তিনি আরো বলেন,ভালোকে ভালো, মন্দকে মন্দ বলতে হবে। সময় এসেছে সামনে তাকানোর। বিজয়ের ৫০ বছরের এ সময়ে আগামী ৫০ বছরের পথ রচনা করতে হবে।