DUJ_Hassan_Mahmud-750×563

আইরিন নাহারঃ

ঢাকা : তথ্য ও সম্প্রচারমন্ত্রী ড. হাছান মাহমুদ বলেছেন, বাংলাদেশে গত ১৩ বছরে মাথাপিছু আয় বেড়েছে সাড়ে চারগুণ। আর এই সময়ে নিম্নবিত্ত মানুষের ক্রয়ক্ষমতা বেড়েছে তিনগুণ। তিনি বলেন, পৃথিবীতে আবহমান কাল থেকেই দ্রব্যমূল্য বাড়ছে। এক সময় বাম নেতারা দাবি করতেন, শ্রমিকের দৈনিক মুজুরি তিন কেজি চালের সমান হতে হবে। বর্তমানে শ্রমিকরা দৈনিক ১২ কেজি চালের দামের সমান মুজুরি পাচ্ছেন। চট্রগ্রাম এলাকায় এর পরিমাণ আরও বেশি। সেখানে শ্রমিকদের দৈনিক মুজুরি ৮০০ টাকা।

মঙ্গলবার (১ মার্চ) ঢাকা সাংবাদিক ইউনিয়ন (ডিইউজে)‘র দ্বি-বার্ষিক সাধারণ সভায় প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি এসব কথা বলেন। সংগঠনের সভাপতি কুদ্দুস আফ্রাদের সভাপতিত্বে এবং সাধারণ সম্পাদক সাজ্জাদ আলম খান তপুর সঞ্চালনায় সাধারণ সভায় অন্যান্যের মধ্যে বক্তব্য দেন বিশিষ্ট সাংবাদিক ও প্রধানমন্ত্রীর সাবেক তথ্য উপদেষ্টা ইকবাল সোবহান চৌধুরী, বাংলাদেশ ফেডারেল সাংবাদিক ইউনিয়নের (বিএফইউজে) সভাপতি ওমর ফারুক, সাবেক সভাপতি মনজুরুল আহসান বুলবুল, ঢাকা সাংবাদিক ইউনিয়নের সাবেক সভাপতি আবু জাফর সূর্য, বিএফইউজে‘র সাধারণ সম্পাদক দ্বীপ আজাদ প্রমুখ।

এ সময় ড. হাছান মাহমুদ বলেন, ‘শেখ হাসিনার সরকার সাংবাদিক বান্ধব সরকার। শেখ হাসিনা সাংবাদিকবান্ধব প্রধানমন্ত্রী। ফলে সাংবাদিকদের বিভিন্ন দাবি দাওয়ার বিষয়ে তিনি সব সময় আন্তরিক। সাংবাদিকদের কল্যাণের জন্য প্রধানমন্ত্রী সাংবাদিক কল্যাণ ট্রাস্ট করেছেন। এই ট্রাস্ট থেকে সব দল ও মতের সাংবাদিকরা সহায়তা পাচ্ছেন। এমনকি যেসব সাংবাদিক প্রেস ক্লাবে দাঁড়িয়ে সরকারের সমালোচনা করছেন তারাও সাংবাদিক কল্যাণ ট্রাস্ট থেকে সহায়তা পাচ্ছেন এবং পাবেন।’

তিনি বলেন, ‘২০২০ ও ২০২১ সালে করোনার সময়েও প্রধানমন্ত্রী সাংবাদিকদের সব ধরনের সাহায্য-সহযোগিতা করেছেন। ২০২১ সালে তিনি সাংবাদিকদের জন্য ১০ কোটি টাকা বরাদ্দ দিযেছেন।’

তিনি আরও বলেন, ‘এক সময় বিদেশি মিডিয়ায় বিজ্ঞাপন চলে যেত, আমরা সেটা বন্ধ করেছি। যাতে করে দেশি টিভি চ্যানেলগুলোর আয় বৃদ্ধি পায়।

আওয়ামী লীগের এই যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক বলেন, ‘সরকার নবম ওয়েজবোর্ড ঘোষণা করেছে। এখন পর্যন্ত বাসসসহ মাত্র দুটি প্রতিষ্ঠান নবম ওয়েজ বোর্ড বাস্তবায়ন করেছে। বাকি প্রতিষ্ঠানগুলো কেন বাস্তবায়ন করছে না এবং তাদের বিরুদ্ধে কী ধরনের ব্যবস্থা নেয়া যায়- সেসব বিষয়ে সবার সঙ্গে বসে আলোচনা করে সিদ্ধান্ত নেব।’

ইকবাল সোবহান চৌধুরী বলেন, ‘সাংবাদিকদের মত প্রকাশের স্বাধীনতা, গণমাধ্যমের স্বাধীনতা ও সাংবাদিকদের মর্যাদার মাধ্যমে গণতন্ত্র বিকশিত হবে।’