sin

লি হিসেইন লুং বলেন, নেহেরুর ভারত এখন একটা জায়গায় এক হয়ে গেছে…যেখানে লোকসভার প্রায় অর্ধেক এমপির বিরুদ্ধে ফৌজদারি মামলা মুলতবি রয়েছে। তাদের অনেকের বিরুদ্ধে ধর্ষণ ও হত্যার অভিযোগও রয়েছে।

বুধবার সিঙ্গাপুরের পার্লামেন্টে তিনি এমন অভিযোগ করেন। বিরোধী দলীয় এক সদস্যের বিরুদ্ধে মিথ্যার অভিযোগ আনা নিয়ে বিতর্কের সময়ে পার্লামেন্ট সদস্যদের নীতি-নৈতিকতা নিয়ে বয়ান দিতে এসব কথা বলেন লি লুং।

স্ট্রেইট টাইমস বলছে, কীভাবে একটি গণতান্ত্রিক ব্যবস্থা কার্যকরভাবে পরিচালিত হতে এমপিদের ভালো আচরণ ও মূল্যবোধের অধিকারী হতে হয়, তা নিয়ে বক্তব্য দিচ্ছিলেন তিনি। সরকার ও অন্যান্য বিষয়ের ওপর জন-আস্থার গুরুত্ব নিয়েও কথা বলেন সিংগাপুরের প্রধানমন্ত্রী।

আরও পড়ুন: মালয়েশিয়ায় বাংলাদেশ-ভারত মৈত্রী দিবস উদযাপন

তিনি বলেন, অধিকাংশ দেশই উচ্চ-আদর্শ ও মহৎমূল্যবোধ নিয়ে পথচলা শুরু করেছে। কিন্তু সাধারণত প্রতিষ্ঠাকালীন নেতা ও অগ্রবর্তী প্রজন্মকে ছাড়িয়ে কয়েক দশক পর পরিস্থিতি পরিবর্তন হতে থাকে। এক তীব্র আবেগ নিয়ে সবকিছু শুরু হয়। যারা লড়াই করে স্বাধীনতা আনেন, সেই সব নেতারা বিপুল সাহস, সাংস্কৃতিক ঐতিহ্য ও অসাধারণ সক্ষমতা দিয়ে ব্যক্তিক্রমী ব্যক্তিত্বে পরিণত হন। কিন্তু পরবর্তীতে কয়েক প্রজন্ম পর সেসব আর বহাল থাকে না।

‘অগ্রবর্তী প্রজন্মকে কঠিন অগ্নিপরীক্ষার মধ্য দিয়ে আসতে হয়েছে। তারা মানুষ ও জাতির নেতা হিসেবে আবির্ভূত হয়েছেন। ডেভিড বেন গুরিয়ন, জওহারলাল নেহুরুরা ছিলেন তেমনই। এই মহান নেতাদের আমরা অনুসরণ করি।’

কিন্তু পরবর্তী প্রজন্ম তাদের রেখে যাওয়া পথ এগিয়ে নিতে পারেন না। বেন গুরিয়নের ইসরাইল এমন একটি জায়গায় চলে গেছে, যেখানে দুবছরে চারটি সাধারণ নির্বাচন হওয়ার পরেও সরকার গঠন করা কঠিন হয়ে পড়েছিল। অবশেষে নাফতালি বেনেটের নেতৃত্বাধীন জোট সরকার গঠন করা হয়েছে। ইতিমধ্যে বেশ কয়েকজন জ্যেষ্ঠ ইসরাইলি কর্মকর্তা ও রাজনীতিবিদের বিরুদ্ধে ফৌজদারি অভিযোগ প্রকাশ্যে চলে এসেছে। তাদের কাউকে-কাউকে কারাগারে যেতে হয়েছে।

সিঙ্গাপুর প্রধানমন্ত্রী বলেন, নেহেরুর ভারতও এমন একটি জায়গায় চলে গেছে, যেখানে লোকসভার অর্ধেক এমপির বিরুদ্ধে ফৌজদারি অপরাধের মামলার বিচার মুলতবি রয়েছে। এমনকি হত্যা ও ধর্ষণের মামলাও আছে। যদিও এসব মামলার কোনোটি রাজনৈতিক উদ্দেশ্যপ্রণোদিত।

আরও পড়ুন: ভারত ভ্রমণে লাগবে না স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের ছাড়পত্র