tr

অন্তত ৪০ জন আহত যাত্রীকে উদ্ধার করা হয়েছে বলে জানিয়েছে তারা। এছাড়া দুর্ঘটনায় মৃতদের পরিবারকে এককালীন ৫ লক্ষ টাকা আর্থিক সহায়তা করার ঘোষণা দিয়েছে ভারতীয় রেল।

ভারতীয় সংবাদ মাধ্যম আনন্দবাজার জানায়, বৃহস্পতিবার স্থানীয় সময় বিকাল পাঁচটায় এই দুর্ঘটনার ঘটনা ঘটে। বিহারের পাটনা থেকে আসামের গোহাটিগামী বিকানের-গৌহাটি এক্সপ্রেস ময়নাগুড়ির দোমাহনি এলাকায় লাইনচ্যুত হয়। দুর্ঘটনার পর ট্রেনটির ৪-৫টি কামরা একেবারে দুমড়ে মুচড়ে যায়।

একটি কামরার উপরে উঠে যায় আর একটি কামরা। ট্রেনের একটি কামরা পানিতেও পড়ে যায়। আনন্দবাজার জানিয়েছে, ট্রেনটির ইঞ্জিনের পর থেকে ১২টি কামরা দুর্ঘটনার জেরে ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছে। তার মধ্যে ৭টি কামরা সবচেয়ে বেশি ক্ষতি হয়েছে। দুর্ঘটনার সময় ট্রেনটির গতিবেগ ঘণ্টায় ৪০ কিলোমিটার ছিল বলে জানায় তারা।

আরও পড়ুনঃ ভারত-ফেরত-যাত্রী-করোনা-শনাক্ত

জলপাইগুড়ির জেলা প্রশাসক মৌমিতাদেবী জানিয়েছেন, দুর্ঘটনার খবর পাওয়ার সঙ্গে সঙ্গে উদ্ধারে ঝাঁপিয়েছে প্রশাসন। কামরার মধ্যে আটকে রয়েছেন কি না জানতে তল্লাশি চালাচ্ছে উদ্ধারকারী দল। এখনো পর্যন্ত ১০ – ১২ জনকে উদ্ধার করে হাসপাতালে পাঠানো হয়েছে বলে জানান তিনি।

এদিকে আহতদের ২৪ জনকে জলপাইগুড়ি হাসপাতালে এবং ১৬ জনকে ময়নাগুড়ি হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে। আহতদের মধ্যে ১৫ জনের অবস্থা আশঙ্কাজনক বলে জানিয়েছে হাসপাতাল কর্তৃপক্ষ।

দুর্ঘটনার খবর পেয়ে রাজ্য প্রশাসনকে তৎপর হওয়ার নির্দেশ দেন পশ্চিমবঙ্গের মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। আনন্দবাজার জানিয়েছে ভারতীয় রেলমন্ত্রী অশ্বিনী বৈষ্ণব উদ্ধারকাজে নজর রাখছেন। ঘটনার বিস্তারিত বিবরণ অশ্বিনী বৈষ্ণব ভারতের প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদিকে জানিয়েছেন।