জানিপপ ১৬১তম সভা

প্রেস ওয়াচ রিপোর্টঃ ড. কলিমউল্লাহ বলেছেন,বঙ্গবন্ধু বাংলার মানুষজনকে প্রাণ উজাড় করা ভালোবাসা দিয়ে গেছেন ।

রবিবার  মুজিব শতবর্ষ উপলক্ষ্যে জানিপপ কর্তৃক আয়োজিত বর্ষকালব্যপী জুম ওয়েবিনারে আলোচনা সভার ১৬১তম পর্বের সমাপনী বক্তব্যে একথা বলেন তিনি।

জানিপপ-এর প্রতিষ্ঠাতা চেয়ারম্যান প্রফেসর ডক্টর মেজর নাজমুল আহসান কলিমউল্লাহ, বিএনসিসিও’র সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত এ আলোচনা সভায় প্রধান অতিথি হিসেবে উত্তর কুমিল্লা আওয়ামী লীগের নির্বাহী কমিটির সদস্য মোঃ জাকির হোসেন আজাদ এবং বিশেষ অতিথি হিসেবে সংযুক্ত ছিলেন রংপুর মহিলা আওয়ামীলীগের সভাপতি মোসাঃ আর্জিনা খানম ও ছোলমাইদ উচ্চ বিদ্যালয়ের সহকারি প্রধান শিক্ষক আফরোজা বেগম নীলা । সভায় গেস্ট অব অনার হিসেবে সংযুক্ত ছিলেন ইউএন ডিজএ্যাবিলিটি রাইটস্ চ্যাম্পিয়ন আবদুস সাত্তার দুলাল এবং মুখ্য আলোচক হিসেবে সংযুক্ত ছিলেন অস্ট্রেলিয়ার ওয়েস্টার্ন সিডনি ইউনিভার্সিটির ফেলো ড.তানভীর ফিত্তীণ আবীর।

 প্রধান অতিথির বক্তৃতায় মোঃ জাকির হোসেন আজাদ বলেন , বঙ্গবন্ধুর ছিল বর্তমান ও ভবিষ্যৎ সম্পর্কে গভীর জ্ঞান ও দূরদর্শিতা।

আব্দুস সাত্তার দুলাল বলেন, বঙ্গবন্ধু আমাদেরকে শ্রেষ্ঠ সম্মান এনে দিয়েছেন।বঙ্গবন্ধুর অনুসারী হতে হলে আমাদেরকে সুশিক্ষিত হতে হবে,সৎ হতে হবে।

আফরোজা বেগম নীলা বলেন, ধৈর্য, সংগ্রামী চেতনা,আপসহীনতা আর অসীম সাহসিকতার জন্য বঙ্গবন্ধু হয়ে উঠেছিলেন যুগস্রষ্টা নেতা।

আর্জিনা খানম বলেন,বঙ্গবন্ধু ছিলেন বিংশ শতাব্দীতে বাঙালির নবজাগরণের মহানায়ক।

ড.আবীর করোনা পরিস্থিতি এবং অর্থনীতিতে এর প্রভাব মোকাবিলায় সরকারের নেওয়া বিভিন্ন পদক্ষেপ ও সাফল্যের কথা তুলে ধরেন।

দিপু সিদ্দিকী বলেন, ইতিহাসে বঙ্গবন্ধু ও বাংলাদেশ সমার্থক, এক ও অভিন্ন। তিনিই স্বাধীন বাংলাদেশের পথিকৃত।

আলোচনা সভায় অন্যান্যদের মধ্যে সংযুক্ত ছিলেন এশিয়ান টেলিভিশনের সাংবাদিক রফিকুল ইসলাম রলি,কুমিল্লার চান্দিনা থেকে জনতা ব্যাংকের কর্মকর্তা খোরশেদ আলম এবং সোনালী ব্যাংকের কর্মকর্তা ইএন রুমা ।

সভাটি সঞ্চালনা করেন রয়েল ইউনিভার্সিটি অব ঢাকা এর সহযোগী অধ্যাপক,বিভাগীয় প্রধান ও ডেইলি প্রেসওয়াচ সম্পাদক দিপু সিদ্দিকী ।