বঙ্গবন্ধু হত্যাকাণ্ডের মাধ্যমে রাজনৈতিক অঙ্গণে অচলাবস্থা ও কুলষিত সংস্কৃতির অনুপ্রবেশ ঘটানো হয় -ড. কলিমউল্লাহ

Posted by: | Posted on: August 15, 2021
বঙ্গবন্ধু হত্যাকাণ্ডের মাধ্যমে রাজনৈতিক অঙ্গণে অচলাবস্থা ও কুলষিত সংস্কৃতির অনুপ্রবেশ ঘটানো হয় -ড. কলিমউল্লাহ

ডেইলি প্রেসওয়াচ/শাফিউল বাশারঃ জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানসহ ১৫ আগস্টে নিহত সকল শহীদের রুহের মাগফেরাত ও শান্তি কামনা করে প্রফেসর ডক্টর নাজমুল আহসান কলিমউল্লাহ বলেছেন, বঙ্গবন্ধু হত্যাকাণ্ডের মাধ্যমে বাংলাদেশ হাজার বছর পিছিয়ে গেছে। এ হত্যাকাণ্ডের মাধ্যমে রাজনৈতিক অঙ্গণে এক অচলাবস্থার সৃষ্টি হয়েছিলো। রাজনৈতিক সংস্কৃতি কুলষিত হওয়ার কারণে বাংলাদেশে উন্নয়নের গতি থমকে গিয়েছিলো। জাতির পিতার সুযোগ্য কন্যা জননেত্রী শেখ হাসিনা তাঁর পিতার অসমাপ্ত কাজ সম্পন্নকরণে কাজ করছেন এবং বাংলাদেশের উন্নয়নের গতি আবারও সচল করেছেন।

১৫ আগস্ট জাতীয় শোক দিবস উপলক্ষ্যে জানিপপ ওয়েবেনার জুমে এক আলোচনা সভায় জানিপপ-এর প্রতিষ্ঠাতা চেয়ারম্যান প্রফেসর ডক্টর মেজর নাজমুল আহসান কলিমউল্লাহ, বিএনসিসিও অনুষ্ঠানে সভাপতি হিসেবে বক্তব্য দানকালে এ কথা বলেন ।

আলোচনা সভায় সূচনা বক্তব্য রাখেন জনাব গোলাম মুর্শেদ।

বঙ্গবন্ধু হত্যাকাণ্ডের মাধ্যমে রাজনৈতিক অঙ্গণে অচলাবস্থা ও কুলষিত সংস্কৃতির অনুপ্রবেশ ঘটানো হয় -ড. কলিমউল্লাহ

শোকাবহ আগস্ট উপলক্ষ্যে ভার্চুয়াল প্লাটফর্ম জুমে অনুষ্ঠিত আলোচনা সভায় মূল আলোচক হিসেবে বক্তব্য উপস্থাপন করেন বীর মুক্তিযোদ্ধা, ৭৫-এর প্রতিরোধ যোদ্ধা এবং সেক্টর কমান্ডারস্ ফোরাম-এর যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক আব্দুল মাবুদ। তিনি বলেন, ৭৫-এর পট পরিবর্তনের পর সুগঠিতভাবে কোন প্রতিরোধ ব্যবস্থা গড়ে উঠেনি। তৎকালীন তিন বাহিনীর প্রধান এবং পুলিশ প্রধান প্রতিরোধ গড়ে না তুলে বরং আত্মসমর্পণের পথ বেঁচে নেন। যা ছিলো অত্যন্ত দুঃখজনক। এ হত্যাকান্ডে যারা মদদ দিয়েছে তাঁদের বিচারের জন্য অনতিবিলম্বে একটি কমিশন গঠনের জোর দাবি জানান।
আলোচনায় আরো বক্তব্য উপস্থাপন করেন বেগম রোকেয়া বিশ্ববিদ্যালয়ের রাষ্ট্রবিজ্ঞান বিভাগের সহযোগী অধ্যাপক তানজিউল ইসলাম জীবন। তিনি বলেন, বঙ্গবন্ধুর প্রতি শ্রদ্ধা প্রদর্শন শুধু দিবস ভিত্তিক না রেখে আমাদের কাজে কর্মে তা প্রদর্শন করতে হবে।
সভায় বেগম রোকেয়া বিশ্ববিদ্যালয়ের রাষ্ট্রবিজ্ঞান বিভাগের সহকারী অধ্যাপক মো. সাইদুর রহমান বঙ্গবন্ধুর শিক্ষার উন্নয়নে বিভিন্ন অবদান তুলে ধরেন। বেগম রোকেয়া বিশ্ববিদ্যালয়ের পরিসংখ্যান বিভাগের সহযোগী অধ্যাপক ড. মোঃ রশিদুল ইসলাম বলেন, বিশ্ববরেণ্য নেতা বঙ্গবন্ধুর চেতনা ধারণ করে আমাদেরকে সামনের দিকে এগিয়ে যেতে হবে।

প্রেসওয়াচ-বায়াজিদা ফারজানা/ জান্নাতুল/