Main Menu

উত্তরাঞ্চলের মৎস্যজীবী পরিবারগুলোকে প্রণোদনার আওতায় আনা হবে

নীলফামারী, (বাসস) : চলতি বছর দেশের সাতশ’ পুকুর ও জলাশয় পুনঃখনন করা হবে। ইতিমধ্যে শতাধিক জলাশয় পুনঃখনন করে মাছ চাষের জন্য মৎস্যজীবী পরিবারগুলোকে সম্পৃক্ত করা হয়েছে। পাশাপাশি, দক্ষিণাঞ্চলের ন্যায় উত্তরাঞ্চলের মৎস্যজীবী পরিবারগুলোর তালিকা তৈরি করে তাদেরকে মাছের ডিম দেওয়ার সময়ে প্রণোদনার আওতায় আনা হবে।
আজ শনিবার জেলার সৈয়দপুরে অনুষ্ঠিত ‘জীববৈচিত্র সংরক্ষণে সামাজিক সচেতনতা’ শীর্ষক দিনব্যাপী এক কর্মশালায় প্রধান অতিথির বক্তৃতায় মৎস্য অধিদপ্তরের মহাপরিচালক আবু সাইদ রাশেদুল হক এসব কথা বলেন।
নীলফামারী জেলা মৎস্য কর্মকর্তা মো. আশরাফুজ্জামানের সভাপতিত্বে কর্মশালায় আরও বক্তব্য রাখেন- জলাশয় সংস্কারের মাধ্যমে মৎস্য উৎপাদন বৃদ্ধি প্রকল্পের পরিচালক আলিম-উজ জামান, রংপুর মৎস্য উন্নয়ন কর্মসূচির পরিচালক আতাউর রহমান, রংপুরে মৎস্য অধিদপ্তরের পরিচালক শাহ ইমাম জাফর সাদেক, সৈয়দপুর উপজেলা মৎস্য কর্মকর্তা সানী খান মজলিস।
প্রশিক্ষণ কর্মশালায় সৈয়দপুর কুন্দল বিলের ৮০ জন সুবিধাভোগি অংশগ্রহন করেন। এর আগে মৎস্য অধিদপ্তরের মহাপরিচালক পুণঃখননকৃত সৈয়দপুরের কুন্দল বিল পরিদর্শণ করে সেখানে দেশী প্রজাতির মাছের পোনা অবমুক্ত করেন।






Related News