Main Menu

একজন কার্ডিয়াক সার্জন ডাঃ সাবরিনা আরিফ চৌধুরীর গল্প

ফারহানা হকঃ


এক সপ্তাহ যাবৎ আমার শরীরটা খুব দুর্বল লাগছিল।বুকের বাম পাশে খুব চাপ অনুভব করছিলাম।মনে হচ্ছিল বাম পাশটি কাঁপছিল। মাঝে মাঝে খুব বুক ধরফর করছিল। প্রেশার হাই হওয়ার কারনে একটু ভয় পাচ্ছিলাম।গত ২৫ ফেব্রুয়ারি অফিসে যাওয়ার পর আমার বুকের বাম পাশটির কম্পন আরো বেড়ে গেল।অগ্যতা সচিবালয়ের ভিতরে ক্লিনিকের ডাক্তারকে আমার অফিস রুমে ডেকে আনা হলো।


তিনি প্রেশার মাপলেন প্রেশার হাই কিন্তুু আমার হার্ট বিট অনেক কম। তিনি আমাকে দ্রুত একজন কার্ডিওলোজিষ্টকে দেখানোর পরামর্শ দিলেন। তখনই আমার চোখের সামনে ডাঃ সাবরিনার মুখটা ভেষে উঠলো।বাংলাদেশের একমাত্র মহিলা কার্ডিয়াক সার্জন সাবরিনা। ভাবলাম হৃদপিন্ডটি যদি কাঁটা ছেড়া করতে হয় তাহলে সাবরিনাকে দিয়েই সে কাজটি করবো।আমি একজন নারী তাই আমার হৃদপিন্ডটাকে একজন নারী সার্জন দিয়েই পরীক্ষা করাবো। সাথে সাথেই ডাঃ সাবরিনাকে ফোন করলাম। ওপাশ থেকে সুন্দর নারী কন্ঠের আওয়াজ আপু আপনি কেমন আছেন? আমি বললাম সাবরিনা আমি আলহামদুলিল্লাহ ভাল আছি তবে আমার হার্টটি ভাল নাই আমি আমার হার্ট কে তোমাকে দেখাতে চাই।সাবরিনা বললো আমি আপনার না আসা অবধি আমার চেম্বারে অপেক্ষা করবো। আমার অফিস সচিবালয়ে আর সাবরিনার চেম্বার গুলশান। আমি ৫.৩০ মিনিটে রওয়ানা দিয়ে ওর চেম্বারে পৌঁছালাম রাত প্রায় ৯ টায়। এর মাঝে সে একাধিকবার আমাকে ফোন দিয়ে আমার শরীরের কন্ডিশন কি জানলো।সাবরিনা দেখতে যে রকম সুন্দর ডাঃ হিসেবেও অসাধারন। ওর ব্যবহারে যে কোন রোগী অর্ধেক সুস্থ্য হয়ে যাবে।

সাবরিনা আমার বিভিন্ন ভাবে পরীক্ষা নিরিক্ষা করলো।তারপর বললো আপু আপনার মত সুখী মানুষের হার্টের কোন সমস্যা হতে পারে না বিভিন্ন রকমের ওষুধ খাচ্ছেন তাই যে কোন কারনে আপনার হার্টবির্ট কমে যেতে পারে। তবুও মনের শ্বান্তনার জন্য ও আমাকে এক্সেরে, ইসিজি ও ইকো করার পরামর্শ দিল।শান্তিনগর পপুলার হসপিটালে প্রফেসর ডাঃ চৌধুরী মেশকাত আহমেদকে দিয়ে ইসিজি এবং ইকো করানোর জন্য। আমি গতকাল বিকেলে যথারীতি পপুলার হসপিটালে যাই।সিরিয়ালে বসে আছি।হঠাৎ সাবরিনার ফোন আপু আপনি কোথায়? আমি আমার অবস্থান জানালাম। কিছুক্ষনের মধ্যেই ডাঃ মেশকাত সাহেবের অ্যাসিস্টেন্ট এসে আমার কানে মুখে বললেন ম্যাডাম আপনি ফারহানা হক? আমি বললাম জি।কিছুক্ষণের মধ্যে ইকো রুম থেকে ডাক পরলো।

ভিতরে গেলাম ডাক্তার বলললেন সাবরিনা ফোন দিয়েছে আপনাকে স্পেশাল ভাবে ইকো করানোর জন্য। ডাক্তার সাহেব খুব যত্ন নিয়ে আমার ইকো করলেন এবং বললেন আপনার ইকো এবং ইসিজি রিপোর্ট ভাল। কোন চিন্তা করবেন না।সাবরিনার দেয়া ওষুধগুলো খেয়ে যেতে বললেন। আমার এত কিছু লেখার সারমর্ম হচ্ছে নারী কার্ডিয়াক। ডাঃ সাবরিনা একজন খুব ভাল কার্ডিয়াক সার্জন। শুধু নারীরা না পুরুষরাও যাবেন ডাঃ সাবরিনার কাছে নিজের হার্টের পরীক্ষা নিরিক্ষা করাতে । ওর কাছে গেলে ওর ব্যবহারেই অর্ধেক সুস্থ্য হয়ে যাবেন।ধন্যবাদ ডাঃ সাবরিনা। স্যালুট তোমাকে।ভালবাসা ও শুভ কামনা রইলো তোমার জন্য।






Related News