Main Menu

দুদকের অভিযান: ১০০ কোটি টাকার সরকারি সম্পত্তি উদ্ধার

অনলাইন ডেস্কঃ চট্টগ্রাম ফিরোজ শাহ এস্টেটের ১০০ কোটি টাকার অধিক মূল্যবান সরকারি সম্পত্তি বেহাত থেকে উদ্ধার করেছে দুর্নীতি দমন কমিশন (দুদক)। দুদকের একটি এনফোর্সমেন্ট টিম রাজধানীর জাতীয় গৃহায়ন কর্তৃপক্ষের কার্যালয়ে অভিযান চালিয়ে বেহাত হওয়া ওই সম্পত্তি উদ্ধার করেছে। একইসঙ্গে সরকারি ওই সম্পত্তি বেহাত হওয়ার সঙ্গে যারা জড়িত ছিলেন তাদের বিরুদ্ধে আইনগত ব্যবস্থা গ্রহণের জন্য জাতীয় গৃহায়ন কর্তৃপক্ষের কাছে নথিপত্র তলব করেছে দুদক।দুদক সূত্র জানায়, দুদক অভিযোগ কেন্দ্রে (১০৬) অভিযোগ আসে যে চট্টগ্রাম ফিরোজ শাহ এস্টেটের ৩০৮ কাঠা জমি বেআইনিভাবে বন্দোবস্ত দেওয়া হয়েছে। এ অভিযোগের ভিত্তিতে দুদক মহাপরিচালক মোহাম্মাদ মুনীর চৌধুরীর নির্দেশে দুদকের এনফোর্সমেন্ট টিম বৃহস্পতিবার জাতীয় গৃহায়ন কর্তৃপক্ষের প্রধান কার্যালয়ে অভিযান চালায়। দুদক টিম জাতীয় গৃহায়ন কর্তৃপক্ষ কার্যালয়ে শনিবার অভিযান চালিয়ে রেকর্ড পত্র পরীক্ষা ও পর্যালোচনা করে দেখে, জাতীয় গৃহায়ন কর্তৃপক্ষের চট্টগ্রামস্থ ফিরোজ শাহ হাউজিং এস্টেটের জমি থেকে ৫ পয়েন্ট ১৩ একর জমি গৃহায়ন কর্তৃপক্ষের নয় মর্মে সাবেক নির্বাহী প্রকৌশলী ওম প্রকাশ নন্দী কর্তৃক এনওসি প্রদানের মাধ্যমে বেহাত করা হয়। নির্বাহী প্রকৌশলী কর্তৃক এই অনাপত্তি পত্র চট্টগ্রাম জেলা প্রশাসনের অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক (রাজস্ব) বরাবর প্রেরণ করা হয়। অনাপত্তিপত্র পাওয়ার পর চট্টগ্রাম জেলা প্রশাসন উক্ত জমির নতুন খতিয়ান সৃষ্টি করে ও সহকারী কমিশনারকে (ভূমি) ভূমি উন্নয়ন কর আদায়ের জন্য নির্দেশনা প্রদান করে। নির্দেশনা পাওয়ার পর সহকারী কমিশনার উক্ত জমি ২৮ জন বরাদ্দ গ্রহীতার নামে নামজারি করেন। এর ফলশ্রুতিতে ১০০ কোটি টাকার অধিক মূল্যবান এ সরকারি সম্পত্তি বেহাত হয়ে যায়।

দুদক সূত্র আরও জানায়, সরকারি জমি বেহাত হওয়ার সঙ্গে যারা জড়িত রয়েছেন তাদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা গ্রহণের জন্য জাতীয় গৃহায়ন কর্তৃপক্ষের কাছে নথিপত্র তলব করেছে দুদক। খুব শিগগিরই জাতীয় গৃহায়ন কর্তৃপক্ষ থেকে দুদকে নথিপত্র প্রেরণ করা হবে বলে দুদক টিমের কাছে কর্তৃপক্ষ জানিয়েছে। এ অভিযান প্রসঙ্গে দুদক এনফোর্সমেন্ট ইউনিটের প্রধান, মহাপরিচালক (প্রশাসন) মোহাম্মাদ মুনীর চৌধুরী বলেন, ‘সরকারি সম্পত্তি নিয়ে দুর্নীতির ঘটনা রোধে দুর্নীতি দমন কমিশন কঠোরভাবে তৎপর রয়েছে। এ ক্ষেত্রে এ ঘটনার ওপর দুদক শিগগিরই অনুসন্ধান শুরু করবে এবং দ্রুত আইনানুগ ব্যবস্থা নেওয়া হবে।-ইত্তেফাক






Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *